নেই রুট পারমিট বাড়তি ভাড়া ও যাত্রী হয়রানি

২৭ গাড়িকে জরিমানা

আজাদী প্রতিবেদন

বৃহস্পতিবার , ১৩ জুন, ২০১৯ at ৪:৩৩ পূর্বাহ্ণ
36

গণপরিবহনের বাড়তি ভাড়ার সাথে এবার যুক্ত হয়েছে পথিমধ্যে নামিয়ে দিয়ে যাত্রীদের হয়রানি। সড়কে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটদের অভিযানের খবর পেয়ে যাত্রীদের জোর করে মাঝপথে নামিয়ে দিয়ে উল্টো পথে চলে যায় অনেক বাস, মিনিবাস, হিউম্যান হলার ও টেম্পো। এসব অভিযোগ বাদেও গাড়ির ডকুমেন্ট হালনাগাদ না থাকা, গাড়িতে অনুমোদনের অতিরিক্ত সিট (আসন) সংযোজনসহ নানান অপরাধে ২৭ গাড়িকে ১ লাখ ৬৮ হাজার টাকা জরিমানা করেন বিআরটিএ’র তিন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট। গতকাল বুধবার নগরীর কোতোয়ালী মোড়, কর্নেলহাট ও বালু ছড়া এলাকায় এসব অভিযান চলে।
বিআরটিএ সূত্রে জানা গেছে, নগরীর কোতোয়ালী মোড়ে অভিযান চালায় নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট জিয়াউল হক মীর। তিনি ১৪ গাড়িকে ১ লাখ ১৩ হাজার টাকা জরিমানা করেন। জিয়াউল হক মীর দৈনিক আজাদীকে বলেন, এমনিতেই গাড়িগুলো বাড়তি ভাড়া নিচ্ছিল। আবার অভিযানের খবর পেয়ে পথিমধ্যে যাত্রীদের নামিয়ে দিচ্ছিল। এতে যাত্রীরা দুর্ভোগে পড়ছেন। আমরা বিষয়টি আঁচ করতে পেরে ধাওয়া দিয়ে বেশ কয়েকটি ম্যাঙ্মিা ও লেগুনা গাড়িকে আটকিয়ে জরিমানা করেছি। আমরা আগে থেকেই তাদেরকে সতর্ক করেছিলাম, কম জরিমানা করেছিলাম। তারা পুনরায় একই অপরাধ করায় এবার বেশি জরিমানা করা হয়েছে।
অন্যদিকে নগরীর কর্নেলহাট ও একে খান গেট এলাকায় অভিযান চালান আরেক নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এস এম মনজুরুল হক। অভিযানে ভ্রাম্যমান আদালত জানতে পারেন, নোয়াখালীর কোম্পানিগঞ্জ থেকে চট্টগ্রামে আসার পথে ৫শ টাকা ভাড়া আদায় করে প্রান্তিক পরিবহন। অথচ ওই রুটের নিয়মিত ভাড়া ৩শ টাকা। উপরন্তু প্রান্তিক পরিবহের ওই বাসটির রুট পারমিটও ছিল না। এসময় বাসটিকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা করেন ভ্রাম্যমান আদালত। এছাড়াও ডকুমেন্টস হালনাগাদ না থাকা, ড্রাইভিং লাইসেন্স না থাকার অপরাধে আরো চারটি গাড়িকে ২২ হাজার টাকাসহ ৪২ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।
নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এস এম মনজুরুল হক বলেন, দুরপাল্লার বাসগুলো ফিরতি যাত্রীদের কাছ থেকে এখনো বাড়তি ভাড়া আদায় করছে। আমরা অভিযান চালিয়ে জরিমানা করেছি। অন্যদিকে নগরীর বালুছড়া এলাকায় অভিযান চালান নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সোহেল রানা। এসময় তিনি বিভিন্ন অভিযোগে ৮টি গাড়িকে ১৩ হাজার ৭শ টাকা জরিমানা করেন।

x