প্রকৌশলী পুলক কান্তি বডুয়া (কিছুই অসম্ভব নয়)

শুক্রবার , ২০ জুলাই, ২০১৮ at ৫:৩৩ পূর্বাহ্ণ
62

নিজের প্রতিটি মূহূর্ত ও পরোপকারী ভাবনার সবই রিওয়ার্ডেবল । এই ধ্রব সত্যটি যে যত তাড়াতাড়ি বুঝতে পারে সে তত দ্রুত সফল হয় জীবনের পথপরিক্রমায়। সম্প্রতি ইকমার্স আমাজন ডট কম এর মালিক বিজোসএটি প্রমাণ করে দেখিয়েছেন। ২০১৮ সালের ১৮ জুলাইয়ে টাইমস এ প্রকাশিত তার বাৎসরিক আয় দেখানো হয়েছে ১৫০ বিলিয়ন ডলার। যা অতীত সকল রেকর্ডকে ব্রেক করেছে। ব্যবসায়িক আয়ের জগতে চাঁদে যাবার মতোই এটি একটি মানুষের জন্যে মাইলস্টোন। বিল গেটসকে বহুগুণ টপকে তিনি এই মুহূর্তে শীর্ষ ধনী। এতোদিন যেটাকে ধনীদের আগামী বিশ বছর পরের চূড়ান্ত টার্গেট মনে করা হতো , তা তিনি দশ বছর আগেই করে দেখালেন। এখন প্রশ্ন হচ্ছে তিনি কোন কিছু নির্মাণ বা আবিষ্কার বা প্রোডাকশন ছাড়া কি করে এতো ধনী হলেন ? উত্তর : তিনি ভার্চুয়াল জগতে বা শূন্যে ভাসমান আইডিয়া বা তার ভাবনা সেল করেছেন পৃথিবীর ৮০ ভাগ সফল ব্যবসায়ীর কাছে। সবার তথ্য ও ঠিকানা যোগাড় করে ব্যবসায়ীদের পারস্পরিক যুক্ত করে দিয়েছেন মাত্র । তার ব্যবসার মৌলিক বিষয় হলো পৃথিবীর ব্যবসায়ী জগতে সকলকে ব্যবসার নানা ইনফরমেশন ও যোগাযোগ মাধ্যম তৈরী করে দেওয়া , একটি মাত্র ওয়েবসাইট তৈরী করে। যাকে বলা হয় পৃথিবীর সবচেয়ে বড় ব্যাবসা প্রতিষ্ঠানের হাট। কোথায় কি পাওয়া যায় , কার ঠিকানা। কি? শুধু এই সব তথ্য ভান্ডার তিনি বিলি করেছেন একজন ভারচুয়াল হকার হয়ে। তাতেই তার আয় আজ ১৫০ বিলিয়ন ডলার। আমাদের বাংলাদেশে ২০১৮ ১৯ সালে ইতিহাসের সর্বোচ্চ জাতীয় বাজেট ঘোষিত হয়েছে ৫১ বিলিয়ন ডলার। যা পৃথিবীর দশম বড় বাজেট। তার মানে আমাজন ডট কমের মালিক বিজোস একাই আমাদের মতো তিনটি উন্নয়নশীল দেশের খরচ যোগান দিতে পারেন , তাতে হিসেব দাঁড়ায় তিন আঠারো ৫৪ কোটি মানুষের ভরণপোষণের দায়িত্ব একা বিজোস নেবার ক্ষমতা রাখেন। ভাবুন তো পরের উপকার আর সুবিধা তৈরী করে দেবার একটি ভাবনা তাকে ৫৪ কোটি মানুষের ভরণ পোষণ করার অর্থ কামাই করার মতো দানবীয় ধনকুবের এ পরিণত করে তুলেছে।

x