বঙ্গবন্ধুর জাতিসংঘে বাংলায় ভাষণের দিনকে ‘বাংলাদেশি ইমিগ্র্যান্ট ডে’ ঘোষণা

শুক্রবার , ১৫ মার্চ, ২০১৯ at ১০:১২ পূর্বাহ্ণ
47

জাতিসংঘে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের বাংলায় ভাষণ দেওয়ার দিনটিকে নিউইয়র্ক স্টেট কর্তৃপক্ষ ‘বাংলাদেশি ইমিগ্র্যান্ট ডে’ ঘোষণা করেছে। স্টেট পার্লামেন্টে নিউইয়র্ক এর মুক্তধারা ফাউন্ডেশনের আবেদনের প্রেড়্গিতে স্থানীয় সময় মঙ্গলবার স্টেট সেক্রেটারি এ ঘোষণা সম্বলিত রেজুলেশনের কপি স্টেট গভর্নর অ্যান্ডরু ক্যুমো এবং মুক্তধারা ফাউন্ডেশনের কাছে পাঠান।
১৭ মার্চ বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন উপলড়্গে নিউইয়র্কে মুক্তধারা ফাউন্ডেশন শিশু-কিশোর মেলায় ওই ঘোষণাপত্র প্রদর্শন করা হবে বলে মুক্তধারা ফাউন্ডেশনের কর্ণধার বিশ্বজিত সাহা জানিয়েছেন। বঙ্গবন্ধুর জন্মদিনকে ‘বাংলাদেশি ইমিগ্র্যান্ট ডে’ হিসেবে ঘোষণা করার প্রসত্মাব সর্বপ্রথম সিনেটে উত্থাপন করেছিলেন ডেমোক্র্যাট সিনেটর টবি অ্যান স্ট্যাভিস্কি। খবর বিডিনিউজের।
২০১৬ সালের ১২ ডিসেম্বর এ সিনেটরের কাছে ১৭ মার্চকে ‘বাংলাদেশি ইমিগ্র্যান্ট ডে’ ঘোষণার জন্যে বিশ্বজিত সাহা আবেদন করেন। ২০১৭ সালের জানুয়ারি মাসে সিনেটে এ আবেদনের পরিপ্রেড়্গিতে রেজ্যুলেশন উত্থাপিত হলেও রিপাবলিকান সিনেটরদের বিরোধিতায় বাদ পড়ে যায়। এরপর ২০১৭ সালের ২০ জানুয়ারিতে বিশ্বজিত সাহা সিনেটর হোজে প্যারাল্টার সঙ্গে দেখা করে বিষয়টি জানান। সিনেটর আশ্বাস দেন এ বিষয় নিয়ে তিনি কাজ করবেন। ২০১৮ সালের ২৫ সেপ্টেম্বর হোজে প্যারাল্টা প্রক্লেমেশনে ২৫ সেপ্টেম্বরকে ‘বাংলাদেশি ইমিগ্র্যান্ট ডে’ হিসাবে ঘোষণা করেন। তখন এটি মুক্তধারা ফাউন্ডেশন আয়োজিত এনআরবি গেস্নাবাল কনভেনশনে ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যানের কাছে হসত্মানত্মর করা হয়। ২০১৮ সালের সিনেট নির্বাচনে হোজে প্যারাল্টা পরাজিত হন এবং তার অকাল মৃত্যুতে বিশ্বজিত সাহা মুষড়ে পড়েন। কেননা এর আগে আনত্মর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের রেজ্যুলেশনটিও সিনেটর হোজে প্যারাল্টার প্রসত্মাবনায় নিউইয়র্ক স্টেটে পাস হয় এবং স্টেট ক্যালেন্ডারে অনত্মর্ভূক্ত হয়।
এরপর আরো কয়েকজন সিনেটরের সাথে যোগাযোগ করার পর সিনেটর টবি অ্যান স্ট্যাভিস্কিকে পাঠানো হয় প্রসত্মাব। তিনি গত ২৭ ফেব্রুয়ারি আলবেনিতে অনুষ্ঠিত সিনেট অধিবেশনে এই বিলটি উত্থাপন করলে সর্বসম্মতিক্রমে ২৫ সেপ্টেম্বর ‘বাংলাদেশি ইমিগ্র্যান্ট ডে’ হিসাবে অনুমোদিত ও স্টেট ক্যালেন্ডারে অনত্মর্ভূক্ত হয়। এখন থেকে প্রতিবছর নিউ ইয়র্ক স্টেটে দিনটি পালিত হবে। রেজ্যুলেশনে লেখা রয়েছে, ১৯৭৪ সালের ২৫ সেপ্টেম্বর জাতিসংঘের অধিবেশনে প্রথমবারের মতো বাংলাদেশের স্থপতি শেখ মুজিবুর রহমান বাংলায় ভাষণ দেন। তাই এ দিনটি অনেক গুরুত্বপূর্ণ বাংলাদেশি অভিবাসীদের জন্য।
বিশ্বজিত সাহা তার প্রসত্মাবনায় ২৫ সেপ্টেম্বরকে ‘বাংলাদেশ ইমিগ্র্যান্ট ডে’ ঘোষণার জন্য যেসব কারণ উলেস্নখ করেন তার অন্যতম ছিল জাতিসংঘের অধিবেশনে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঐতিহাসিক বাংলায় ভাষণের কথা। সিনেটে পাস হওয়া এই রেজ্যুলেশনটি নিউইয়র্ক স্টেট গভর্নর অ্যান্ডরু ক্যুমো ও মুক্তধারা ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা বিশ্বজিত সাহার কাছে ১২ মার্চ মঙ্গলবার পাঠিয়েছেন সিনেটের নির্দেশক্রমে স্টেটের সেক্রেটারি আলেজান্দ্রা এন পোলিনো।
বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন উপলড়্গে মুক্তধারা ফাউন্ডেশন গত ৩ বছর ধরে নিউইয়র্কে শিশু-কিশোর মেলা করে আসছে।

- Advertistment -