প্রিয়া সাহা দেশে ফিরলে জিজ্ঞাসাবাদ : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

রবিবার , ২১ জুলাই, ২০১৯ at ৩:৩১ পূর্বাহ্ণ
527

বাংলাদেশে ধর্মীয় সংখ্যালঘু নির্যাতনের অভিযোগ কোন উদ্দেশ্যে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্টের কাছে তুলেছেন, দেশে ফিরলে সে বিষয়ে প্রিয়া সাহাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল। তিনি বলেছেন, এ ধরনের খবর দেওয়ার পেছনে তার নিশ্চয়ই একটি কারণ ও উদ্দেশ্য রয়েছে। দেশে আসলে নিশ্চয়ই আমরা তাকে জিজ্ঞাসা করব।
ওয়াশিংটনে গিয়ে তোলা প্রিয়া সাহার অভিযোগ নিয়ে ব্যাপক আলোচনার মধ্যে গতকাল শনিবার ঢাকায় নিজের বাড়িতে সাংবাদিকদের প্রশ্নে এ কথা বলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। তিনি বলেন, তার উদ্দেশ্যটা কী, এটা আমাদের দেখার বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে। ওয়াশিংটন ডিসিতে যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেওর উদ্যোগে তিন দিনব্যাপী ‘ধর্মীয় স্বাধীনতায় অগ্রগতি’ শীর্ষক এক আন্তর্জাতিক সম্মেলনে অংশ নিতে যাওয়া প্রিয়া সাহা গত ১৭ জুলাই হোয়াইট হাউজে গিয়ে ডোনাল্ড ট্রাম্পকে বলেন, বাংলাদেশে ধর্মীয় সংখ্যালঘুরা মৌলবাদীদের নিপীড়নের শিকার হচ্ছেন। প্রায় ৩ কোটি ৭০ লাখ হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রিস্টান নিখোঁজ হয়েছেন। খবর বিডিনিউজ ও বাংলানিউজের।
ওই সম্মেলনে অংশ নেওয়া পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আবদুল মোমেন বলেছেন, প্রিয়া সাহা যে অভিযোগ করেছেন, তা একেবারেই মিথ্যা। বিশেষ মতলবে এমন উদ্ভট কথা বলেছেন তিনি। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, বাংলাদেশের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্নের উদ্দেশ্যেই প্রিয়া সাহা এই ধরনের বানোয়াট ও কল্পিত অভিযোগ করেছেন। এ বিষয়ে বাংলাদেশ হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সাংগঠনিক সম্পাদক প্রিয়া সাহার কোনো প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি।
প্রিয়া সাহার অভিযোগের বিষয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, কোথায় ঘটনাগুলো ঘটেছে এবং কার কার বাড়িঘর পুড়িয়ে দেওয়া হয়েছে, তার সঠিক আমরা তদন্ত করি নাই বা করেছি, সেগুলো অবশ্যই দেখব।
আইনের আওতায় আনতে কাজ করছে সরকার : বাংলাদেশ প্রসঙ্গে মনগড়া তথ্য উপস্থাপনের অভিযোগে প্রিয়া সাহাকে আইনি প্রক্রিয়ার আওতায় আনতে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় কাজ করছে বলে জানিয়েছেন ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিএমপি) কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া। গতকাল রাজধানীতে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উন্নয়ন করপোরেশনে (বিএফডিসি) আয়োজিত বিতর্ক প্রতিযোগিতায় সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা জানান। ডিএমপি কমিশনার বলেন, প্রিয়া সাহা যে অভিযোগ করেছেন, তা সম্পূর্ণ বানোয়াট ও ভিত্তিহীন। ইতোমধ্যে তাকে আইনি প্রক্রিয়ায় আনতে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় কাজ করছে। তার এমন মন্তব্যের প্রতিবাদ জানাতে আমাদের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় যোগাযোগ করছে। সমস্ত বক্তব্য, তথ্য-প্রমাণ তদন্ত সাপেক্ষে তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। বাংলাদেশে চলমান সব উন্নয়ন, গণতন্ত্র, সার্বভৌমত্ব ও অগ্রযাত্রাকে বাধাগ্রস্ত করতে এটি আন্তর্জাতিক ষড়যন্ত্র বলে মন্তব্য করেন তিনি।
