পুরোদমে বিশ্বকাপ প্রস্তুতি শুরু টাইগারদের

ক্রীড়া প্রতিবেদক

মঙ্গলবার , ২১ মে, ২০১৯ at ৪:৩৭ পূর্বাহ্ণ
65

আয়ারল্যান্ডে সফল ত্রিদেশীয় সিরিজ শেষ করে শনিবার দিবাগত রাতে ইংল্যান্ডের লেস্টার শহরে পৌঁছেছে বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দল । তবে ‘ফ্যামিলি ব্রেক’ নিয়ে ছুটি কাটাতে দেশে ফিরেছেন অধিনায়ক মাশরাফি বিন মতুর্জা। তামিম ইকবাল পরিবারের সঙ্গে সময় কাটাতে চলে গেছেন দুবাইয়ে। তারা দুজনই ২৩ মে দলের সঙ্গে যোগ দেবেন। বিশ্বকাপ স্কোয়াডের বাকি ১৩ জনের জন্য ছুটি ছিল রোববারের সারাদিন। তবে সাকিব আল হাসান ও মুশফিকুর রহীম ঠিকই লেস্টারের মাঠে সেন্টার উইকেটে ব্যাটিং অনুশীলন করেছেন সেদিন। লেস্টারের একাডেমির জুনিয়র বোলারদের মোকাবেলা করেন তারা। ইনজুরি কাটিয়ে সাকিবের অনুশীলনে ফেরা স্বস্তি দিয়েছিল টাইগার ভক্ত-সমর্থকদের মনে। কারন ইনজুরির কারনে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ত্রিদেশীয় সিরিজের ফাইনালে খেলতে পারেনি সাকিব। আর সে বিষয়টি চিন্তায় ফেলে দিয়েছিল টাইগার ভক্তদের। তবে আপাতত কোন শংকা নেই সাকিবকে নিয়ে। তিনি পুরোদমে অনুশীলনে ফিরেছেন।
গত রোববার সাধারণ ছুটি কাটিয়ে গতকাল সোমবার বিশ্বকাপের জন্য আনুষ্ঠানিকভাবে প্রস্তুতি শুরু করেছে লেস্টারে থাকা বাংলাদেশ স্কোয়াডের সবাই। সেন্টার উইকেটে ব্যাটিং ঝালিয়ে নিয়েছেন মুশফিক-মাহমুদউল্লাহরা। পাশেই বোলিংটাও ঝালিয়ে নিয়েছেন মিরাজ, মোস্তাফিজ, সাইফউদ্দিনরা। বাংলাদেশ সময় বেলা ৩টায় এবং স্থানীয় সময় সকাল ১০টায় শুরু হয় প্রথম দিনের প্রস্তুতি পর্ব। প্রায় তিন ঘণ্টার এ প্রস্তুতি পর্ব শেষ হয় বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যা ৬টার সময়। ইংল্যান্ডের প্রায় ১৯ ঘণ্টা থাকে দিনের আলো। পরবর্তী দুই-তিনদিন টাইগারদের অনুশীলনের মাত্রাটা বেড়ে যাবে আরও বেশি। জাতীয় দলের মিডিয়া ম্যানেজার রাবিদ ইমাম জানান গত রোববার জাতীয় দলের ছুটি থাকলেও সাকিব আর মুশফিক ঐচ্ছিক অনুশীলন করেছিল। তবে গতকাল পুরো দলের অনুশীলন শুরু হয়ে গেছে। ইংল্যান্ড সময় সকাল ১০টায় শুরু হয়ে এরই মধ্যে আড়াই ঘণ্টা অনুশীলন করে ফেলেছে ওরা।
লেস্টারে আগামী ২৩ মে পর্যন্ত অবস্থান করবে টিম বাংলাদেশ। পরে ২৪ মে থেকে শুরু হবে আইসিসির সাপোর্টিং পিরিয়ড। তখন থেকে অংশগ্রহণকারী দেশগুলোর সকল দায়দায়িত্ব নেবে বিশ্ব ক্রিকেটের অভিভাবক সংস্থাটি। তার আগপর্যন্ত লেস্টারে নিজেদের খরচেই অবস্থান করবে বাংলাদেশ। এদিকে ২৪ মে থেকেই শুরু হবে বিশ্বকাপের প্রস্তুতি ম্যাচগুলো। আর এই পর্বে বাংলাদেশের ম্যাচ দুইটি হলো ২৬ ও ২৮ মে কার্ডিফে। তাই ২৩ মে তেই লেস্টার ছেড়ে কার্ডিফে যাবে বাংলাদেশ। সেদিনই দুবাই থেকে তামিম ইকবাল এবং দেশ থেকে অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজাও যোগ দেবেন দলের সঙ্গে। তবে মাশরাফি ইংল্যান্ড যাবেন আরও আগে। কারণ ২২ মে সব দলের অধিনায়কদের নিয়ে সংবাদ সম্মেলনসহ বিশেষ অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে আইসিসি। সেখানে অংশ নিয়ে পরদিন দলের সঙ্গে যোগ দেবেন টাইগার দলপতি । কার্ডিফে একদিন অনুশীলন শেষে ২৬ মে ভারতের বিপক্ষে প্রথম প্রস্তুতি ম্যাচে মাঠে নামবে টাইগাররা। এরপর ২৮ মে পাকিস্তানের বিপক্ষে নিজেদের অফিসিয়াল দ্বিতীয় প্রস্তুতি ম্যাচটি খেলতে নামবে বাংলাদেশ দল। এরপর ২৯ মে কার্ডিফ থেকে লন্ডনে ফিরবে পুরো দল। আগামী ২ জুন দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ওভালে শুরু হবে টাইগারদের বিশ্বকাপ মিশন। আয়ারল্যান্ডের মাটিতে ত্রিদেশীয় সিরিজের শিরোপা জিতে বেশ আত্নবিশ্বাসী এখন বাংলাদেশ দল। টুর্নামেন্টে অজেয় থেকেই চ্যাম্পিয়ন হয়েছে টাইগাররা। সেখানে টানা তিন ম্যাচে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হারিয়েছে টাইগাররা। একটি ম্যাচে স্বাগতিক আয়ারল্যান্ডকে হারিয়েছে মাশরাফির দল। স্বাগতিকদের বিপক্ষে অপর ম্যাচটি বৃষ্টির কারনে পরিত্যক্ত হয়। ইংল্যান্ডের কন্ডিশনের সাথে মানিয়ে নিতে আগেভাগেই ইংল্যান্ডে পৌছে গেছে টাইগাররা। যদিও আয়ারল্যান্ড এবং ইংল্যান্ডের আবহাওয়া একই হওয়ায় ত্রিদেশীয় সিরিজের ম্যাচ এবং অনুশীলন ভাল কাজে দেবে টাইগারদের। এখন তাই যে কয়দিন বাকি রয়েছে সে কয়দিন অনুশীলনে ব্যস্ত থাকবে মাশরাফির দল। এরপর প্রস্তুতি ম্যাচে দুই পরাশক্তি ভারত এবং পাকিস্তানকে হারানো প্রত্যয়তো রয়েছেই টাইগারদের।

x