(নারীর জন্য চাকরিলাভের পথটা আরো মসৃণ হোক)

মুনমুন বড়ুয়া

মঙ্গলবার , ১১ জুন, ২০১৯ at ১০:২৩ পূর্বাহ্ণ
141

একটি দেশের উন্নয়নে নারী ও পুরুষ সমান অংশীদার। উচ্চশিক্ষায় আমাদের দেশের নারীরা তাদের মেধা ও যোগ্যতায় সাফল্যের স্বাক্ষর রেখে চলেছেন। কিন্তু নারীদের উচ্চ শিক্ষা গ্রহণের পথটা যতটা মসৃণ সে অনুযায়ী চাকরিলাভের পথটা ততটা মসৃণ নয়। ইদানীং বিভিন্ন সংস্থার রিপোর্টের ভিত্তিতেই বলা যায়, দেশে উচ্চ শিক্ষিত নারীর সংখ্যা যতটা বেড়েছে সে হিসাবে কর্মক্ষেত্রে নারীদের সংখ্যা তুলনামূলকভাবে কম। আমাদের দেশের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ‘শিক্ষিত নারী যেন শুধু একজন শিক্ষিত মা নন, একই সাথে উপার্জনক্ষম হয়ে তারা যেন স্বামী তথা পরিবারের স্বচ্ছতার সমান অংশীদার হন’ – বিষয়টির ওপর গুরুত্বারোপ করে থাকেন, তাঁর কথাগুলো সত্যিই উৎসাহব্যঞ্জক। তবে উৎসাহের পাশাপাশি নারীদের জন্য সুযোগ-সুবিধাগুলো আরো বেশি নিশ্চিত করা গেলে তা অধিকতর ফলপ্রসূ হত বলে মনে করি। সরকার প্রশাসনের বিকেন্দ্রীকরণে নানামুখী উদ্যোগ গ্রহণ করেছে , কিন্তু দুয়েকটি ছাড়া সকল চাকরির নিয়োগ পরীক্ষা এখনো রাজধানীকেন্দ্রিক। পরীক্ষাগুলো রাজধানী ঢাকাকেন্দ্রিক হওয়াতে পরিবারের সম্মতি নিয়ে দেশের প্রত্যন্ত জেলা-উপজেলা থেকে গিয়ে নারীদের পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করাটাই একটা যুদ্ধ জয় করার মত ব্যাপার হয়ে দাঁড়ায় । যারা পরিবারের সদস্যদের রাজী করিয়ে অচেনা শহর ঢাকায় পরীক্ষায় অংশ নিতে যেতে পারেন, তাদের অনেকেই নানা বিড়ম্বনায় নিজে প্রতিষ্ঠিত হওয়ার লক্ষ্যটাকে বিসর্জন দিয়ে হতাশ হয়ে পড়েন। এখানে প্রশ্ন উঠতেই পারে সরকার আত্মকর্মসংস্থানের জন্য শুধু নারীদের জন্যই দেশব্যাপী বিভিন্ন ধরনের প্রশিক্ষণ ও কর্মশালার আয়োজন করে আসছে তাহলে হতাশ হওয়ার কি আছে ? তাহলে বলতেই হয়, একজন নারী যদি একজন ব্যাংক কর্মকর্তা বা একটি সরকারি অফিসের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা হওয়ার স্বপ্ন দেখেন এবং তার সেই যোগ্যতা আছে বলে বিশ্বাস করে থাকেন তাহলে রাষ্ট্রের উচিত তার যোগ্যতা অনুযায়ী চাকরিলাভের সুযোগ নিশ্চিত করা – আমাদের দেশের সর্বোচ্চ আইন সংবিধানে তা-ই বর্ণিত আছে । শুধু নারী নয়, সকল নাগরিকের নিজের যোগ্যতা অনুযায়ী পেশা বাছাইয়ে সুযোগ রাষ্ট্রকে নিশ্চিত করতে হবে। বর্তমানে আমাদের দেশে মোট জনসংখ্যার একটা বড় অংশ তরুণ । দেশে উচ্চ শিক্ষার সুযোগ যেমন বাড়ছে, তেমনি বাড়ছে উচ্চ শিক্ষিত বেকারদের সংখ্যা। এর একটা বিরাট অংশ নারী। সমাজের এত প্রতিবন্ধকতা ডিঙিয়ে যে নারী এতটা পথ পাড়ি দিয়ে এসেছে, নিজের মেধা ও যোগ্যতা প্রমাণ করে তাদের চাকরিলাভের পথটা আরেকটু মসৃণ করার ব্যাপারে সরকারের একটু সহযোগিতা পেলেই এই নারীরা নিজেকে প্রমাণ করে পৌঁছে যাবে সাফল্যের স্বর্ণ শিখরে। নারীর ক্ষমতায়নে বিশ্বে দৃষ্টান্ত স্থাপন করে আমাদের দেশের নারীরাই গড়ে তুলবে এক অনন্যসাধারণ মানবিক পৃথিবী।

x