বাংলাদেশের চিকিৎসা ব্যবস্থাপনার জরুরি সংস্কার প্রয়োজন

বৃহস্পতিবার , ১১ জুলাই, ২০১৯ at ১০:৪৩ পূর্বাহ্ণ
32

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বাংলাদেশে চিকিৎসা সেবা আবর্জনার মতো। কোনো রোগ ধরতে পারে না। বড় বড় ক্লিনিক তৈরি করবে কাঁচের সাজ দিয়ে। যাতে রোগীদের থেকে প্রচুর পরিমাণ টাকা হাতিয়ে নিতে পারে। একজন রোগীকে বেশিদিন রাখতে পারলে তাদের আয়ের সিঁড়িটা আরো যায় বেড়ে। কিন্তু রোগী বাঁচাতে পারে না। এজন্য চিকিৎসা সেবাটা ভারতে করতে হয়। ভারতের চিকিৎসা ছাড়া এদেশের চিকিৎসার মান খুবই জঘন্য। গত মার্চ মাসে ধোপাপাড়ার মিল্টন বাবুর হার্ট ব্লক হয়েছে বলে চিকিৎসকরা দেড় লক্ষ টাকা জমা করতে বলে। তখন রোগীর আত্মীয়স্বজন দেড় লক্ষ টাকা জোগাড় করার জন্য মরিয়া হয়ে উঠে। এ দিকে মিল্টন বাবুকে হাসপাতালে ভর্তি করে ফেলে। মিল্টন বাবুর যখন জ্ঞান ফিরে আসে তৎক্ষণাৎ সে বলে ফেলে আমি ভারতে যাবো এবং চেন্নাইতে অপারেশন করব। মরলে ভারতে মরব। তারপর ভারত চলে গেল। পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে দেখল মিল্টন বাবুর কোন হার্ট ব্লক হয়নি শুধু বুকের ডান পাশে সরু ছিদ্র দেখা যাচ্ছে। ওষুধ খেলে ঠিক হয়ে যাবে। বার মাসের ওষুধ নিয়ে যান। কোন সমস্যা নেই। ভালো হয়ে যাবে। বাংলাদেশের চিকিৎসা সেবাটা ব্যবসায়িক চিন্তা ধারার হওয়াতে উন্নয়নের পথে যেতে পারিনি। শুধু ভিজিটে ১০০০ টাকা নিতে ওস্তাদ। ডায়গোনিস্টগুলো কোনো রোগ বালা ধরতে পারেনা। কারণ ওরা তেমন প্রশিক্ষণ প্রাপ্ত নয় বলে। পরিশেষে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে অনুরোধ জানাব চিকিৎসা ক্ষেত্রকে এমন স্থান করুন যাতে গরীব ও মধ্যম আয়ের মানুষগুলো বাঁচে।
রাজীব হোর (রাজু), যুধিষ্টির মহাজন বাড়ি, চট্টগ্রাম-৪২১৯।

x