পাকস্থলীতে করে ইয়াবা-দেশে মাদকের ভয়াবহ পরিস্থিতির দায়ী কে?

শনিবার , ৯ জুন, ২০১৮ at ৩:৪২ পূর্বাহ্ণ
39

পাকস্থলীতে করে ইয়াবা বহনের সময় রাজধানী থেকে এক কিশোরসহ দুই রোহিঙ্গাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।’ এ রকম একটা সংবাদে গা শিউরে উঠেছে। সারাদেশ আতঙ্কিত হয়েছে। আমরা ইয়াবাসহ সারাদেশে মাদকের যে ভয়াবহতা তা বেশ উপলব্ধি করতে পারছি। কিন্তু তা বলে এত দূর! পত্রিকায় (আজাদী) প্রকাশিত খবরে বলা হয়েছে সেলিম ও বাবুল নামে দু’জন যথাক্রমে ৫০ ও ৭০টি করে ট্যাবলেট, স্কচটেপ দিয়ে পেঁচিয়ে ক্যাপসুল বানিয়ে খাইয়ে নেয়। তারা ঢাকায় রওয়ানা দেয়ার পর রাস্তায় কিছু খায় না। ঢাকায় পৌঁছার পর মিল্ক অব ম্যাগনেসিয়াম জাতীয় ঔষধ সেবন করে পাকস্থলী থেকে পায়ুপথে বের করে এসব ইয়াবা। পাকস্থলীতে ইয়াবা বহন করার সময় মৃত্যুর ঝুঁকি থাকে। এরপরেও টাকার লোভে রোহিঙ্গা শিশুরা এ কাজে জড়িত হয়ে পড়েছে। প্রায় ১৫/২০ রোহিঙ্গা শিশু নাকি পাকস্থলীতে করে ইয়াবা বহন করে ঢাকায় নিয়ে যায়। এ রকম কয়েকটা গ্রুপ হয়ে তারা কাজ করে। এ পরিস্থিতিতে মৃত্যু ঝুঁকি নিয়ে ইয়াবা তথা মাদক পাচার এক ভয়াবহ বিপর্যয়ের মুখোমুখি করেছে দেশকে। কিন্তু জনগণের প্রশ্ন, আজকে এ ভয়াবহ পরিস্থিতির জন্য কে দায়ী? সরকার (মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর)? মাদক পাচারকারী? মাদক ব্যবসায়ী? মাদকসেবী? নাকি সাধারণ জনগণ? যারা দেখেও দেখে না। কে বেশি দায়ী? আমাদের মনে হয় আমরা সকলে কমবেশি দায়ী। কারণ আমাদের সকলের সচেতনতা দরকার ছিল। সরকারেরও পূর্বেই আরও তৎপরতার দরকার ছিল। এখন তাই সরকারের উচিত হবে রেডিও টেলিভিশনে ঘন ঘন বিজ্ঞাপন দিয়ে মাদক সম্পর্কে মাদকের ভয়াবহতা সম্পর্কে, মাদক সেবন, মাদক পাচারের শাস্তি হিসেবে জনগণকে অবহিত করা এবং জনগণকে মাদক সেবী ও মাদক চোরাকারবারীদের ধরিয়ে দেয়ার জন্য পুরস্কার ঘোষণা করা।

রনধীর মল্লিক, শিক্ষক।

x