নাজিরহাট পৌরসভার প্রথম নির্বাচন আজ

প্রতিদ্বন্দ্বিতায় ৭ মেয়রসহ ৮২ প্রার্থী

এম এস আকাশ, ফটিকছড়ি

বৃহস্পতিবার , ২৯ মার্চ, ২০১৮ at ৩:৫৪ পূর্বাহ্ণ
604

আজ ২৯ মার্চ নাজিরহাট পৌরসভার প্রথম নির্বাচন। উত্তর চট্টগ্রামের প্রাচীনতম বাণিজ্য কেন্দ্র নাজিরহাট বাজারের নামকরণে ২০১৪ সালে প্রতিষ্ঠিত হয় পৌরসভা। মোট ৪০ হাজার ৮৫ জন ভোটার তাদের অধিকার প্রয়োগ করে এই প্রথম পৌরপিতা নির্বাচন করবেন। এ উপলক্ষ্যে র‌্যাবপুলিশবিজিবিমোবাইল টিমসহ চার স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়েছে প্রশাসন। ফটিকছড়ি উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো. শামসুল হক ফৌজদার জানান, ৭ জন মেয়র, ১১ জন সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর এবং ৯টি ওয়ার্ডে ৬৪ জন সাধারণ কাউন্সিলরসহ ৮২ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। ভোট গ্রহণের সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। ভোটের সরঞ্জামসহ প্রিসাইডিং অফিসারগণ ও আইনশৃংখলা বাহিনী কেন্দ্রে পৌঁছেছে। সকাল ৮টা থেকে বিকাল চারটা পর্যন্ত ভোট গ্রহণ চলবে। ভোটার উপস্থিতি থাকলে সময় বৃদ্ধি করা হবে।

নির্বাচনে মেয়র পদে নৌকা প্রতীক নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন ফটিকছড়ি আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. মুজিবুল হক চৌধুরী। ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন বিএনপি নেতা সিরাজ উদ দৌল্লা। নারকেল গাছ প্রতীক নিয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন আনোয়ার পাশা, মোবাইল ফোন প্রতীক নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন স্বতন্ত্র প্রার্থী আলী আজম সাদেক, জগ প্রতীক নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন স্বতন্ত্র প্রার্থী এম. হায়াত, ফুলের মালা প্রতীক নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন তরিকত ফেডারেশন নেতা মো. জালাল উদ্দিন।

বিএনপি মনোনীত মেয়র পদ প্রার্থী মো. সিরাজ উদ দৌল্লা বলেন, এই জনপদে সংসদউপজেলাইউনিয়নে বার বার ভোটাধিকার হরণ করা হয়েছে। একটি অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের মাধ্যমে ভোটাধিকার ফেরত চাই। একটি বিশেষ দলের প্রার্থীর পক্ষে বহিরাগতদের সমাবেশ ঘটানো হচ্ছে। এ নির্বাচনে ধানের শীষের পক্ষে ব্যাপক গণজোয়ার তৈরি হয়েছে। জনগণ বাধাহীনভাবে ভোট দিতে পারলে এবং কারচুপি না হলে ধানের শীষ এখানে বিপুল ভোটে নির্বাচিত হবে। এ ব্যাপারে আমি প্রশাসনের সঠিক নজরদারী ও তদারকী কামনা করছি।

আওয়ামীলীগ মনোনীত মেয়র পদ প্রার্থী মো. মুজিবুল হক চৌধুরী বলেন, আওয়ামী লীগ সরকার উন্নয়নের সরকার। নৌকা হচ্ছে উন্নয়নের প্রতীক। জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আজ দেশ নিম্ন মধ্যম আয়ের দেশ থেকে উন্নয়নশীল দেশে পরিণত হয়েছে। সারা দেশে ব্যাপক উন্নয়ন সাধিত হচ্ছে। এই নাজিরহাট পৌরসভাও সরকারের উন্নয়নের ফসল। তাই এই পৌরসভার প্রথম নির্বাচনে বিজয়ী হয়ে উন্নয়নের অংশীদার হতে চাই। ফটিকছড়ি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা জাকের হোসেন মাহমুদ বলেন, আইনশৃংখলা বাহিনী শতভাগ নিরপেক্ষভাবে কাজ করছে। চার স্তরের নিরাপত্তা বেস্টনী গড়ে তুলেছি। আমাদের পাশাপাশি র‌্যাবপুলিশবিজিবিও কাজ করবে। ফটিকছড়ি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা দীপক কুমার রায় জানান, ২২টি ভোটে কেন্দ্রের জন্য ১ জন জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ও ৮জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োগ করা হয়েছে। যেখানেই সমস্যা হবে সেখানেই আইনশৃংখলা বাহিনী প্রতিরোধ গড়ে তুলবে।

x