ভারতের বিশ্বকাপের দল ঘোষণা

মঙ্গলবার , ১৬ এপ্রিল, ২০১৯ at ১০:১৯ পূর্বাহ্ণ
31

বেশ কিছুদিন আগে থেকেই আলোচনায় ভারতের তরুণ উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান রিশাভ পান্ত । এবারের আইপিএলেও দারুণ পারফরম্যান্স দেখিয়ে যাচ্ছেন। তার আগে অস্ট্রেলিয়ার ভারত সফরের সময় ধোনিকে বিশ্রাম দিয়ে খেলানো হয়েছিল রিশাভ পান্তকে। তখন থেকেই মূলত আলোচনায় দিল্লি ক্যাপিটালসের এই ব্যাটসম্যান। এমনকি ভারতের কোনো কোনো ক্রিকেট বোদ্ধা তো বলেই দিয়েছেন, মহেন্দ্র সিং ধোনিকে পুরোপুরি বাদ দিয়ে রিশাভ পান্তকেই আগামী দিনের জন্য গড়ে ওঠার সুযোগ করে দিতে। অর্থ্যাৎ ভারতীয় দলে মূল উইকেরক্ষক হিসেবে দায়িত্ব দিতে। বিশ্বকাপের দল ঘোষণার জন্য ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড যখন ১৫ এপ্রিল নির্ধারিত তারিখ জানিয়ে দিয়েছিল, তখন নতুন করে আলোচনার কেন্দ্রে চলে আসেন রিশাভ পান্ত। কারণ, জানাই ছিল মহেন্দ্র সিং ধোনি দলে থাকবেন। এটা নিশ্চিত। ধোনি হচ্ছেন, এবারের বিশ্বকাপে ভারতের সবচেয়ে বড় ট্রাম্পকার্ড। এমনকি অনেকে বলে থাকেন, কোহলি অধিনায়ক হলেও ধোনিই মূলত ভারতীয় দলটির মূল চালিকা শক্তি। তিনিই অনেক সময় হয়ে থাকেন ছায়া অধিনায়ক।
আলোচনার মূল বিষয়বস্তু ছিল ধোনির ব্যাকআপ উইকেটরক্ষক হিসেবে কে সুযোগ পাচ্ছেন? রিশাভ পান্ত নাকি দিনেশ কার্তিক? অভিজ্ঞতা বিবেচনায় আনলে নিদেশ কার্তিকের বিকল্প নেই। কিন্তু ভবিষ্যৎ এবং বর্তমান সময়ের কথা চিন্তা করলে তরুণ রিশাভ পান্তের পাল্লাই ছিল বেশি ভারি। এমনকি সাবেক ক্রিকেটার থেকে শুরু করে ভারতের ক্রিকেট বোদ্ধারা পর্যন্ত পান্তকেই ধোনির ব্যাকআপ হিসেবে দাঁড় করিয়ে দিয়েছিলেন। কিন্তু ভারতের বিশ্বকাপ দলে এই একটাই চমক উপহার দিলেন এমএসকে প্রাসাদ নেতৃত্বাধীন নির্বাচকমন্ডলি। আলোচিত রিশাভ পান্তকে বাদ দিয়ে নির্বাচকরা বিশ্বকাপের দলে সুযোগ দিলেন অভিজ্ঞ দিনেশ কার্তিককেই। নিশ্চিতভাবেই বিরাট কোহলিরা অভিজ্ঞতাকেই বেশি মূল্যায়ন করেছেন এখানে।
রিশাভ পান্তের সামনে এখনও বিশাল সময় পড়ে আছে। আগামী দুই বছর টানা দুটি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ, পরের বছর আবার ওয়ানডে বিশ্বকাপ- এগুলোর জন্য পান্তের সামনে বিশাল সময় পড়ে আছে। এখন অভিজ্ঞতা দিয়েই মূলত ভারত চায় বিশ্বকাপের বৈতরণী পার হতে। আরেকটি চমক দেখিয়েছে তারা চার নম্বরে তরুণ বিজয় শঙ্করকে সুযোগ দিয়ে। অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে সিরিজে দারুণ পারফরম্যান্স দেখিয়েছেন তিনি। ব্যাট এবং বল হাতে ভারতের দুর্দান্ত এক অলরাউন্ডার হিসেবে গড়ে উঠছেন বিজয় শঙ্কর। একই সঙ্গে পেসার উমেষ যাদব কিংবা ব্যাটসম্যান আম্বাতি রাইডুকে বাদ দিয়ে স্পিন অলরাউন্ডার হিসেবে রবীন্দ্র জাদেজাকেই সুযোগ করে দিয়েছে বিসিসিআই।
আরেকটি জায়গা নিয়ে ছিল অনেক আলোচনা। সেটি হচ্ছে দুই ওপেনার রোহিত শর্মা এবং শিখর ধাওয়ানের সঙ্গে তৃতীয় ওপেনার হিসেবে কে থাকবেন? আইপিএলের পারফরম্যান্স দিয়ে এই জায়গাটি দখল করে নিলেন লোকেশ রাহুল। রোহিত কিংবা শিখরের কোনো সমস্যা হলে লোকেশ রাহুল ওপেন করতে পারবেন। চাইলে তিন নম্বরেও নামতে পারবেন তিনি। যদিও চার নম্বর নিয়ে বেশ আলোচনা ভারতীয় দলে। এই জায়গায় কে ব্যাট করবেন? বিজয় শঙ্করকে দলে নিয়ে আপাতত সে আলোচনার সমাধান ঘটিয়েছে ভারতীয় নির্বাচকরা। চাইলে মহেন্দ্র সিং ধোনিও চারে ব্যাট করতে পারেন। চার পেসার এবং তিনজন স্পিন স্পেশালিস্ট রয়েছেন ভারতীয় দলে। মোহাম্মদ শামি, ভুবনেশ্বর কুমার, জসপ্রিত বুমরাহ এবং হার্দিক পান্ডিয়া রয়েছেন পেসার হিসেবে। এর মধ্যে পান্ডিয়া আবার এই মুহূর্তে ভারতের এক নম্বর অলরাউন্ডার। তিন স্পিনার হচ্ছেন ইয়ুজবেন্দ্র চাহাল, কুলদীপ যাদব, রবীন্দ্র জাদেজা। অকেশনাল স্পিনার হিসেবে ভালো দায়িত্ব পালন করতে পারেন কেদার যাদবও। হার্দিক পান্ডিয়ার মত পেস অলরাউন্ডার হিসেবে দায়িত্ব পালন করতে পারেন বিজয় শঙ্করও।

x