ব্যবস্থা নিতেই হবে : কাদের
বাংলাদেশে সংখ্যালঘু নির্যাতনের অভিযোগ যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্টের কাছে তুলে প্রিয়া সাহা রাষ্ট্রদ্রোহিতার অপরাধ করেছেন দাবি করে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার কথা বলেছেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। প্রিয়া সাহাকে নিয়ে আলোচনার মধ্যে গতকাল ঢাকার ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভানেত্রীর রাজনৈতিক কার্যালযে এক সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের প্রশ্নে এ কথা জানান তিনি।
সড়ক পরিবহনমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, এই বক্তব্যটি (প্রিয়া সাহার অভিযোগ) সম্পূর্ণ অসত্য ও কোনোভাবেই গ্রহণযোগ্য নয়। এটি একটি নিন্দনীয় অপরাধই শুধু নয়। এই ধরনের উস্কানিমূলক বক্তব্য দেশের অভ্যন্তরে লুক্বায়িত মতলববাজ ও সামপ্রদায়িক গোষ্ঠীকে সহায়তা করবে। আমি দৃঢ়ভাবে বলতে পারি, বাংলাদেশের কোনো বিবেকবার দেশপ্রেমিক হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রিস্টান সমপ্রদায়ের সদস্য প্রিয়া সাহার বক্তব্যের সাথে কোনোভাবেই একমত হবে না। আমি পারসোনালি অনেকের সাথে আলাপ করেছি, তারা এই বক্তব্যের তীব্র নিন্দা করেছে।
কাদের বলেন, এমনকি মার্কিন রাষ্ট্রদূত, তিনিও বলেছেন, এই ধরনের বক্তব্যের কোনো ভিত্তি নেই। বাংলাদেশের সামপ্রদায়িক সমপ্রীতির চমৎকার একটা পরিবেশ বিরাজ করছে। এই বক্তব্য দেওয়ার পর এ নিয়ে আর কোনো দ্বিধাদ্বন্দ্ব থাকার অবকাশ থাকতে পারে না।
প্রিয়া সাহার বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নেওয়ার কথা সরকার ভাবছে কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, অবশ্যই দেশের নাগরিক হয়ে দেশের বিরুদ্ধে এই ধরনের অসত্য উদ্দেশ্যমূলক এবং দেশদ্রোহী বক্তব্য রেখেছে। তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতেই হবে এবং সেই প্রক্রিয়া চলছে।
প্রিয়া সাহার বাড়ির সামনে বিক্ষোভ
বাংলাদেশে ধর্মীয় সংখ্যালঘুদের ওপর নির্যাতনের অভিযোগ যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের কাছে তোলার কারণে প্রিয়া সাহার ঢাকার বাড়ির সামনে বিক্ষোভ দেখিয়েছে একদল যুবক। গতকাল দুপুরে ধানমন্ডিতে প্রিয়া সাহার বাড়ির সামনে ‘সচেতন ছাত্র সমাজ’ ব্যানারে ২০-২৫ জন প্রথমে মানববন্ধন করেন। মানববন্ধনের পর তারা প্রিয়া সাহার বাসায় তালা দেওয়ার প্রস্তুতি নিলেও পরে তা আর করেননি।
‘শারি’ নামে বাংলাদেশের দলিত সমপ্রদায় নিয়ে একটি বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থার পরিচালক প্রিয়া সাহা ঢাকা থেকে প্রকাশিত ‘দলিত কণ্ঠ’ নামক একটি পত্রিকার প্রকাশক ও সম্পাদক। পিরোজপুরের মেয়ে প্রিয়ার স্বামী মলয় কুমার সাহা দুর্নীতি দমন কমিশনের কর্মকর্তা। তাদের দুই মেয়ে যুক্তরাষ্ট্রে পড়াশোনা করেন।

x