নিপীড়ন সইতে না পেরে অমিতের মাথায় ইট দিয়ে আঘাত

হত্যার দায় স্বীকার করে রিপনের জবানবন্দি

আজাদী প্রতিবেদন

বুধবার , ১২ জুন, ২০১৯ at ৫:০১ পূর্বাহ্ণ
1233

চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় কারাগারে দুর্ধর্ষ সন্ত্রাসী অমিত মুহুরী হত্যাকাণ্ডে দায় স্বীকার করে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দিয়েছেন মামলার একমাত্র আসামি রিপন নাথ। জবানবন্দিতে তিনি জানিয়েছেন, মানসিক নিপীড়ন সইতে না পেরে রাগের মাথায় অমিতকে ইট দিয়ে আঘাত করেছিলেন।
গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে চট্টগ্রামের অতিরিক্ত মুখ্য মহানগর হাকিম মো. মহিউদ্দিন মুরাদের আদালতে রিপনের জবানবন্দি নেওয়া হয়। জবানবন্দি শেষে আদালত তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।
সিএমপির অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (প্রসিকিউশন) মো. কামরুজ্জামান আজাদীকে বলেন, ওই কক্ষে আসার পর থেকে তাকে কখনো পাগল আখ্যা দেওয়া, কখনো আবার অমিতের কাছে জিন আছে বলে ভয় দেখানো, সিগারেট খেতে বাধা দেওয়া, পায়ের কাছে শুতে বাধ্য করাসহ নানাভাবে মানসিক নিপীড়ন চালাচ্ছিল অমিত। তাই রাগের মাথায় তাকে ইট দিয়ে মাথায় আঘাত করে রিপন।
মামলার তদন্ত কর্মকর্তা আজিজ আহমেদ আজাদীকে বলেন, আদালতে ভিন্ন কিছু বলেনি রিপন। পুলিশি জিজ্ঞাসাবাদে দেওয়া তথ্যগুলোই সে পুনরায় ব্যক্ত করেছে। তিনি জানান, তাদের জিজ্ঞাসাবাদে রিপন জানিয়েছিলেন, সেলে নেওয়ার পর রিপন ও অমিত একসঙ্গে ধূমপান করেছিলেন। অমিত তাকে গালিগালাজ করেন এবং তার কাছে জিন আছে বলে ভয় দেখান। এ নিয়ে তাদের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। এতে রিপন অমিতের ওপর ক্ষুব্ধ হয়েছিলেন।
তিনি আরো বলেন, রিপন নাথ আদালতে জবানবন্দি দিলেও পুরো ঘটনা আমরা তদন্ত করছি। তার সঙ্গে আর কেউ জড়িত কিনা তা খতিয়ে দেখছি। কারাগারের ভেতর ইট কীভাবে পেল তা-ও বের করার চেষ্টা করছি।
গত ২৯ মে রাতে কারাগারের ৩২ নম্বর সেলের ৬ নম্বর কক্ষে রিপন নাথের ইটের আঘাতে গুরুতর আহত হন অমিত মুহুরী। পরে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হলে তিনি মারা যান। এ ঘটনায় রিপনকে আসামি করে কোতোয়ালী থানায় মামলা করেন চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় কারাগারের জেলার নাশির আহমেদ।

অভিযুক্ত রিপন সীতাকুণ্ড উপজেলার ফেদা নগর এলাকার হেমন্ত সরকার বাড়ির নারায়ণ নাথের ছেলে। পাহাড়তলী থানায় দায়ের হওয়া একটি মামলায় গ্রেপ্তার হয়ে বন্দি আছেন তিনি। খুনের শিকার অমিত মুহুরী কোতোয়ালী থানার নন্দনকানন গোলাপ সিং লেইনের অরুণ মুহুরীর ছেলে।

x