বেসরকারি চিকিৎসাসেবা বন্ধে চমেকের সরকারি মেইল ব্যবহারে তদন্ত কমিটি

আজাদী প্রতিবেদন

বুধবার , ১১ জুলাই, ২০১৮ at ৬:৫৬ পূর্বাহ্ণ
142

চমেকএর (চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ) সরকারি ইমেইল থেকে বেসরকারি হাসপাতাল মালিকদের নামে চিকিৎসাসেবা বন্ধের ঘোষণা সংক্রান্ত প্রেস বিজ্ঞপ্তি বিভিন্ন গণমাধ্যমে পাঠানোর ঘটনায় তিন সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছে চমেক কর্তৃপক্ষ। কমিটিকে আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে তদন্ত রিপোর্ট জমা দিতে বলা হয়েছে। গতকাল এ তদন্ত কমিটি গঠন করে চমেক কর্তৃপক্ষ।

মেডিসিন বিভাগের অধ্যাপক ডা. অশোক দত্তকে প্রধান করে তিন সদস্য বিশিষ্ট এই কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটির অন্য দুই সদস্য হলেন, নিউরোলজি বিভাগের প্রধান ডা. মোহাম্মদ হাসানুজ্জামান এবং বায়োকেমিস্ট্রি বিভাগের প্রফেসর ডা. মাহমুদুল হক। এর আগে গত ৮ জুলাই রোববার সকাল থেকে নগরীর বেসরকারি হাসপাতালগুলোতে র‌্যাবের নেতৃত্বে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন। ওইদিন বেলা ৩টা নাগাদ এর প্রতিবাদে হঠাৎ নগরীসহ জেলার বিভিন্ন বেসরকারি স্বাস্থ্য সেবা প্রতিষ্ঠানগুলোতে ধর্মঘট ঘোষণা করা হয়। এর পাশাপাশি একই দিন বিকেলে চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজের সরকারি ইমেইল (cmc@ac.dghs.gov.bd) থেকে বিভিন্ন গণমাধ্যমে চিকিৎসাসেবা বন্ধের ঘোষণা দেওয়া হয়েছিল।

এ ব্যাপারে চমেক অধ্যক্ষ অধ্যক্ষ প্রফেসর ড. সেলিম মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর গতকাল আজাদীকে বলেন, ওই ঘটনাটির ব্যাপারে দায়িত্ব দেয়া হয়েছিল কলেজের ভাইস প্রিন্সিপাল ড. প্রদীপ দত্তকে। তিনি ঘটনাটি তদন্তের জন্য তিন সদস্য বিশিষ্ট একটি কমিটি গঠন করে দিয়েছেন। কমিটি আগামী সাত দিনের মধ্যে তাদের রিপোর্ট জমা দিবেন। বেসরকারি চিকিৎসা সমিতির কাজে চমেকের সরকারি ইমেইল ব্যবহারের বিষয়টি অত্যন্ত দুঃখজনক বলে মন্তব্য করে কলেজ কর্তৃপক্ষ।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, কলেজটিতে তথ্য আদানপ্রদানের জন্য cmc@ac.dghs.gov.bd ও info@cmc.edu.bd নামে দুটো মেইল ঠিকানা ব্যবহার করা হয়।

এগুলো পরিচালনার দায়িত্ব সাধারণত থাকে কলেজটির আইটি ডিভিশনের কম্পিউটার অপারেটর রাশেদ হাসানের কাছে। রাশেদের অনুপস্থিতিতে অপারেট করেন মোহাম্মদ ইউসুফ। গত ৮ জুলাই ঘটনার দিন রাশেদ পরীক্ষা নিয়ে ব্যস্ত ছিলেন। এ সময় মেইল অপারেটের দায়িত্বে ছিলেন মোহাম্মদ ইউসুফ।

সূত্র জানিয়েছে, এ ঘটনার জন্য ইউসুফ কলেজ কর্তৃপক্ষের কাছে দোষ স্বীকার করে ক্ষমা প্রার্থনা করেছেন। কর্তৃপক্ষ তাকে শোকজ করাসহ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিচ্ছে। ইউসুফ কলেজ কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছে. ওইদিন অফিসিয়াল মেইল খোলা থাকায় অসাবধানতাবশত সেখান থেকেই মেইলটি পাঠানো হয়েছিল। সে ঊর্র্ধ্বতনের নির্দেশে মেইলটি বিভিন্ন গণমাধ্যমে পাঠিয়েছেন বলে নিশ্চিত হওয়া গেলেও ঊর্ধ্বতনের পরিচয়ের ব্যাপারে কিছু জানায়নি সূত্রটি।

x