বঙ্গোপসাগরে ফিশিং ট্রলারে ডাকাতি, চার জেলে অপহরণ

মহেশখালী প্রতিনিধি

শুক্রবার , ৯ নভেম্বর, ২০১৮ at ৬:৩২ পূর্বাহ্ণ
20

মহেশখালী সংলগ্ন পশ্চিম বঙ্গোপসাগরের সোনাদিয়া চ্যানেলে দুটি ফিশিং বোটে ডাকাতি সংঘটিত হয়েছে। এতে ২৫ লাখ টাকার মালামাল ও একটি ট্রলার লুট করে নিয়ে গেছে দস্যুরা। অপহরণ করা হয়েছে ৪ মাঝি-মাল্লাকে। বুধবার (৭ নভেম্বর) ভোরে সোনাদিয়া চ্যানেলের অদূরে বঙ্গোপসাগরের সোনারচর নামক স্থানে এঘটনা ঘটে।
জানা গেছে, গত ১ নভেম্বর ১৬ জন মাঝি-মাল্লা নিয়ে গভীর সাগরে মাছ ধরতে যায় বাঁশখালী উপজেলার জাহাঙ্গীর আলমের মালিকানাধীন এফবি জাহাঙ্গীর। বুধবার ভোরে মাছ ধরে কূলে ফেরার পথে সোনারচর এলাকায় জলদস্যুদের কবলে পড়ে বোটটি। জলদস্যুরা অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে প্রায় ১০ লাখ টাকার মাছ ও জালসহ বোট ছিনিয়ে নেয়। ডাকাতি শেষে ওই বোটের ৪ জেলেকে অপহরণ করে দস্যুরা। অন্যান্য জেলেদের আরেকটি বোটে তুলে দেয়। ওই বোটের অপহৃত জেলেরা হলেন- জিয়াউর রহমান (৪৫), রবি আলম (২৮), আলমগীর (৩৫) ও জাফর আলম (৪২)। কূলে ফিরে আসা জেলেরা জানান, কিছু বুঝে উঠার আগেই জলদস্যুরা তাদেরকে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে। এসময় দস্যুরা তাদেরকে ব্যাপক মারধর করে। এক পর্যায়ে চার জেলে, মাছ, জালসহ ট্রলারটি নিজেদের নিয়ন্ত্রণে নিয়ে যায়। পরে অন্য জেলেদেরকে আরেক বোটে তুলে দেয়। অপরদিকে এ ঘটনার পর পরই একইস্থানে আরও একটি বোট মাছ ধরে কূলে ফেরার পথে জলদস্যুদের কবলে পড়ে। এফবি বিলকিস নামে এ বোটটির মালিক মহেশখালী উপজেলার ছোট মহেশখালী ইউনিয়নের নলবিলা এলাকার মো. সেলিম। ওই বোটে মাঝি-মাল্লা ছিল ১৫ জন। জলদস্যুরা বোটের ১২ লাখ টাকার জাল এবং ৩ লাখ টাকার মাছ লুট করে নিয়ে যায়।
মহেশখালী থানার ওসি প্রভাস চন্দ্র ধর বলেন, বোট ডাকাতির বিষয়টি শুনেছি। তবে যেখানে ডাকাতির কথা বলা হচ্ছে, সেটি আমাদের থানার আওতার বাইরে।

x