বর্তমান মানুষের সাথে পশুর পার্থক্য কোথায়?

বুধবার , ৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ at ৪:৩২ পূর্বাহ্ণ
225

বাবা চাচা মামা খালু শিক্ষক গৃহকর্মী পরিবহন শ্রমিক কর্তৃক নারী এবং শিশুরা অহরহ ধর্ষিত হচ্ছে। শুধু তাই নয় অধিকাংশ ক্ষেত্রে ধর্ষণের পর হত্যা করা হয়। কিছুদিন আগে ‘ধর্ষণ এক আতঙ্কের নাম’ শিরোনামে কয়েক বছরের পরিসংখ্যান দিয়ে আমার একটা লেখা জনকক্তে প্রকাশিত হয়। সেখানে দেখানো হয়েছে ধর্ষণের হার প্রতি বছর বাড়ছে। যদিও সরকার অনেক শক্ত শাস্তির বিধান করে আইন পাশ করেছিলেন। ঐ লেখায় সিরাজগঞ্জের ফারজানা আক্তার রূপা এবং দিল্লিতে ২০১২ সালে নির্ভয়া নামের ২৩ বছরের নারীকে দলবেঁধে পরিবহন শ্রমিক কর্তৃক ধর্ষণ এবং হত্যার কথা উল্লেখ করেছিলাম। ইচ্ছা ছিল এনিয়ে আর কলম ধরব না। কিন্তু কিছুদিন থেকে দেখছি নারী নির্যাতন ও শ্লীলতাহানির কথা সিনেমার তারকা থেকে আরম্ভ করে জাতিসংঘের নারী কর্মকর্তা, পার্লামেন্ট সদস্য, মিডিয়ার নারী কর্মকর্তা পর্যন্ত তাদের নির্যাতনের জন্য মুখ খুলেছেন এবং হর্তা কর্তা রাজনীতিবিদ অনেকেই অপরাধ স্বীকার করে স্বপদে ইস্তফা দিচ্ছেন। সম্প্রতি জানা গেল দিল্লিতে আট মাসের শিশুকে তার চাচাত ভাই ২৩ বছর বয়সী দৈনিক মজুরী শ্রমিক ধর্ষণ করেছে। শিশুটির আঘাত ভয়ঙ্কর। ৩ ঘন্টা অপারেশনের পরে হাসপাতালে শিশুটি মৃত্যুর সাথে লড়ছে। ছাগল ভেড়া কুকুর গরু হাঁস মুরগীর বাচ্চারা এভাবে যৌন সম্ভোগ করে। তা হলে মানুষের সাথে পশুর পার্থক্য কোথায়? মাদকের মত ধর্ষণও অপ্রতিরোধ্য হয়ে গেল। মাননীয় আইন প্রণেতাদের বিবেচনার জন্য কিছু প্রস্তাব পেশ করা গেল।

() ধর্ষণের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স দিয়ে ব্যবস্থা নেয়ার জন্য আলাদা পুলিশ বিভাগ স্থাপন।

() ধর্ষককে নিঃবীর্য করার ব্যাপারে বিবেচনা করার চিন্তা ভাবনা।

() ধর্ষিতাকে মাননীয় তথ্য প্রতিমন্ত্রীর মত চাকরির ব্যবস্থা গ্রহণ।

() ধর্ষকের সাথে তার বাপ ভাই গোষ্ঠীর ছবিসহ বিস্তারিত প্রতিবেদন মিডিয়ায় প্রকাশ।

() মন্দির মসজিদ প্যাগোডায় এর বিরুদ্ধে বয়ান।

মুক্তিযোদ্ধা প্রকৌশলী জয়কেতু বড়ুয়া, হালিশহর কে ব্লক।

x