বিবেক মূল্যবোধকে জাগ্রত করার প্রয়াস শিক্ষা প্রতিষ্ঠানই হতে পারে

শুক্রবার , ১০ মে, ২০১৯ at ৬:২৮ পূর্বাহ্ণ
16

যেকোন মানবিক কর্মসূচি শিক্ষা প্রদান শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। আমাদের কোমলমতি শিশু শিক্ষার্থীরা বস্ত্র, বই খাতা, ঔষুধ ইত্যাদি বিতরণের মধ্যে দিয়ে মানবিক ও উদার হতে শিখে। সমাজে বসবাসরত অসহায় দরিদ্র মানুষেরা যে কতটা কষ্ট করে তা নিজ চোখে না দেখলে অনেকে বুঝতে পারেনা! তাই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের উদ্যোগে শিক্ষার্থীরা খাদ্য, বস্ত্র, শিক্ষা সামগ্রী প্রয়োজনীয় যেকোন কিছু বিতরণের মধ্যে দিয়ে অসহায় মানুষদের কষ্ট দেখার সুযোগ পেতে পারে। কারণ ডিজিটাল যুগের শিক্ষার্থীরা ইন্টারনেট নিয়ে অনেক ব্যস্ত থাকে। যার ফলে মানুষদের অভাব দুঃখ কষ্ট, মানবতা কি, খুব একটা অনুভব করতে পারে না, বুঝার সুযোগ হয়না। সুতরাং শিক্ষার্থীদের এই মানবতাবোধ জাগিয়ে তুলতে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ভূমিকা অপরিসীম। শীতকালীন সময় চট্টগ্রাম ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক কলেজের শিক্ষার্থীবৃন্দ, শিক্ষকবৃন্দ চট্টগ্রাম মহানগরীর বিভিন্ন স্থানে শীতবস্ত্র বিতরণ করেন। আমার অনেক ভালো লেগেছে দেখে শত শত কম্বল, রাত ৮ টায় ক্যাম্পাস থেকে গাড়ি নিয়ে স্কুল ড্রেস পরিহিত শিক্ষার্থীরা ছুটে যায়! শীতবস্ত্রহীনদের হাতে হাতে কম্বল তুলে দেয়। চট্টগ্রাম নগরীর চকবাজার, কোতোয়ালি, স্টেশন সড়ক, দামপাড়া, বায়েজীদ অলিতে গলিতে ফুটপাতে এবং চলন্ত গাড়ি থেকেও বৃদ্ধ রিকশা চালকদেরও কম্বল বিতরণ করা হয়। আমি ক্যামেরা ক্লিক করছি! শীত রাতে শিক্ষার্থীদের এই বিতরণ কর্মসূচি তাদের জন্য যেমন আনন্দদায়ক ছিল, তেমনি ছিল শিক্ষণীয়। শিক্ষার্থীরা নিজ চোখে দেখেছে অসহায় মানুষের কষ্ট! প্রত্যেক মানুষই আলাদা, বিবেক এবং মূল্যবোধও ভিন্ন। আর এই বিবেক মূল্যবোধকে জাগ্রত করার প্রয়াস শিক্ষা প্রতিষ্ঠানই হতে পারে।—-
মুনিয়া মুন, কাউন্সিলর- ব্র্যাক, কক্সবাজার।

x