(পরিচর্যা করতে পারলে সব সম্পর্ক)

শেলী হারিস

শুক্রবার , ৯ আগস্ট, ২০১৯ at ৬:২৯ পূর্বাহ্ণ
66

: আগে বলতাম বন্ধু আর বান্ধবী। এখন শুধু বলি বন্ধু। বন্ধুর কোন জেন্ডার নেই। একথা আমি বিশ্বাস করি। বন্ধুত্ব যে অবস্থার পরিপ্রেক্ষিতে হোক না কেন সেখানে অলিখিতভাবে একটা কমিটমেন্ট থেকে যায়। সেটা বন্ধুর ভালো চাওয়া বা কল্যাণ কামনা করা, বন্ধুকে বিপদে সাহায্য করা এরকম নানাবিধ অলিখিত শর্ত থাকে। সবাই যে তা মেনে চলবে তা নয়। কেউ থাকে বসন্তের কোকিল, কেউ শুধু বান্ধবীর সাথে ঘুরে ফিরে এনজয় করে।
বান্ধবী সুন্দর হলেতো কথাই নেই। পাশের অন্যান্য বন্ধুদের দেখিয়ে সে একটা আত্মপ্রসাদ লাভ করে। এ কারণেও কিছু বন্ধুত্ব গড়ে ওঠে। সেগুলো মিলিয়ে যায় বন্ধুদের মতো। আবার হঠাৎ ঝড়ো হাওয়ার মতো কারো আগমন জীবনকে দারুণভাবে আলোড়িত করে। ভালো লাগে একে অপরকে। কিন্তু সে কথাটা বলা হয় না কখনো জীবনে। বলা হয়না ইগোর কারণে, সুন্দরী মেয়ে যদি প্রত্যাখ্যান করে? মেয়েটির বেলাও তাই। দাম্পত্য জীবন অন্যমাত্রার জীবন। একটি সামগ্রিকরূপ নিয়ে শুরু হয় দাম্পত্য জীবন। কখনো সখনো এর ব্যত্যয় ঘটে না এমন নয়। তবু সংসার বেশিরভাগ টিকেই যায়। আর যে সম্পর্ক গড়ে ওঠে হঠাৎ কোন পূর্ব পরিকল্পনা ব্যতীত, যেখানে কেউ কোন কমিটমেন্ট স্বীকার করতে দ্বিধাবোধ করেন। যে হঠাৎ এসেছে সে উড়ে আসে না, আসতে দেয়া হয় বলেই আসে। জীবনের কোন সম্পর্কই ফেলনা নয়। আগলে রাখতে জানলে, পরিচর্যা করতে পারলে সব সম্পর্ক, বন্ধুত্ব বেঁচে থাকে বুকের কোটরে। যে কোটর বা কৌটোর মালিক ব্যক্তি নিজে।।

x