ফিলিপাইন ব্যাংক কর্মকর্তা দেগিতোর সাজা ও জরিমানা

বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভ চুরি

আজাদী ডেস্ক

শুক্রবার , ১১ জানুয়ারি, ২০১৯ at ৪:২১ পূর্বাহ্ণ
837

তিন বছর আগে বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভ থেকে ১০ কোটি ১০ লাখ ডলার চুরি হওয়ার ঘটনায় ফিলিপাইনের রিজল কমার্শিয়াল ব্যাংক করপোরেশনের (আরসিবিসি) সাবেক কর্মকর্তা মায়া সান্তোস দেগিতোকে দোষী সাব্যস্ত করে একই সাথে কারাদণ্ড ও অর্থদণ্ড দিয়েছে দেশটির একটি আদালত।
ফিলিপাইন স্টারের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, ফিলিপাইনের আঞ্চলিক আদালত গতকাল বৃহস্পতিবার এই রায় দেয়। রায়ে মুদ্রাপাচারের আট দফা অভিযোগে দেগিতোকে দোষী সাব্যস্ত করা হয়। তার বিরুদ্ধে আনীত আটটি অভিযোগের প্রত্যেকটিতে চার থেকে সাত বছর করে মোট ৩২ থেকে ৫৬ বছরের কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে। সেই সঙ্গে ১০ কোটি ৯০ লাখ ডলার জরিমানা করা হয়েছে তাকে। তিন বছর আগে বিশ্বকে কাঁপিয়ে দেওয়া ওই সাইবার চুরির ঘটনায় এই প্রথম কাউকে দোষী সাব্যস্ত করে সাজা দেওয়া হল।
আরসিবিসি ব্যাংকের মুখপাত্র থিয়া দীপ এক বিবৃতিতে বলেন, ব্যাংকে দেগিতোর অবস্থানের সঙ্গে এই কর্মকাণ্ড সামঞ্জস্যপূর্ণ নয়। ব্যাংক পরিস্থিতির শিকার। দেগিতো একজন প্রতারক কর্মচারী। তবে দেগিতো এই মামলায় মুক্তি পেতে পারে বলে জানিয়েছেন তার আইনজীবীরা। এছাড়া দেশটির সুপ্রিম কোর্টে আপিল করারও ইঙ্গিত দিয়েছেন জোয়াকুইন হিজন ও দেমেত্রো কাস্তোদিও নামে দেগিতোর দুই আইনজীবী।
২০১৬ সালের ৪ ফেব্রুয়ারি যুক্তরাষ্ট্রের ফেডারেল রিজার্ভ ব্যাংক অব নিউইয়র্কে (নিউইয়র্ক ফেড) রক্ষিত বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভের হিসাব থেকে ১০ কোটি ১০ লাখ মার্কিন ডলার চুরি হয়। এর মধ্যে শ্রীলঙ্কায় যাওয়া ১ কোটি ৪৫ লাখ ডলার ও ফিলিপাইনে যাওয়া ১ কোটি ৪৫ লাখ ডলার ফেরত আনা সম্ভব হয় কয়েক মাসের মধ্যেই। বাকি ৬ কোটি ৬৪ লাখ ডলার এখনো ফেরত পাওয়া যায়নি।
ফিলিপাইনের ব্যাংক আরসিবিসি ইতোমধ্যে জানিয়েছে, বাংলাদেশকে কোনো অর্থ ফেরত দেওয়ার পরিকল্পনা তাদের নেই। রিজার্ভ চুরির ঘটনায় দায়িত্ব অস্বীকার করে তারা বলেছে, ‘বাংলাদেশ ব্যাংকের অবহেলা ও অসাবধানতার’ দায় বাংলাদেশকেই নিতে হবে। চুরি হওয়া অর্থ ফিলিপাইন থেকে অন্য দেশে পাচার হয়ে গেছে।

x