ভারতে সামাজিক ব্যবসার বাংলাদেশ মডেল অনুসরণের পরামর্শ ইউনূসের

দুদিনব্যাপী ক্ষুদ্রঋণ বিষয়ক সম্মেলন

বৃহস্পতিবার , ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ at ১১:০৩ পূর্বাহ্ণ
27

ভারত সরকারের সর্বোচ্চ থিংক ট্যাংক ‘ন্যাশনাল ইনস্টিটিউশন ফর ট্রান্সফরমিং ইন্ডিয়া -নীতি আয়োগের আমন্ত্রণে সেদেশে দুদিনের সম্মেলনে যোগ দেন প্রফেসর মুহাম্মদ ইউনূস। এসময় তিনি সংস্থাটির উপদেষ্টা, গবেষক ও ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের উদ্দেশ্যে সম্পদ কেন্দ্রীকরণ, বেকারত্ব ও পরিবেশ নিয়ে তার মতামত উপস্থাপন করেন এবং সেখানে সামাজিক ব্যবসায় বাংলাদেশ মডেল অনুসরণের পরামর্শ দেন। সংস্থাটির প্রধান ও নরেন্দ্র মোদির উপদেষ্টা অমিতাভ কান্তের নেতৃত্বে এসময় ৭০ জন শীর্ষ বিশেষজ্ঞ উপস্থিত ছিলেন।
ড. ইউনূস অর্থনীতির তাত্ত্বিক কাঠামো পুনর্বিন্যাসের মাধ্যমে কিভাবে ‘তিন শূন্য’ অর্থাৎ শূন্য দারিদ্র্য, শূন্য বেকারত্ব ও শূন্য নীট কার্বন নিঃস্বরণের পৃথিবী গড়ে তোলা যায় তা ব্যাখ্যা করেন এবং অর্থশাস্ত্রকে একটি সত্যিকার সামাজিক বিজ্ঞানে পরিণত করতে এই পুনর্বিন্যাস খুব জরুরি বলে উল্লেখ করেন। ‘নীতি আয়োগ’ পরিদর্শনের সময় প্রফেসর ইউনূস অটল ইনোভেশন মিশন (এআইএম) এর প্রধান নির্বাহী আর. রামাননের সাথে পৃথক বৈঠক করেন। এসময় তিনি অটল ইনোভেশন মিশনের তরুণ পেশাদার কর্মসূচির সদস্যদের উদ্দেশ্যে বক্তব্য রাখেন এবং তাদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন। রামানন এই সেশনে সভাপতিত্ব করেন।
এছাড়া ড. ইউনূস ভারতে ক্ষুদ্রঋণ প্রতিষ্ঠানগুলোর অ্যাসোসিয়েশন ‘সা-ধান’ এর প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে সম্মেলন উদ্বোধন করেন। এসময় তিনি বলেন, ক্ষুদ্রঋণ ভারতের গ্রামাঞ্চলে লক্ষ লক্ষ দরিদ্র নারীকে উদ্যোক্তায় পরিণত করেছে। এটা ভারতের গ্রামীণ অর্থনীতিকে শহরের অর্থনীতির জন্য শ্রম সরবরাহকারী ভূমিকা থেকে বেরিয়ে এনেছে এবং শহরের অর্থনীতির সাথে প্রতিযোগিতায় লিপ্ত হওয়ার মাধ্যমে গ্রাম থেকে শহরে তরুণদের অভিবাসনের গতি কমিয়েছে। তিনি আগামী পাঁচবছরে ভারতে ক্ষুদ্রঋণ প্রতিষ্ঠানগুলোর সদস্য সংখ্যা ২০ কোটি ছাড়িয়ে যাবে এবং ঋণের স্থিতি দ্বিগুণ হবে বলে আশা প্রকাশ করেন। এসময় প্রফেসর ইউনূস ক্ষুদ্রঋণের সাথে যুক্ত নেতৃস্থানীয় ব্যক্তিদেরকে আর্থিক খাতের বাইরে স্বাস্থ্যসেবা, পানীয় জল, আবাসন, কৃষি-প্রক্রিয়াজাতকরণ শিল্প, খুচরা বিক্রয়, বর্জ্য ব্যবস্থাপনা, হস্তশিল্প, গ্রিন এনার্জি ইত্যাদি খাতে সামাজিক ব্যবসার মাধ্যমে তাদের উদ্যোগ প্রসারিত করার আহ্বান জানান। তিনি বাংলাদেশে সামাজিক ব্যবসার মাধ্যমে এসব খাতের বিকাশের উদাহরণ তুলে ধরেন। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।

x