পুলিশ ও জনগণ প্রসঙ্গে

সোমবার , ১১ মার্চ, ২০১৯ at ৬:৫৫ পূর্বাহ্ণ
19

রাষ্ট্র থাকলে পুলিশ থাকবে। আভ্যন্তরীণ শান্তি শৃঙ্খলা ও জনগণের জানমাল রক্ষার জন্য পুলিশ বাহিনী অপরিহার্য। সে কারণে একটি গণতান্ত্রিক রাষ্ট্রে পুলিশ ও জনগণের মধ্যে নিবিড় বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক থাকে। জনগণের সমস্যা-সংকটে পুলিশ জীবনবাজি রেখে বিপদের ঝুঁকি নিয়ে হলেও এগিয়ে আসে। জনগণের কল্যাণে পুলিশ সদা সতর্ক। সে কারণে বলা হয়, পুলিশের দায়িত্ব ২৪ ঘণ্টা। যে কোন সময় তাদের ডাক পড়তে পারে। রাত ১২টার সময় ঘুমিয়ে পড়েছে। এমন সময় কোন নাগরিক বিপদে পড়েছে। তাকে উদ্ধার করতে হবে। ডাক পড়ার সাথে সাথে ঘুম শিকেয় তুলে রেখে পুলিশকে দৌড় দিতে হয়। জনগণের কষ্টার্জিত টাকায় পুলিশ বাহিনীর সদস্যরা বেতন-ভাতা পায়। ফলে জনসেবা তাদের প্রধান ও পবিত্র দায়িত্ব। এ দায়িত্ব পালনে অবহেলা বা অপারগতার কোন সুযোগ নেই। নৈতিক কর্তব্য পালন থেকে যেমন ছুটি নেই, তেমনি কোন কিছু বাধা হতে পারে না। মৃত্যুর ঝুঁকি নিয়ে হলেও একজন পুলিশকে দায়িত্ব পালনে সদা নিয়োজিত থাকতে হয়। কিন্তু পুলিশের জীবন সব সময় ঝুঁকিতে থাকে। তারা মানুষের সমস্যা-সংকট মোকাবেলার সাথে তার অধিকার ও মর্যাদা রক্ষায় সচেষ্ট থাকে। পুলিশের সদস্যরা এদেশে এখনো আছে বিধায় মানুষের হৃদয় থেকে পুলিশের প্রতি ভালবাসা চিরতরে মুছে যায়নি। কামরুল হাসান, শিপন ভাই, মনির হোসেন ভাই ও শের আলী তাঁরা তিনজনই পুলিশের সদস্য, তাদের কাছাকাছি আমরা না হলেও দূর থেকে তাদেরকে আমরা অনেক ভালবাসি। ভালবাসি তাঁদের স্বভাবের অন্যান্য যেই পুলিশের সদস্যরা আছেন তাঁদেরকেও।
– নজরুল ইসলাম অপু, বহদ্দারবাড়ি, বহদ্দারহাট, চট্টগ্রাম।

x