প্রথম তালিকায় ঠাঁই হয়নি সাড়ে ১৩ হাজার শিক্ষার্থীর

পুনরায় আবেদন করতে হবে এসব শিক্ষার্থীকে

রতন বড়ুয়া

মঙ্গলবার , ১১ জুন, ২০১৯ at ১০:১৬ পূর্বাহ্ণ
142

চট্টগ্রাম শিক্ষাবোর্ডের অধীন কলেজগুলোতে আবেদন করেও প্রথম মেধা তালিকায় ঠাঁই মেলেনি সাড়ে ১৩ হাজার (১৩ হাজার ৫৪৮ জন) শিক্ষার্থীর। গত ৯ জুন রাতে একাদশে ভর্তির প্রথম মেধা তালিকা প্রকাশ করে আন্তঃশিক্ষা বোর্ড সমন্বয় সাব-কমিটি। তালিকায় চট্টগ্রামের কলেজগুলোতে ভর্তির জন্য মোট ১ লাখ ৮ হাজার ৫৭৮ জন শিক্ষার্থী চূড়ান্তভাবে মনোনীত হয়েছে। মনোনীতদের মধ্যে বিজ্ঞানে ২০ হাজার ৬৪০ জন, ব্যবসায় শিক্ষা শাখায় ৩৮ হাজার ৪৩৪ জন এবং মানবিকে সর্বোচ্চ ৪৯ হাজার ৪৯৯ জন শিক্ষার্থী ভর্তির জন্য মনোনীত হয়েছে। এছাড়া গার্হস্থ্য অর্থনীতি বিষয়ে ৫ জন শিক্ষার্থী ভর্তির জন্য মনোনীত হয়েছে। মনোনীত এসব শিক্ষার্থীকে ১১ জুন (আজ) থেকে ১৮ জুনের মধ্যে ভর্তির প্রাথমিক নিশ্চায়ন করতে হবে। আর এই নিশ্চায়ন প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে হবে টেলিটক বা মোবাইল ব্যাংকিং রকেট ও শিওর ক্যাশের মাধ্যমে বোর্ডের রেজিস্ট্রেশন ফি বাবদ ১৯৫ টাকা ফি প্রদানের মাধ্যমে। নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে নিশ্চায়ন না করলে ওই শিক্ষার্থীর মনোনয়ন ও আবেদন বাতিল বলে গণ্য হবে।
আন্তঃশিক্ষাবোর্ড সমন্বয় সাব-কমিটির তথ্য অনুযায়ী- চট্টগ্রামের কলেজগুলোতে ভর্তির জন্য আবেদন করেছিল মোট ১ লাখ ২২ হাজার ১২৬ জন শিক্ষার্থী। আবেদনকারীদের মধ্যে ১৩ হাজার ৫৪৮ শিক্ষার্থী প্রথম তালিকায় ভর্তির জন্য কোন কলেজ পায়নি। প্রথম তালিকায় ঠাঁই না পাওয়া এসব শিক্ষার্থীকে আগামী ১৯ ও ২০ জুন (দুই দিনের মধ্যে) পুনরায় আবেদন করতে হবে। এ তথ্য নিশ্চিত করে চট্টগ্রাম শিক্ষাবোর্ডের কলেজ পরিদর্শক প্রফেসর জাহেদুল হক বলেন- এসব শির্ক্ষাথীকে ভর্তি সংক্রান্ত ওয়েবসাইট (www.xiclassadmission.gov.bd) -এ গিয়ে পুরনো আবেদনে কলেজ পছন্দক্রম পরিবর্তন করতে হবে। অর্থাৎ আগের পছন্দ করা কলেজগুলো পরিবর্তন করে নতুন করে পছন্দক্রম দিতে হবে। তবে এসব শিক্ষার্থীর আর আবেদন ফি দিতে হবে না বলেও জানান তিনি।
তবে প্রথম মেধা তালিকায় মনোনীত হয়েও ভর্তি নিশ্চায়ন না করলে সংশ্লিষ্ট শিক্ষার্থীদের মনোনয়ন ও আবেদন বাতিল হয়ে যাবে জানিয়ে কলেজ পরিদর্শক বলেন- তখন ওই শিক্ষার্থীদেরও পুনরায় আবেদন করতে হবে।
আসন সংকটের শঙ্কা নেই :
শিক্ষাবোর্ডের কলেজ শাখার তথ্য অনুযায়ী- চট্টগ্রামে বোর্ড অনুমোদিত কলেজ রয়েছে ২৬৬টি। এসব কলেজে মোট আসন সংখ্যা ১ লাখ ৪৬ হাজার ৯৫টি। বিপরীতে চট্টগ্রামের কলেজগুলোতে ভর্তির জন্য এবার মোট আবেদন করেছে ১ লাখ ২২ হাজার ১২৬ জন শিক্ষার্থী। হিসেবে আরো ২৩ হাজার ৯৬৯টি আসনে ভর্তির জন্য শিক্ষার্থী পাওয়া যাবেনা চট্টগ্রামে।
শিক্ষা বোর্ড ও আন্তঃশিক্ষা বোর্ড সমন্বয় সাব-কমিটির তথ্য পর্যালোচনায় দেখা যায়, চট্টগ্রাম শিক্ষাবোর্ডের অধীন কলেজগুলোতে বিজ্ঞানে মোট আসন সংখ্যা ৩২ হাজার ৮৬৫টি। এসব আসনের মধ্যে প্রথম মেধা তালিকায় (৯ জুন রাতে প্রকাশিত) ২০ হাজার ৬৪০টি আসনে ভর্তির জন্য শিক্ষার্থী মনোনয়ন দেয়া হয়েছে। হিসেবে বিজ্ঞান শাখার আরো ১২ হাজার ২২৫টি আসন শূন্য থাকছে।
ব্যবসায় শিক্ষায় ৫৬ হাজার ৩৭২টি আসনের বিপরীতে প্রথম তালিকায় মনোনয়ন দেয়া হয়েছে ৩৮ হাজার ৪৩৪ জন শিক্ষার্থীকে। হিসেবে এ শাখায় শূন্য থাকছে আরো ১৭ হাজার ৯৩৮টি আসন। আর মানবিকের ৫৬ হাজার ৮৫৮টি আসনের মধ্যে প্রথম তালিকায় মনোনয়ন দেয়া হয়েছে ৪৯ হাজার ৪৯৯টি আসনে। হিসেবে মানবিক শাখায়ও আরো ৭ হাজার ৩৫৯ টি আসন শূন্য থাকছে। শূন্য থাকা এসব আসনে ২য় ও ৩য় দফায় সুযোগ পাবে শিক্ষার্থীরা।
প্রথম মেধা তালিকায় কলেজ না পেলেও সামগ্রিকভাবে আসন সংকট হবে না দাবি করে চট্টগ্রাম শিক্ষাবোর্ডের কলেজ পরিদর্শক প্রফেসর জাহেদুল হক বলেন, সবমিলিয়ে আবেদনকারীর সংখ্যা কলেজগুলোর মোট আসন সংখ্যার তুলনায় কম। যার কারণে সামগ্রিক ভাবে চট্টগ্রামে আসন সংকট হবে না। যদিও কাঙ্খিত কলেজ হয়তো পাওয়া যাবেনা। তবে সব শিক্ষার্থীই কলেজে ভর্তির সুযোগ পাবে। যারা প্রথম তালিকায় মনোনয়ন পায়নি, তাদের পরবর্তী তালিকায় মনোনয়ন পাওয়ার সুযোগ রয়েছে বলেও জানান তিনি।

x