বাংলাদেশ যুক্তরাষ্ট্রের ভালো ব্যবসায়িক অংশীদার

আইবিএফবির বার্ষিক সাধারণ সভায় মার্কিন রাষ্ট্রদূত

বৃহস্পতিবার , ১২ জুলাই, ২০১৮ at ১১:১৩ পূর্বাহ্ণ
66

বাংলাদেশ যুক্তরাষ্ট্রের ভালো ব্যবসায়িক অংশীদার এবং বাংলাদেশের বড় বৈদেশিক বিনিয়োগকারী। বাংলাদেশের বিভিন্ন খাতে বিশেষ করে শুল্ক ও কর খাতে উন্নয়নের লক্ষ্যে ইউএসএআইডি জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের সাথে কাজ করে যাচ্ছে। ঢাকার ব্রাক সেন্টারে অনুষ্ঠিত আইবিএফবির বার্ষিক সাধারণ সভায় মার্কিন রাষ্ট্রদূত মার্শা স্টিফেনস ব্লুম বার্নিকাট একথা উল্লেখ করেন। গতকাল বুধবার ইন্টারন্যাশনাল বিজনেস ফোরাম অব বাংলাদেশ (আইবিএফবি)-এর ১৩ তম বার্ষিক সাধারণ সভায় বাংলাদেশে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত মার্শা স্টিফেনস ব্লুম বার্নিকাট বিভিন্ন ক্ষেত্রে উন্নয়নে বাংলাদেশের প্রশংসা করেন। তিনি উল্লেখ করেন বাংলাদেশের রপ্তানির প্রধান বাজার যুক্তরাষ্ট্র এবং বাংলাদেশে একক বিদেশি বিনিয়োগ মার্কিন কোম্পানির। তিনি আরও বলেন, মার্কিন কোম্পানি এদেশে বিনিয়োগ করেছে এবং একই সাথে তারা প্রযুক্তিও হস্তান্তর করছে। ইউএসএআইডি বাংলাদেশের কর ও শুল্ক খাতে উন্নয়নের লক্ষ্যে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের সাথে কাজ করে যাচ্ছে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র বাংলাদেশে উন্নত ব্যাবসায়িক পরিবেশ আশা করে এবং সেই লক্ষ্যে সহযোগিতা করে যাচ্ছে। আমরা ব্যবসায়ীদের এখানে আনার ব্যবস্থা করেছি। এখন তাদের ধরে রাখার দায়িত্ব বাংলাদেশের। আমি ব্যবসায়ী কমিউনিটিকে এক সঙ্গে কাজ করার আহ্বান জানাই। যখন বিদেশি বিনিয়োগকারীর সঙ্গে ডিল হবে তখন যেন সবার জন্য সমান লেবেল প্লেইং ব্যবস্থা থাকে। আইবিএফবির সুশাসন বা দুর্নীতি বিরোধী প্রচারণা/ কর্মকাণ্ডের ক্ষেত্রে তাদের সমর্থন থাকবে বলেও তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন। বিশেষ অতিথির বক্তব্যে আইসিবি চেয়ারম্যান ড. মুজিব উদ্দিন আহমেদ বলেন, বাংলাদেশিদের বিদেশে বিনিয়োগের ক্ষেত্রে অর্জিত আয়ের অংশ দেশে আনা এবং বিদেশি বিনিয়োগকারীদের তাদের আয়ের অংশ তাদের দেশে নেয়ার বিষয় সঠিক মনিটরিং করা দরকার। বিশেষ অতিথির বক্তব্যে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইন্টারন্যাশনাল বিজনেস বিভাগের অধ্যাপক ড. খন্দকার বজলুল হক বলেন, বাংলাদেশ সামাজিক উন্নয়নের বিভিন্ন ক্ষেত্রে ব্যাপক উন্নয়ন করেছে। বাংলাদেশ এখন পারমাণবিক ক্লাবের ও স্যাটেলাইট ক্লাবের সদস্য, যা সম্ভব হয়েছে অনুকূল আর্থিক পলিসির কারণে। আইবিএফবির প্রেসিডেন্ট বলেন, আইবিএফবি ব্যবসায়িক পরিবেশ উন্নয়নের লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছে এবং সরকার কিছু সুপারিশ গ্রহণ করেছে। গত কয়েক বছরে ওয়ান স্টপ সার্ভিস অ্যাক্ট, জাহাজ নির্মাণ, লাইট ইঞ্জিনিয়ারিং, বেসরকারি খাত উন্নয়নে বিভিন্ন ধরনের কার্যক্রম, বিদেশি বিনিয়োগসহ বিভিন্ন খাত উন্নয়নে নানান দিক নিয়ে কাজ করছে। তিনি বাংলাদেশে উপযুক্ত সংখ্যক আমেরিকান বিজনেস কর্নার প্রতিষ্ঠার প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেয়ার জন্য মার্কিন রাষ্ট্রদূতকে আহ্বান জানান। অনুষ্ঠানের দ্বিতীয় পর্বে আইবিএফবির ২০১৮২০১৯ মেয়াদে প্রেসিডেন্ট, ২জন ভাইস প্রেসিডেন্ট ও ৪ জন পরিচালক নির্বাচন করা হয়। নেতৃস্থানীয় ব্যবসায়ী হুমাযুন রশিদ এনার্জিপ্যাক পাওয়ার জেনারেশন লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও সিইকে প্রেসিডেন্ট হিসেবে নির্বাচিত করেন। আইবিএফবির ভাইস প্রেসিডেন্ট ও ভাইস প্রেসিডেন্ট (ফাইন্যান্স) নির্বাচিত হয়েছেন যথাক্রমে এম এস সিদ্দিকী লিগ্যাল ইকোনোমিস্ট এবং সিইও, বাংলা কেমিক্যাল এবং লুতফুন্নিসা সৌদিয়া খান, ডাইরেক্টর, বাংলাফোন। এ ছাড়া ড. মো. আলী আফজাল, ব্যবস্থাপনা পরিচালক, কৃষিবিদ গ্রুপ এবং ইঞ্জিনিয়ার রাজিব হায়দার, ম্যানেজিং ডিরেক্টর, আউটপেস স্পিনিং মিলস লিমিটেড প্রথমবারের মতো আইবিএফবির পরিচালনা পর্ষদের পরিচালক নির্বাচিত হন। এতে উত্তরা মোটরস লিমিটেডের চেয়ারম্যান ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক মতিউর রহমান, ইউনাইটেড বিনিয়োগ অ্যান্ড ট্রেডিং লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. ফখরুদ্দিন, আইবিএফবির পরিচালনা পর্ষদের পরিচালক হিসেবে পুননির্বাচিত হন। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।

x