নিজ দোকানে হোমিও চিকিৎসকের গলিত লাশ

আজাদী প্রতিবেদন

শুক্রবার , ১২ জুলাই, ২০১৯ at ৭:১৩ পূর্বাহ্ণ
107

নগরীর পাঠানটুলী এলাকায় নিজ দোকান থেকে এস এম মনির হোসেন (৫০) নামে এক হোমিও চিকিৎসকের গলিত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। তবে এটা হত্যাকাণ্ড না স্বাভাবিক মৃত্যু সেই ব্যাপারে এখনো সুনির্দিষ্ট কিছু জানাতে পারছে না পুলিশ।
গতকাল বৃহস্পতিবার বেলা আড়াইটার দিকে নগরীর ডবলমুরিং থানাধীন পাঠানটুলীর কর্ণফুলী গলি এলাকায় ওই চিকিৎসকের দোকান থেকে লাশটি উদ্ধার করে পুলিশ। ওইসময় সিআইডির ফরেসসিক টিম ঘটনাস্থলে পৌঁছে প্রয়োজনীয় আলামত সংগ্রহ করে। নিহত ব্যক্তি তার চেম্বারে রোগী দেখার পাশাপাশি ভেতরের ওই কক্ষে রাতে থাকতেন। তিনি গাজীপুর জেলার কাপাসিয়া উপজেলার আব্দুল মোতালেবের ছেলে। তার পরিবার কাপাসিয়াতে থাকে। এ ব্যাপারে জানতে চাইলে নগরীর ডবলমুরিং জোনের সহকারী কমিশনার আশিকুর রহমান আজাদীকে বলেন, চেম্বারের ভেতরে আরেকটি কক্ষে বিছানায় পড়ে থাকা অবস্থায় ওই চিকিৎসকের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। এ সময় বিছানাতে মশারি টাঙানো ছিল। স্থানীয়দের কাছ থেকে খবর পেয়ে পুলিশ লাশটি উদ্ধার করে বলে জানান তিনি।
আশিকুর রহমান বলেন, ওই চিকিৎসকের মৃত্যুর বিষয়ে এখনো সুনির্দিষ্ট করে কিছু বলা যাচ্ছে না। লাশের শরীরে কোনো আঘাতের চিহ্ন দেখা যায়নি। প্রাথমিকভাবে মনে হচ্ছে, উনি স্ট্রোক করেছেন। আবার ঘটনাস্থলে বিভিন্ন আলামত দেখার পর অন্য কোনোভাবে তার মৃত্যুর বিষয়টিও এড়ানো যাচ্ছে না। ময়নাতদন্ত রিপোর্ট না পাওয়ার আগে সুনির্দিষ্ট করে কিছু বলা যাচ্ছে না। লাশটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্ত রিপোর্টের জন্য হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে বলে জানান তিনি।
ডবলমুরিং থানার ওসি সন্দ্বীপ দাশ বলেন, পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে লাশটি গলিত অবস্থায় উদ্ধার করে। ধারণা করা হচ্ছে, দুই/তিনদিন আগে ওই চিকিৎসকের মৃত্যু হয়েছে।
থানার উপ-পরিদর্শক অর্ণব বড়ুয়া বলেন, স্বাভাবিকভাবে ওই ব্যক্তি ঘুমানোর আগে দোকানের শার্টারটি নামানোর পর ভেতর থেকে তালা মারার কথা ছিল। কিন্তু ওখানে ভেতর থেকে তালা মারা অবস্থায় পাওয়া যায়নি। পুলিশ দোকানের শার্টার তুলে ওই চেম্বারের ভেতর প্রবেশ করেছিল। এছাড়া দেরিতে লাশটি উদ্ধার হওয়ায় অনেক আলামত নষ্ট হয়ে গেছে। এতে করে মৃত্যুটি স্বাভাবিকও বলা যাচ্ছে না বলে জানান তিনি।
নিহতের মেয়ের বরাত দিয়ে অর্ণব জানান, ওই চিকিৎসক বিভিন্ন মেডিসিন নিয়ে গবেষণা কাজ চালাতেন। গত তিন/চারদিন ধরে পরিবার তার কোনো খোঁজ খবর পাচ্ছিল না।
জানা গেছে, পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে লাশটি উদ্ধারের পাশাপাশি নিহতের দুইটি মুঠোফোন উদ্ধার করেছে। যেগুলো বন্ধ অবস্থায় ঘটনাস্থলে পাওয়া যায়। মোবাইল দুটির ব্যালেস্টিক পরীক্ষার জন্য সিআইডির কাছে হস্তান্তর করেছে পুলিশ। এছাড়া ঘটনাস্থল থেকে আরও কিছু আলামত সিআইডি নিয়ে গেছে।

x