বন্দরে মিথ্যা ঘোষণায় পণ্য আমদানী প্রসংগে

রবিবার , ৪ আগস্ট, ২০১৯ at ৭:৫২ পূর্বাহ্ণ
54

গত ২৫ জুলাই আজাদীসহ বিভিন্ন দৈনিকে চট্টগ্রাম বন্দরে মিথ্যা ঘোষণায় আমদানি করা অবৈধ চালান আটকের সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে। এসব চালানে শত শত কোটি টাকার মাদক শুকরের বর্জ্য রয়েছে। যা আমদানী জনস্বাস্থ্যের জন্য মারাত্মক ক্ষতিকর ব্যাপক রাজস্ব ক্ষতি ছাড়াও সামাজিক নিরাপত্তার প্রশ্নে উদ্বেগজনক। সরকারি বিদ্যুৎ কেন্দ্রের জন্য আমদানি করা ক্যাপিটাল মেশিনারিজের শুল্ক হার মাত্র ১ শতাংশ আর মদ-বিয়ারের আমদানি শুল্ক ৩০০-৫০০ ভাগ পর্যন্ত। বাংলাদেশ ও চীনের যৌথ মালিকানায় নির্মীয়মান বিদ্যুৎ কেন্দ্রের জন্য ৪০৬ টন ক্যাপিটাল মেশিনারিজ আমদানির ঘোষণা দিয়ে জাহাজ ভর্তি ৬০০ বাক্সে বিপুল পরিমাণ মদ ও বিয়ার আমদানী করেছে জালিয়াত চক্র। পরীক্ষা বা যথাযথ প্রক্রিয়া ছাড়াই পণ্য খালাস করার সময় কার্টন ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে মদের বোতল বেরিয়ে পড়লে এই জালিয়াতি ধরা পড়ে। এভাবে কতবার কি পরিমাণ অবৈধ পণ্য মিথ্যা ঘোষণায় আমদানী ও খালাস হয়েছে তা জানার কোনো সুযোগ নেই। আরেক চালানে মাছ ও মুগরীর খাদ্যের নামে ১৪০৮ মেট্রিক টন শূকর ও গবাদি পশুর বর্জ্য আমদানির তথ্য উদঘাটন করেছে কাস্টম হাউজ। তিনটি ভিন্ন ল্যাবরেটরিতে পরীক্ষা করে ফিশ ও পোল্ট্রি ফিডের নামে মানবদেহের জন্য অত্যন্ত ক্ষতিকর এবং মুসলমানদের জন্য হারাম বা নিষিদ্ধ পণ্য শূকরের বর্জ্য আমদানির ব্যাপারে নিশ্চিত হয়েছে বন্দর কর্তৃপক্ষ। দীর্ঘদিন ধরে চলে আসা এমন মিথ্যা ঘোষণা ও জালিয়াত কাস্টম হাউজগুলো এখন দৃঢ় হাতে রুখে দিতে শুরু করেছে। এ ধারা যে কোন মূল্যে অব্যাহত রাখতে হবে। জোরদার করতে হবে। দেশের সমুদ্র ও স্থল বন্দর দিয়ে প্রতিদিন বিপুল পরিমাণ অবৈধ পণ্য মিথ্যা ঘোষণায় আমদানি ও খালাস করা হচ্ছে। বন্দরে খালাস হওয়া বেশিরভাগ পণ্যের যথাযথ পরীক্ষণসহ উপযুক্ত প্রক্রিয়া অনুসরণ করা হয় কিনা তা নিয়ে যথেষ্ট সংশয় রয়েছে। মিথ্যা ঘোষণায় শুল্ক ফাঁকি দিয়ে আমদানি করা মাদক ও স্বাস্থ্যহানির পণ্য বিপনন করে একটি চক্র রাতারাতি কোটি কোটি টাকার মালিক হয়ে যাচ্ছে। পক্ষান্তরে দেশের যুব সমাজ তথা জাতির ভবিষ্যত রসাতলে যাচ্ছে। এ ধরনের জালিয়াতির সাথে জড়িতদের কঠোর শাস্তির আওতায় আনতে হবে। যে সব আমদানিকারক ও সিএন্ডএফ এজেন্টের মাধ্যমে এসব কর্মকান্ড সংঘটিত হচ্ছে তাদের বিরুদ্ধে গতানুগতিক জরিমানা দিয়ে পার পাওয়ার সুযোগ বন্ধ করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিতে হবে। মনে রাখতে হবে বন্দর দিয়ে আমদানী রফতানি একদিকে যেমন অর্থনীতির মূল বুনিয়াদ অন্যদিকে সামাজিক ও রাষ্ট্রীয় নিরাপত্তার ক্ষেত্রেও বন্দর ও বৈদেশিক গেটওয়েগুলো গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে।
এম.এ. গফুর, বলুয়ারদীঘির দক্ষিণ-পশ্চিম পাড়, কোরবানীগঞ্জ, চট্টগ্রাম।

x