বাংলাদেশের চাপে থাকার সুযোগটা নিতে চায় জিম্বাবুয়ে

ক্রীড়া প্রতিবেদক

বুধবার , ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ at ১১:০০ পূর্বাহ্ণ
24

কথায় আছে যখন সময় খারাপ যায় তখন সাদা কাপড় থেকেও রং উঠে। যদিও সাদা কাপড়ে কোন রং নেই। বাংলাদেশের অবস্থা হয়েছে এখন ঠিক তেমনই। এখন জিম্বাবুয়েও হুমকির সুরে কথা বলে বাংলাদেশের সামনে। অথচ মাঠের বাইরের নানা ঘটনায় জিম্বাবুয়ে ক্রিকেটের অবস্থা বড়ই নাজুক। সেই জিম্বাবুয়েও সুযোগ নিতে চাইছে বাংলাদেশের বিপর্যস্ত অবস্থার। মাঠের ক্রিকেটে বাংলাদেশের চলছে দুঃসময়। চাপে থাকা দলকে হারিয়ে তাই টুর্নামেন্টে টিকে থাকতে চায় জিম্বাবুয়ে। অবশ্য টুর্নামেন্টের প্রথম ম্যাচে বাংলাদেশ জিতলেও বেশ কাঁপিয়ে দিয়েছেল জিম্বাবুয়ে। ত্রিদেশীয় টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্টের চট্টগ্রাম পর্বের প্রথম ম্যাচে বুধবার মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ ও জিম্বাবুয়ে। ফাইনালের লড়াইয়ে টিকে থাকতে হলে এই ম্যাচ জিততেই হবে জিম্বাবুয়েকে।
টুর্নামেন্টের প্রথম ম্যাচে বাংলাদেশকে বাগে পেয়েও হারাতে পারেনি জিম্বাবুয়ে। ৬০ রানে ৬ উইকেট হারানো বাংলাদেশ জিতে গিয়েছিল তরুণ আফিফ হোসেনের দুর্দান্ত ইনিংসে। পরের ম্যাচে জিম্বাবুয়ে হেরেছে আফগানদের কাছে। প্রথম ম্যাচে কোনোরকমে জয় পাওয়া বাংলাদেশ পরের ম্যাচে পাত্তাই পায়নি আফগানিস্তানের কাছে। গত কিছুদিন ধরে চলা দুঃসময় দীর্ঘায়িত হয়েছে আরও। আফগানদের কাছে হারার পর অধিনায়ক সাকিব আল হাসান বলেছেন ক্রিটেকীয় ও মানসিক স্কিলে দলের ঘাটতি থাকার কথা। ক্রিকেট সংশ্লিষ্ট অনেকের কথাবার্তা অনেকটাই ছন্নছাড়া। চট্টগ্রাম পর্বের জন্য দলে পরিবর্তন আনা হয়েছে বেশ কিছু। সব মিলিয়ে বাংলাদেশের ক্রিকেটে চলছে অস্থিরতা। জিম্বাবুয়ে এটিকে সুযোগ হিসেবেই দেখছে। গতকাল মঙ্গলবার সাগরিকাস্থ জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে অনুশীলন শেষে জিম্বাবুয়ের সিনিয়র ক্রিকেটার শন উইলিয়ামস অবশ্য বললেন, সুযোগ কাজে লাগাতে তাদেরও নিজেদের কাজটা করতে হবে ঠিকঠাক মত।
এই জিম্বাবুয়ে অল রাউন্ডার বলেন আমরা যদি নিজেদের কাজ মন দিয়ে করতে পারি তাহলে বাকি সব আপনাআপনি ঠিক হবে। আমরা জানি বাংলাদেশ এখন বেশ চাপে আছে। কিন্তু আমাদের মৌলিক দিকগুলো ঠিকঠাক করতে হবে। সে সাথে বাংলাদেশের সে চাপে থাকার সুযোগটা নিতে হবে। এমনিতে অবশ্য বাংলাদেশ দলকে নিয়ে জিম্বাবুয়ের সমীহের শেষ নেই। সময় বিরুদ্ধ হলেও দলটার যে বেশ ভাল সামর্থ্য রয়েছে সেটা ভালই জানা রয়েছে শন উইলিয়ামসের। তাই আগে নিজেরা খেলতে চান সামর্থ্য অনুযায়ী। এই জিম্বাবুয়ে ক্রিকেটার বলেন বাংলাদেশ খুব ভালো অলরাউন্ড দল। তাদের অবকাঠামো খুব ভালো। যেটি ছড়িয়ে পড়েছে ক্লাব পর্যায় পর্যন্ত। টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে যে কোনো কিছুই হতে পারে। আমি আগেই বলেছি, সূক্ষ্ম ব্যাপারগুলো পার্থক্য গড়ে দেয়। বাংলাদেশের দারুণ কিছু ক্রিকেটার আছে। সে সাথে বেশ কয়েকজন অভিজ্ঞ ক্রিকেটার আছে। সাকিব, মাহমুদউল্লাহ, মুশফিক সবাই খুব ভালো ক্রিকেটার। সেটিকে আমরা সমীহ করি। আমরা নিজেদের কাজে মনোযোগ দিতে চাই। নিজেদের কাজগুলি করতে চাই নিজেদের জন্য। তিনি বলেন আমাদেরকে ফাইনালের সম্ভাবনা জিইয়ে রাখতে হলে এ ম্যাচে জয়ের কোন বিকল্প নেই। তবে কাজটা বেশ কঠিন সেটা ভালই জানা এই জিম্বাবুয়ের। প্রথম ম্যাচের ভুল ত্রুটি গুলো শুধরে এই ম্যাচে নামতে চায় জিম্বাবুয়ে। নতুন ভেন্যুতে নতুন শুরুর প্রত্যাশা জিম্বাবুয়ের। আর সে জন্য প্রস্তুত বলেও জানালেন জিম্বাবুয়ের অল রাউন্ডার শন উইলিয়ামস। তবে যতই প্রত্যাশা করা হোকনা কেন মাঠের লড়াইটা এখানে আসল।

x