বৌদ্ধ সংস্কৃতি-সভ্যতার বিকাশ প্রাচীন ইতিহাসের গৌরবময় অধ্যায়

অমিতাভের ডিসকাশন প্রোগ্রাম

বুধবার , ৭ আগস্ট, ২০১৯ at ১০:০৩ পূর্বাহ্ণ
8

বিশ্বসভ্যতার ইতিহাসে এশিয়ার বৌদ্ধ সভ্যতা আজো এক বিশেষ সমৃদ্ধ স্থান দখল করে রয়েছে। সমগ্র এশিয়ায় বৌদ্ধ সভ্যতার বিপুল নির্দশন প্রমাণ করে সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য কতটুকু সমৃদ্ধ। অপরদিকে খ্রিস্টপূর্ব সময় থেকে দ্বাদশ শতাব্দী পর্যন্ত বৌদ্ধ সংস্কৃতি-সভ্যতার বিকাশ ছিল বাংলাদেশের প্রাচীন ইতিহাসের গৌরবময় অধ্যায়। বাঙালি জাতীয়তাবাদ গঠনে এবং এর আধ্যাত্মিক বিকাশে অবদান রেখেছিল এ বৌদ্ধ সভ্যতা। আর তাই প্রাচীন বাংলাকে জানার জন্য বৌদ্ধ সমাজ, সংস্কৃতি ও ইতিহাসের উপর নির্ভর করতে হবে। সমাজ সাহিত্য সংস্কৃতি বিষয়ক পত্রিকা ‘অমিতাভ’ এর আয়োজনে গত ৪ আগস্ট নগরের নন্দনকাননস্থ ফুলকি মিলনায়তনে ‘সোসিও-ইকনমিক অ্যান্ড কালচারাল চ্যালেঞ্জেস ফেসিং বুড্ডিস্ট কম্যুনিটিজ ইন এশিয়া’ বিষয়ের উপর ডিসকাশন প্রোগ্রামে আলোচকরা এসব কথা বলেন। ডিসকাশনের মূল প্রবন্ধ উপস্থাপক ছিলেন আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম ব্যক্তিত্ব ড. কালিংগা সেনেভিরাতনে। ইউএসটিসির সাবেক উপাচার্য প্রফেসর ডা. প্রভাত চন্দ্র বড়ুয়ার সভাপতিত্বে ডিসকাশন প্রোগ্রামে প্রধান অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ টেলিভিশন চট্টগ্রাম কেন্দ্রের মহাব্যবস্থাপক নিতাই কুমার ভট্টাচার্য।
অমিতাভ সম্পাদক ও প্রকাশক শ্যামল চৌধুরীর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে উদ্বোধনী বক্তব্য দেন, চবি পদার্থবিদ্যা বিভাগের সাবেক বিভাগীয় প্রধান প্রফেসর ড. বিকিরণ প্রসাদ বড়ুয়া। বিশেষ অতিথি ছিলেন চবি যোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের প্রফেসর ড. মোহাম্মদ শহীদ উল্লাহ, বাংলাদেশ বুড্ডিস্ট ফাউন্ডেশনের সভাপতি সিদ্ধার্থ বড়ুয়া এফসিএ ও বাংলাদেশ সংবাদ সংস্থা (বাসস)’র চট্টগ্রাম ব্যুরো প্রধান সমীর কান্তি বড়ুয়া। প্রবন্ধ উপস্থাপকের জীবনী পাঠ করেন হৈমন্তী বড়ুয়া। শেষে উপস্থিত বিভিন্ন পর্যায়ের ব্যক্তিবর্গের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন প্রবন্ধ উপস্থাপক ড. কালিংগা সেনেভিরাতনে। আলোচনায় বক্তারা আরো বলেন, বৌদ্ধ সম্প্রদায় স্বাধীনতা সংগ্রাম এবং বিভিন্ন সামাজিক সাংস্কৃতিক আন্দোলনের সঙ্গে সক্রিয়ভাবে সম্পৃক্ত ছিল অথচ বিভিন্ন সামরিক শাসকের আমলে ন্যায্য অধিকার থেকে বঞ্চিত ছিল এ সম্প্রদায়। কিন্তু বর্তমান সরকারের সময়ে বৌদ্ধরা জাতীয় পর্যায়ে বিভিন্ন ক্ষেত্রে জায়গায় দক্ষতা ও নিষ্ঠার স্বাক্ষর রেখে চলেছে। অনুষ্ঠানের ২য় পর্বে সাংস্কৃতিক পর্বে ছিল অমিতাভ কালচারাল সোসাইটির শিল্পীদের পরিবেশনায় বর্ষার গান নিয়ে ‘আজ শ্রাবণের আমন্ত্রণে’ শিরোনামে সংগীতানুষ্ঠান। উদ্বোধন করেন বাংলাদেশ টেলিভিশন চট্টগ্রাম কেন্দ্রের মহাব্যবস্থাপক নিতাই কুমার ভট্টাচার্য। শুভেচ্ছা দেন, বাংলাদেশ বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী উজ্জ্বল বড়ুয়া, বাংলাদেশ বৌদ্ধ যুব পরিষদ চট্টগ্রামের সাধারণ সম্পাদক সজীব বড়ুয়া ডায়মন্ড ও অমিতাভ সম্পাদক শ্যামল চৌধুরী। স্বপ্নীল বড়ুয়া ডানার সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে সংগীত পরিবেশন করেন বিপুল বড়ুয়া, সুমন বড়ুয়া, চন্দন বড়ুয়া, সুরঞ্জন মুৎসুদ্দী, পাপড়ি মুৎসুদ্দী, প্রিয়তি বড়ুয়া, সমাপ্তি বড়ুয়া, প্রত্যুষা বড়ুয়া, স্নিগ্ধনীল বড়ুয়া, সেঁজুতি বড়ুয়া, তিতলী বড়ুয়া, সপ্তর্ষি বড়ুয়া, নিকিলেষ বড়ুয়া ও বিজয় তালুকদার। অনুষ্ঠানের সার্বিক তত্ত্বাবধানে ছিলেন শ্যামল চৌধুরী ও সংগীত পরিচালনায় ছিলেন সুমন বড়ুয়া। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।

x