ভারতের বিপক্ষে দলকে সাবধান করলেন সরফরাজ

স্পোর্টস ডেস্ক

শুক্রবার , ১৪ জুন, ২০১৯ at ৫:২৬ পূর্বাহ্ণ
21

বিশ্বকাপে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ভারতের বিপক্ষে ম্যাচ জিততে ফিল্ডিংয়ে উন্নতির বিকল্প দেখছেন না পাকিস্তানের অধিনায়ক সরফরাজ আহমেদ। ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে আগামী রোববার বাংলাদেশ সময় বেলা সাড়ে তিনটায় মুখোমুখি হবে ভারত ও পাকিস্তান। বুধবার টনটনে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ৪১ রানে হারা ম্যাচে বাজে ফিল্ডিংয় করেছে পাকিস্তান। একাধিক ক্যাচ ফেলার পাশাপাশি ওভার থ্রোতে দিয়েছে একাধিক রান। ২৬ ও ৪৪ রানে দুবার জীবন পাওয়া অস্ট্রেলিয়ান অধিনায়ক অ্যারন ফিঞ্চ ডেভিড ওয়ার্নারের সঙ্গে ১৪৬ রানের উদ্বোধনী জুটিতে বড় সংগ্রহের ভিত গড়ে দেন। ম্যাচের পর সংবাদ সম্মেলনে নিজেদের ফিল্ডিংয়ের ব্যর্থতা নিয়ে কথা বলেন সরফরাজ। যখন দুটি ভালো দল পরস্পরের বিপক্ষে খেলে, ফিল্ডিং একটা পার্থক্য গড়ে দিতে পারে। আর আমরা ফিল্ডিংয়ে ভুলের কারণে বেশ কিছু রান হজম করলাম। বড় দলগুলোকে হারাতে চাইলে এমন ভুল করা যাবে না। আমাদের ফিল্ডিং কাঙ্ক্ষিত মানের চেয়ে খারাপ। আর আমরা ভারতের বিপক্ষে ম্যাচের আগে এ নিয়ে কঠোর পরিশ্রম করব। ভারত একটা শক্তিশালী দল তাই আপনি একই ভুলগুলো করতে থাকলে ম্যাচটি জয়ের সুযোগ পাবেন না। আগের ম্যাচে অস্ট্রেলিয়ার কাছে হারের কারন হিসেবে দুর্বল ফিল্ডিংকেই দায়ী করছেন পাকিস্তান দলপতি সরফরাজ আহমেদ। প্রথমে ব্যাট করতে নেমে অস্ট্রেলিয়া করেছিল ৩০৭ রান। জবাবে ব্যাট করতে নেমে ২৬৬ রানে গুটিয়ে গেলে ৪১ রানে পরাজিত হয় পাকিস্তান। ম্যাচ শেষে তাই সরফরাজ বলেন প্রতিটি বিভাগেই আমরা অনেক বেশি ভুল করেছি। দলের ফিল্ডিং নিয়ে আমি খুবই হতাশ। এটা প্রত্যাশিত বা মানসম্মত নয়। ভারতের বিপক্ষে ম্যাচের আগে এ ক্ষেত্রে উন্নতি ঘটাতে আমাদের কঠোর পরিশ্রম করতে হবে। তাতে কোন অযুহাত দেয়া যাবেনা। ইয়োইন মরগানের দলের খারাপ ফিল্ডিংয়ের কারণে গত সপ্তাহে পাকিস্তান অপ্যত্যাশিতভাবে টুর্নামেন্ট ফেবারিট ইংল্যান্ডের বিপক্ষে জয় পেয়েছে। কিন্তু অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ঘটেছে বিপরীত, ক্যাচ ফেলা, মিস ফিল্ডিং এবং ওভার থ্রো পাকিস্তানের পরাজয়ে বড় পার্থক্য গড়ে দিয়েছে।
ওপেনার ফিঞ্চ ৩৩ রানে থাকতে একবার তার ক্যাচ মিস করেছে আসিফ আলী। এরপর জীবন পেয়ে ফিঞ্চ আরো ৪৯ রান করেন। যে কারণে ওয়ার্নারের সঙ্গে তার বড় জুটি গড়া সম্ভব হয়। এরপর ওয়ার্নারের ক্যাচও একবার মিস করেন আসিফ। তবে ভারতের বিপক্ষে লড়াইয়ের আগে এ ম্যাচে পাকিস্তানের কিছু ইতিবাচক দিকও আছে। পেসার মোহাম্মদ আমির ফর্মে ফিরেছেন। গতি ও সুইং দিয়ে ক্যারিয়ার সেরা ৩০ রানে ৫ উইকেট শিকার করেছেন আমির। তার এমন সাফল্যে অস্ট্রেলিয়া তাদের শেষ সাত উইকেট হারিয়েছে মাত্র ৮৬ রানে। টুর্নামেন্টের প্রাথমিক দলে না থাকলেও শেষ পর্যন্ত সুযোগ পেয়ে এ ম্যাচে পাঁচ ব্যাটসম্যানকে আউট করে এখন পর্যন্ত টুর্নামেন্টের সর্বোচ্চ উইকেট শিকারী আমিরের ভুয়সী প্রশংসা করেন সরফরাজ। আপনি এ ম্যাচ থেকে ইতিবাচক কিছু দেখলে সেটা হচ্ছে আমিরের বোলিং। সামনের ম্যাচগুলোতে এটাকেই আমাদের বড় করে দেখতে হবে। সে একজন বিশ্ব মানের বোলার। তার সুইং মোকাবেলা করাটা খুবই কঠিন। ওয়াহাব রিয়াজ ও সরফরাজ অষ্টম জুটিতে বিশ্বকাপে পাকিস্তানের সর্বোচ্চ রানের রেকর্ড গড়েছেন। রিয়াজ বলেন, আমি খুবই হতাশ। মাত্র ১৫ রানে আমরা তিন উইকেট হারিয়েছি এবং এ কারণেই আমাদের হারতে হয়েছে। প্রথম ২০ ওভারে আমরা অনেক বেশি রান দিয়েছি। তারপর আমরা ফিরে এসেছি এবং তাদেরকে ভালভাবে আটকাতে পেরেছি। তবে এটা ২৭০-২৮০ রানের পিচ। আমরা কিছু রান করেছি। তবে সেগুলোকে আমাদের আরো বড় করতে হতো। ম্যাচ জিততে চাইলে আপনার শীর্ষ চার ব্যাটসম্যানকে অবশ্যই ভাল রান পেতে হবে।

x