নিখোঁজের ১১ দিন পর ফটিকছড়িতে ব্যবসায়ীর লাশ উদ্ধার

ফটিকছড়ি প্রতিনিধি

রবিবার , ২ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ at ৫:৪৩ পূর্বাহ্ণ
142

ফটিকছড়িতে মঈনউদ্দীন (৩১) নামের নিখোঁজ এক ব্যবসায়ীর লাশ উদ্ধার করছে পুলিশ। নিখোঁজ হওয়ার ১১ দিন পর শনিবার সকাল ১০টায় উপজেলার উত্তর নিচিন্তাপুর ২নং ওয়ার্ডের দীঘিরপাড় নামক স্থানে শিশুরা লাকড়ি সংগ্রহ করতে গেলে মঈনউদ্দীনের লাশ দেখতে পায়। পরে স্থানীয়রা চেয়ারম্যান হারুনুর রশিদ ইমন ও ফটিকছড়ি থানাকে জানালে পুলিশ এসে লাশ উদ্ধার করে। ঘটনাস্থলে গলিত লাশের পাশে মানিব্যাগ, কাপড় ও সেন্ডেল পাওয়া যায়। নিহত মঈনউদ্দীন সমিতিরহাট ইউনিয়নের ৩ নং ওয়ার্ডের পন্ডিত বাড়ির নুরুল আলমের পুত্র। মঈনউদ্দীনের স্ত্রী, এক ছেলে ও এক মেয়ে রয়েছে। মঈনউদ্দীনের বড়ভাই দিদারুল আলম বলেন, কোরবানের ঈদের আগের দিন আমার ভাই নিখোঁজ হয়। নিখোঁজ হওয়ার দিন ঘটনাস্থলের আশেপাশে আমার ভাই তার বন্ধু রমজানের সাথে বেশ কয়েকবার ঘুরতে দেখে এলাকবাসী। দিদারুল আলম অভিযোগ করে বলেন,আমার সন্দেহ হচ্ছে রমজান, আমির সহ তার কাছের বন্ধুরা এ হত্যাকান্ডে জড়িত।

উল্লেখ্য, গত ২১ আগষ্ট মঙ্গলবার রাত সাড়ে বারোটার নানুপুর বাজার থেকে নিজবাড়ী সমিতিরহাট উত্তর নিশ্চিন্তাপুর গ্রামে ফেরার পথে নিখোঁজ হন মঈনউদ্দীন। তিনি নানুপুর বাজারের সবজি ব্যবসায়ী ছিলেন। ফটিকছড়ি থানায় নিখোঁজের বিষয়ে জিডি করেন তাঁর ভাতিজা হাসান। জিডি সূত্রে জানা যায়, দিনের বেলায় বাজারে গিয়ে আর বাড়ি ফেরেননি মঈনউদ্দীন । সর্বশেষ নিখোঁজের দিন রাত সাড়ে বারোটার দিকে স্ত্রীর সাথে ফোনালাপে বাড়ি ফিরছেন বলে জানালেও পরে তার মুঠোফোনটি বন্ধ হয়ে যায়। সম্ভাব্য সব জায়গায় খবর নিয়েছেন তার পরিবার। অবশেষে আজ তার খোঁজ মিলে পাশ্ববর্তী দীঘিরপাড় এলাকায়। স্থানীয় ইউপি সদস্য মোহাম্মদ আইয়ুব বলেন, আমরা খবর পেয়ে পুলিশকে জানালে পুলিশ এসে লাশ উদ্ধার করে।

এব্যাপারে ফটিকছড়ি থানার সেকেন্ড অফিসার দেলোয়ার হোসেন ভুঁইয়া বলেন, মঈনউদ্দীনের পরনে কোন কাপড় ছিল না, লাশটিতে পোকা ধরে গেছে। লাশের আশপাশে কিছু মদের বোতল ও ইয়াবা সেবনের নমুনা পাওয়া গেছে। ধারণা করা হচ্ছেনিখোঁজের দিন এ হত্যাকান্ড ঘটানো হয়েছে। আমরা খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছে লাশ উদ্ধার করে মর্গে প্রেরণ করেছি। এব্যাপারে মামলার প্রস্তুতি চলছে।

x