পরিবর্তন আসুক তরুণ সমাজের হাত ধরেই

মালিহা শামসুন

শনিবার , ১৩ অক্টোবর, ২০১৮ at ১১:২৩ পূর্বাহ্ণ
38

সময় তখন বিকেল ৪টা। শহরের বড় বড় দালান আর ব্যস্ত রাজপথ ফেলে ছোট্ট একটি গলি। গলিতে ঢুকতেই চোখে পড়বে পাশাপাশি লাগানো টিনের ছাউনি দেয়া অনেক ঘরবাড়ি। আর পরিবেশ মুখরিত হয়ে আছে ছোট ছেলে-মেয়েদের কোলাহল আর জীবিকা নির্বাহের ব্যস্ততা নিয়ে। জায়গাটি ‘মতিঝরনা কলোনি’। আর এই কলোনিরই কিছু পরিবারের ছেলেমেয়েদের নিয়ে পাঁচটি ভিন্ন প্রকল্প নিয়ে কাজ করছে বাংলাদেশ ইয়ুথ লিডারশিপ সেন্টার (BYLC) এর সিগনেচার প্রোগ্রাম, বিবিএলটি-১৯ এর শিক্ষার্থীরা। ২০০৮ সালে ৩০ জন শিক্ষার্থী নিয়ে এই চট্টগ্রামেই যাত্রা শুরু করে প্রতিষ্ঠানটি। পাঁচটি ভিন্ন লিডারশিপ প্রোগ্রাম নিয়ে দশ বছরের এই পথচলায় বিওয়াইএলসি তিন হাজার পাঁচশয়েরও বেশি তরুণ তরুণীদের ‘কারেজিয়াস, কমপেশনেট, ও কমপিটেন্ট’ করে গড়ে তুলতে লিডারশিপ প্রশিক্ষণ দিয়েছে। নেতৃত্ব শিখানো ও সমাজ পরিবর্তনের লক্ষ্যে বিবিএল টি-১৯ এর তিনটি মাধ্যম (বাংলা, ইংলিশ ও মাদ্রাসা) শিক্ষার্থীদের নিয়ে ১০ সপ্তাহের প্রশিক্ষণ কার্যক্রম সাজানো হয়। ১০ সপ্তাহের এই কার্যক্রমে ৬ সপ্তাহের ক্লাসে শিখানো বিষয়গুলো তারা লিডারশিপ ইন অ্যাকশান (L.I.A) এ পরের ৪ সপ্তাহে বাস্তবিক জীবনে প্রয়োগ করে থাকে। ভাগ করা ৫টি টিমেরই উদ্দেশ্য থাকে কিভাবে হাতে নেয়া পাঁচটি প্রকল্পের দীর্ঘমেয়াদী প্রভাব থাকে ও তাৎক্ষণিক পরিবর্তন নিয়ে আসা যায়। এইবারের পাঁচটি টিম কাজ করছে- বাল্যবিবাহ, মাদকাসক্তি, যৌন নির্যাতন, নারী ক্ষময়াতন ও শিক্ষার প্রয়োজনীয়তা নিয়ে। আইস ব্রেকিং সেশন দিয়ে বস্তির সেই পাঁচ গলির পরিবারের সাথে সম্পর্ক গড়ে তোলার মাধ্যমে শুরু হয় শিক্ষার্থীদের পথচলা। লক্ষ্য নিয়ে কাজ করা টিম ‘সীমাহীন’ তাদের কাজ শুরু করে ভলানটিয়ার গ্রুপ স্বপ্নের গলি ও স্বাধীনতা নিয়ে। তারা কাজ করে কিভাবে পড়াশোনা করে লক্ষ্যে পৌঁছানো যায়। যৌন নির্যাতন নিয়ে কাজ করা টিম ‘এক’ গাইনি বিশেষজ্ঞ এনে কাজ করেছে শারীরিক বিষয়ক তথ্য জানিয়ে। বাল্যবিবাহ নিয়ে কাজ করা টিম ‘প্রতিচ্ছবি’ তুলে ধরেছে এই বস্তির মেয়েদের জীবনের একাংশ যারা বাল্যবিবাহের শিকার। ভবিষ্যতে কিভাবে এই সমস্যা রোধ করা যাই তা নিয়েই কাজ করে তারা। নারীদের হাতের কাজের প্রশিক্ষণ, যেমন : নকশী কাঁথা বানানো, সালোয়ারের কাজ, পুঁথির কাজ শিখিয়ে নারী ক্ষময়াতন নিয়ে কাজ করেছে টিম ‘আলোকবর্তিকা’। ভবিষ্যতে, মাঝপথে থেমে যাওয়া ছোট ছেলেমেয়েদের পড়াশোনা যেন পুনরায় থেমে না যায়, যারা স্কুলে যায়নি বা পড়ালেখার সুযোগ পায়নি তারাও যেন শিক্ষার আলোয় আলোকিত হতে পারে তা নিয়ে কাজ করেছে টিম ‘বৃত্ত’। শুরু করা এমন সব পদক্ষেপ, তিনটি ভিন্ন কারিকুলামের মানুষগুলোর সাথে বন্ধুত্ব, সুবিধাবঞ্চিত মানুষগুলার জন্যে কাজ করে যাওয়ার সেই পরিবর্তনের শুরুটা যেন এখানেই থেমে না থাকে, সে জন্যে নানান পদক্ষেপ নিয়েছে শিক্ষার্থীরা। এই যেমন টিম প্রতিচ্ছবি তাদের কাজের মাধ্যমে পরিবারগুলোর মধ্যে আচরণগত পরিবর্তন আনার পাশাপাশি তাদেরকে ভবিষ্যতের সঞ্চয় ও সেই সঞ্চয় কাজে লাগানোর জন্যে উৎসাহী করতে বিতরণ করেছে মাটির ব্যাংক। এভাবেই তরুণদের হাত ধরে আসুক পরিবর্তন, গড়ে উঠুক একটি নতুন বাংলাদেশ যেখানে যার যার জায়গা থেকেই সবাই কাজ করবে এই দেশটার জন্যে।

x