বিআরটিএতে ৫ দালালকে কারাদণ্ড, কাউন্সিলরের দুই দোকান সিলগালা

আজাদী প্রতিবেদন

বৃহস্পতিবার , ১২ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ at ৫:২৯ পূর্বাহ্ণ
162

বিআরটিএ অভ্যন্তরে অনুমোদনহীন দোকান পরিচালনা করায় ওয়ার্ড কাউন্সিলর তৌফিক আহমেদ চৌধুরীর দুইটি দোকান সিলগালা করে দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। পাশাপাশি দোকানগুলোর তিন কর্মচারিসহ ৫ দালালকে বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে। র‌্যাব ও পুলিশের সহযোগিতায় গতকাল বুধবার সকাল ১১টা থেকে বিকেল তিনটা পর্যন্ত এ অভিযান পরিচালনা করেন বিআরটিএ’র নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এস এম মনজুরুল হক।
দণ্ডপ্রাপ্তরা হলো হাটহাজারী থানার খন্দকিয়া গ্রামের মৃত মো. ইসহাকের ছেলে মো. আরমান (২২), সরোয়ারের ছেলে মো. ইমরান (২১), ইউনুচনগর এলাকার মৃত বাবুল বিশ্বাসের ছেলে সাজু বিশ্বাস (২৯), ফতেয়াবাদ গ্রামের মৃত আবদুল মালেকের ছেলে জাহেদুল ইসলাম রনি (৩২) এবং একই এলাকার মো. জানে আলমের ছেলে মো. বেলাল হোসেন (২২)।
বিআরটিএ সূত্রে জানা গেছে, নগরীর বালুছড়া নতুন বাজার এলাকায় বিআরটিএ কার্যালয় প্রাঙ্গণে অবস্থিত খাবারের ক্যান্টিন, ফটোকপির দোকান ও অগ্নিনির্বাপক যন্ত্রের দোকানের আড়ালে এসব দোকানের কর্মচারীরা দালালির কাজের সাথে জড়িয়ে পড়ে। বিশেষ করে ফটোকপির দোকান পরিচালনার আড়ালে দোকানের সকল কর্মচারীই লাইসেন্স করে দেবে বলে বিআরটিএতে আসা মানুষদের ফাঁদে ফেলে তাদের কাছ থেকে মোটা অংকের টাকা হাতিয়ে নিতো। এসব অভিযোগের প্রেক্ষিতে বুধবার ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এস এম মনজুরুল হক। দোকানগুলোর তিন কর্মচারি ও বহিরাগত দুই দালালকে আটক করেন অভিযানে অংশ নেওয়া আইন শৃংখলা বাহিনীর সদস্যরা।
নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এস এম মনজুরুল হক বলেন, বিআরটিএ প্রাঙ্গণে অবস্থিত ফটোকপি ও অগ্নিনির্বাপক যন্ত্রের দোকান দুটি ছিল কর্তৃপক্ষের অনুমোদনবিহীন। স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলর তৌফিক আহমদ চৌধুরী অবৈধ প্রভাব খাটিয়ে কর্তৃপক্ষের অনুমোদন না নিয়েই দোকান দুটি পরিচালনা করতেন। তাছাড়া দোকানের কর্মচারিরা দালালির সাথে জড়িত ছিল। বুধবার পরিচালিত অভিযানে দালালির অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় ফটোকপি দোকানের কর্মচারী মো. আরমানকে ১ মাস, সাজু বিশ্বাস ও মো. ইমরানকে ১৫ দিন করে বিনাশ্রম কারাদণ্ড প্রদান করা হয়েছে। একইসাথে বিআরটিএ প্রাঙ্গনে অবৈধভাবে পরিচালিত এবং দালালির কাজে ব্যবহৃত দোকান দুটি সিলগালা করে দেয়া হয়েছে। তাছাড়া অভিযানের সময় বিআরটিএ প্রাঙ্গণ থেকে আটক হওয়া দালাল জাহেদুল ইসলাম রনিকে ১ মাস এবং মো. বেলাল হোসেনকে ১৫ দিনের বিনাশ্রম কারাদণ্ড প্রদান করা হয়েছে।
তিনি বলেন, বিআরটিএতে লোকজন সেবা নিতে এসে দালালদের খপ্পরে পড়ে ক্ষতিগ্রস্ত হয়। অনেকদিন ধরে এ ধরণের অভিযোগ পাচ্ছিলাম। বুধবার অভিযান চালিয়েছি। বিআরটিএ সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠান। এখানে দালালের কোন স্থান নেই।
এ বিষয়ে কথা বলতে স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলর তৌফিক আহমদ চৌধুরীর মুঠোফোনে একাধিকবার ফোন করা হলেও তিনি রিসিভ করেননি। পরে খুদে বার্তা পাঠিয়েও কোন প্রত্যুত্তর পাওয়া যায়নি।

x