ভাষাসৈনিক মতিন মেহনতি মানুষের মুক্তির লক্ষ্যে আমৃত্যু লড়াই করেছেন———-মোস্তফা জামাল হায়দার

বুধবার , ৯ অক্টোবর, ২০১৯ at ১০:০৬ পূর্বাহ্ণ
17

ভাষাসৈনিক আব্দুল মতিনের ৫ম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে ভাসানী অনুসারী পরিষদের উদ্যোগে পরিষদের পুরানা পল্টনস্থ কার্যালয়ে গতকাল ৮ অক্টোবর বিকেলে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান ও সাবেক মন্ত্রী মোস্তফা জামাল হায়দার বলেন, ভাষাসৈনিক মতিন মেহনতি মানুষের মুক্তির লক্ষে আমৃত্যু লড়াই করেছেন।
তিনি বলেন ৫২’র ভাষা আন্দোলনের নিয়ামক শক্তি ছিলেন ভাষাসৈনিক আব্দুল মতিন। তার সঠিক সময়ে সিদ্ধান্ত গ্রহণ ও নানামুখী তৎপরতায় সেদিন সাধারণ ছাত্ররা উজ্জীবিত হয়ে ১৪৪ ধারা ভঙ্গে সাহসী ভূমিকা রেখেছিল। তার সুযোগ্য নেতৃত্ব ও অক্লান্ত পরিশ্রমে বাংলা ভাষা রাষ্ট্র ভাষার মর্যাদা লাভ করে। সে ধারাবাহিকতায় আজ মহান ২১ ফেব্রুয়ারি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস হিসেবে সারা বিশ্বে পালিত হচ্ছে। যতদিন বাংলা ভাষা ও বাঙালি জাতি বেঁচে থাকবে ততদিন ভাষাসৈনিক আব্দুল মতিনকে শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করবে। ভাসানী অনুসারী পরিষদের প্রেসিডিয়াম সদস্য অ্যাডভোকেট সুলতান আলম মল্লিক এতে সভাপতিত্ব করেন।সাংগঠনিক সম্পাদক কাজী মোহাম্মদ নজরুলের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সভায় বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক মহাসচিব ও ভাসানী অনুসারী পরিষদের প্রেসিডিয়াম সদস্য নঈম জাহাঙ্গীর, ভাসানী অনুসারী পরিষদের প্রেসিডিয়াম সদস্য মোঃ আখতার হোসেন, ভাসানী অনুসারী পরিষদের যুগ্ম মহাসচিব আমিনুল ইসলাম সেলিম, ভাসানী অনুসারী পরিষদের প্রচার সম্পাদক হান্নান আহম্মদ খান বাবলু।
বক্তারা বলেন, ভাষা আন্দোলন পরবর্তী জাতীয়তাবাদী ধারার যে আন্দোলনের সূচনা হয়েছিল তা ধীরে ধীরে আমাদের মহান স্বাধীনতা আন্দোলনের রূপ নেয়। ভাষা সৈনিক মতিন সারাজীবন অনিশ্চয়তা আর ঝুঁকি নিয়ে মেহনতি মানুষের মুক্তি সংগ্রামে তৎপর ছিলেন। তিনি ছাত্র জীবনে যেমন প্রশাসনের চাপ বা প্রলোভনের কাছে নতিস্বীকার করেননি তেমনি কর্মজীবনেও অন্যায়ের সাথে আপস করেননি। সুযোগ সুবিধার কাছে তিনি নিজেকে বিক্রি করেননি। সভাপতির ভাষনে এ্যাড. সুলতান আলম মল্লিক বলেন তার মতো নেতা হয়তো আর খুজে পাওয়া যাবে না। তিনি আমাদের ইতিহাসে অনুকরণীয় ব্যক্তিত্ব, তিনি যে সমাজ ব্যবস্থা কায়েমের জন্য লড়াই করে গেছেন তা আজও বাস্তবায়িত হয়নি। তাই আসুন আমরা ঐক্যবদ্ধভাবে ভাষাসৈনিক আব্দুল মতিনের অসমাপ্ত কাজ সমাপ্ত করার আন্দোলনে এগিয়ে যাই। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।

x