ভারতের বড় তিন ক্লাবই আসছে শেখ কামাল টুর্নামেন্টে।।। এবারের আসরটি হচ্ছে আরো জমজমাট

ক্রীড়া প্রতিবেদক

রবিবার , ১১ আগস্ট, ২০১৯ at ৯:০৫ পূর্বাহ্ণ
49

দেশের ফুটবলে বড় এক আলোড়ন সৃষ্টি করেছিল চট্টগ্রাম আবাহনী শেখ কামাল গোল্ডকাপ আন্তর্জাতিক ক্লাব কাপ ফুটবল টুর্নামেন্ট আয়োজন করে। দেশে জাতীয় নির্বাচনের কারণে গত বছর আয়োজিত হয়নি টুর্নামেন্টটি। তবে এবারে আরো জমকালোভাবে এই টুর্নামেন্ট আয়োজন করতে চাইছে আয়োজকরা। আগামী অক্টোবরের তৃতীয় সপ্তাহে শুরু হতে যাওয়া চট্টগ্রাম আবাহনী আয়োজিত শেখ কামাল আন্তর্জাতিক ক্লাব কাপে অংশ নেবে ভারতের ঐতিহ্যবাহী তিন দল মোহনবাগান, ইস্টবেঙ্গল ও মোহামেডান। গত শুক্রবার টুর্নামেন্টে খেলার সম্মতি দিয়েছিল মোহনবাগান। আর গতকাল শনিবার দুপুরে সম্মতি দিয়েছে কলকাতার সবচাইতে জনপ্রিয় দল মোহামেডান। আর গতকাল বিকেলে ইস্টবেঙ্গল কর্মকর্তাদের সঙ্গে আলোচনায় বসেছিল টুর্নামেন্টের অন্যতম উদ্যোক্তা সাইফ পাওয়ারটেকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক তরফদার মোহাম্মদ রুহুল আমিন।
দুপুরে মোহামেডানের সঙ্গে আলোচনার পর তরফদার মোহাম্মদ রুহুল আমিন জানান, আমরা কলকাতা মোহামেডানের সাধারণ সম্পাদক কামারউদ্দিনসহ অন্যান্য কর্মকর্তাদের সঙ্গে বসেছিলাম। তারা শেখ কামাল আন্তর্জাতিক ক্লাব কাপে খেলবে। বিকেলে আমরা ইস্টবেঙ্গল কর্মকর্তাদের সঙ্গে বসছি। আয়োজক চট্টগ্রাম আবাহনী থেকে বলা হয়েছিল ভারতের দুটি ক্লাব মোহনবাগান ও ইস্টবেঙ্গলকেই তারা পেতে চায়। মোহামেডান তাদের আলোচনায় ছিল না। তবে হঠাৎ করেই টুর্নামেন্টে অন্তর্ভূক্ত হলো ভারতের অন্যতম ঐতিহ্যবাহী ক্লাবটি। তরফদার মোহাম্মদ রুহুল আমিন বলেন, এই অঞ্চলের দল বেশি হলে টুর্নামেন্টের আকর্ষণ বাড়বে। তাছাড়া ভারতের ঐতিহ্যবাহী তিন ক্লাবের একসঙ্গে খেলাটাও বড় ব্যাপার। আমাদের বিশ্বাস তাতে টুর্নামেন্টে দর্শক বাড়বে।
বাংলাদেশের বসুন্ধরা কিংস, আবাহনী ও চট্টগ্রাম আবাহনীর সঙ্গে ভারতের মোহনবাগান, ইস্টবেঙ্গল ও মোহামেডান। ৮ দলের টুর্নামেন্টের ৬ দলই নিশ্চিত। এখন আর বাকি রইলো ২ টি দল। তিনি বলেন আমরা নেপাল, ভুটান ও থাইল্যান্ডের যে কোনো দুটি দেশ থেকে বাকি দুই দল নেবো। মোহনবাগান, ইস্টবেঙ্গল ও মোহামেডান তো আসবে। ক্লাবগুলো কি তাদের মূল দল পাঠাবে তেমন প্রশ্নের জবাবে তরফদার মোহাম্মদ রুহুল আমিন বলেন, সব ক্লাবই তাদের মূল দল পাঠাবে। এবার অংশগ্রহণকারী দলগুলো ফি হিসেবে পাবে ১০ হাজার মার্কিন ডলার করে। চ্যাম্পিয়ন দলকে দেয়া হবে ৫০ হাজার মার্কিন ডলার। রানার্সআপ দলের পুরস্কারের পরিমাণটা হতে পারে ৩০ হাজার মার্কিন ডলার। চট্টগ্রাম এমএ আজিজ স্টেডিয়ামে টুর্নামেন্টের সর্বশেষ আসর বসেছিল ২০১৭ সালের ১৮ ফেব্রুয়ারি থেকে ৩ মার্চ। প্রথম টুর্নামেন্ট হয়েছিল ২০১৫ সালের ২০ থেকে ৩০ অক্টোবর। বিদেশি ক্লাবগুলো পাওয়া নিয়ে জটিলতার কারণে টুর্নামেন্টের সময় নির্দিষ্ট রাখতে পারেনি চট্টগ্রাম আবাহনী। শেখ কামাল আন্তর্জাতিক ক্লাব কাপ চট্টগ্রাম আবাহনীর জন্যই স্মরণীয় এক আয়োজন। ২০১৫ সালে অনুষ্ঠিত প্রথম আসরে তারাই হয়েছিল চ্যাম্পিয়ন।
ফাইনালে চট্টগ্রাম আবাহনী হারিয়েছিল ভারতের ইস্টবেঙ্গল ক্লাবকে। দ্বিতীয় আসরের ফাইনালে উঠতে পারেনি স্বাগতিকরা। সেমিফাইনালে দক্ষিণ কোরিয়ার দল এফসি পচেয়নের কাছে ২-১ গোলে হেরে বিদায় নেয় চট্টগ্রামের আকাশি-হলুদ জার্সিধারীরা। দ্বিতীয় আসরের ট্রফি নিয়ে যায় মালদ্বীপের টিসি স্পোর্টস।

১২০ মিনিটের ফাইনালে তারা ৪-২ গোলে হারায় দক্ষিণ কোরিয়ার এএফসি পচেয়নকে।

x