প্রবোধচন্দ্র সেন : প্রসিদ্ধ ছান্দসিক ও রবীন্দ্র বিশেষজ্ঞ

শুক্রবার , ২০ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ at ৪:৪৬ পূর্বাহ্ণ
25

প্রবোধচন্দ্র সেন বাংলা সাহিত্যের অন্যতম শ্রেষ্ঠ ছান্দসিক হিসেবে খ্যাতিমান। ইতিহাস ও রবীন্দ্রচর্চায় তাঁর অবদানও বিশেষভাবে স্মরণ্য। বাংলা সাহিত্যে ‘ছন্দ’ নিয়ে তিনি প্রচুর গবেষণা করেছেন। ছন্দ বিষয়ে রয়েছে তাঁর একাধিক গ্রন্থ। আজ প্রথিতযশা এই সাহিত্যিকের ৩৩তম মৃত্যুবার্ষিকী।
প্রবোধচন্দ্র সেনের জন্ম ১৮৯৭ সালের ২৭ এপ্রিল কুমিল্লার মনিয়ন্দ গ্রামে। কুমিল্লা জেলা স্কুল থেকে কৃতিত্বের সাথে মাধ্যমিক এবং কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া কলেজ থেকে উচ্চ মাধ্যমিক পাস করেন। পরবর্তী সময়ে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে প্রাচীন ভারতীয় ইতিহাস ও সংস্কৃতিতে এম.এ পরীক্ষায় প্রথম শ্রেণিতে প্রথম স্থান অধিকার করে স্বর্ণপদক লাভ করেন। কর্মজীবনের পুরোটাই কেটেছে অধ্যাপনা ও গবেষণায়। রবী ঠাকুরের পুত্র রথীন্দ্রনাথের আমন্ত্রণে তিনি বিশ্বভারতীতে অধ্যাপনা করেছেন। রবীন্দ্রনাথ সহ বিভিন্ন কবির রচনায় ছন্দের প্রয়োগ বিশ্লেষণ, বাংলা ছন্দের ব্যাকরণ ও পরিভাষা নির্মাণ, বাংলা ছন্দের ইতিহাস রচনা প্রভৃতি বিষয়ে অসাধারণ পাণ্ডিত্যের জন্য তিনি ছান্দসিক হিসেবে খ্যাতি অর্জন করেন। রবীন্দ্রনাথের ‘ছন্দ’ গ্রন্থের সম্পাদনা করেছেন তিনি। এ ছাড়া সমাজ, ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিষয়েও তাঁর গভীর প্রজ্ঞার পরিচয় মেলে তাঁর রচিত ধর্মজয়ী অশোক, রামায়ণ ও ভারত সংস্কৃতি, ভারত-পথিক রবীন্দ্রনাথ, ভারতাত্মা কবি কালিদাস, ভারতবর্ষের জাতীয় সঙ্গীত ইত্যাদি গ্রন্থে। ছন্দ নিয়ে রচিত তাঁর গ্রন্থগুলোর মধ্যে উল্লেখযোগ্য: ছন্দ-পরিক্রমা, ছন্দ-জিজ্ঞাসা, বাংলা ছন্দে রবীন্দ্রনাথের দান, বাংলা ছন্দ-চিন্তার ক্রমবিকাশ, নতুন ছন্দ-পরিক্রমা প্রভৃতি। ব্যক্তি জীবনে উদার, অসাম্প্রদায়িক প্রবোধ মানুষের নৈতিকতায় বিশ্বাসী ছিলেন। জীবনযাপনে ছিলেন সুশৃঙ্খল। রচনাকর্মেও এর ছাপ সুস্পষ্ট। ১৯৮৬ সালের ২০ সেপ্টেম্বর প্রবোধচন্দ্র সেন প্রয়াত হন।

x