ফুটপাত দখলমুক্ত করুন

বুধবার , ৯ অক্টোবর, ২০১৯ at ৬:৫১ পূর্বাহ্ণ
30

চট্টগ্রাম নগরীর বহদ্দারহাট থেকে নতুন ব্রিজ এলাকা পর্যন্ত চলমান চার লাইন সড়ক সঠিক সুফল বয়ে আনতে ব্যর্থ হচ্ছে। এর পেছনে সরকার কাড়িকাড়ি অর্থ ব্যয় করেছে। জনগণের যাতায়াত সুবিধা প্রদানের জন্য। কিন্তু দেখা যাচ্ছে কিছু অসাধু পাতি নেতাদের কারণে তা হোঁচট খাচ্ছে। একটা নতুন রাস্তা উদ্বোধনের আগেই নেতারা নেমে পড়েন রাস্তার ফুটপাত দখলে। বহদ্দারহাট থেকে নতুন ব্রিজ পর্যন্ত চার লাইন সড়কের কাজ এখনো চলমান। অথচ তার আগেই বহদ্দারহাট এলাকা থেকে শুরু করলে দেখা যাবে এর অধিকাংশ জায়গায় ভাসমান হাটবাজার বসে গেছে। লোকজন হাঁটাচলা করতে পারছে না এদের কারণে। এত টাকার পথ হাটবাজার বসানোর জন্য তৈরি করা হয়েছে, নাকি লোকজনের যাতায়াত সুবিধার জন্য তৈরি করা হলো তাই সাধারণ লোকজন বুঝে উঠতে পারছে না। অথচ এই রাস্তাটি জনগণকে চলাচলে ব্যাঘাত ও যানজটের কবল থেকে মুক্ত করতে হাজার কোটি টাকার বাজেট খরচ করে তা নির্মাণ যজ্ঞ চলছে। আর পাতি মাস্তানরা লেগে পড়েছে তাদের সুবিধা হাতানোতে। ভয়ে এদের সাথে কেউ কথাও বলে না। এখনই এদের দখল নৈরাজ্য ঠেকানো না গেলে দু’দিন পর ওরা বলবে হকারদের উচ্ছেদের আগে পুনর্বাসন করতে হবে। এই অজুহাত তুলে দখল বাণিজ্য সুপ্রতিষ্ঠিত করতে লেগে পড়বে। কেন পুনর্বাসন করবে সরকার তাদের! কোন হকারকে সরকার পুনর্বাসন করা উচিত নয়। তারা কি বৈধভাবে সরকারকে টেক্স দিয়ে এখানে ব্যবসা করতে বসেছিল! অবৈধভাবে দখলে বসেছে। সরকারও তাদের সেই পথে উচ্ছেদ করবে। এটাই হওয়া উচিত। এভাবে ফুটপাত দখল করার একটি পুরনো রেওয়াজ এ দেশে চলে এসেছে। এখনই যদি তা ঠেকানো না যায়। তবে উন্নয়নের সুফল জনগণের দোরগোড়ায় পৌঁছাবে না। এই বিষয়ে পুলিশ প্রশাসন ও সংশ্লিষ্টদের সুদৃষ্টি কামনা করছি।

– সিরাজুল মুস্তফা, বহদ্দারহাট, চট্টগ্রাম।

x