নাইক্ষ্যংছড়িতে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে আহত বন্যহাতি

নাইক্ষ্যংছড়ি প্রতিনিধি

শনিবার , ১১ আগস্ট, ২০১৮ at ৩:৫১ পূর্বাহ্ণ
62

পার্বত্য নাইক্ষ্যংছড়ি সীমান্তে আবারো একটি আহত বন্য হাতি মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে। সীমান্তের ৪৬ নম্বর পিলার কাছাকাছি আধা কিলোমিটার বাংলাদেশের অভ্যন্তরে নুরুল আলম কোম্পানির চা বাগান এলাকায় হাতিটি এ অবস্থায় রয়েছে এখনো। প্রত্যক্ষদর্শী মোটরবাইক চালক ও স্থানীয় অধিবাসী ছালাম মিয়া, আবুল কালাম আরো জানান, খবর পেয়ে গতকাল শুক্রবার সকালে ছুটে যান এ আহত হাতিটি দেখতে। তারা দেখতে পান, হাতিটি ছটফট করছে এবং চিৎকার করছে অঝোরধারায়। নানাভাবে তারা আরো জানতে পারেন যে, এ হাতিটি নাকি গত ৪/৫ দিন ধরে এ অবস্থায় রয়েছে। এলাকাবাসীর ধারণা এ হাতিটি মিয়ানমার বাহিনীর গুলি অথবা তাদের পেতে রাখা স্থল মাইন বিস্ফোরণেই আহত হয়েছে। কিংবা দেশীয় বন্য পশু শিকারী দল হাতির দাঁতের জন্যে গুলি মারায় হাতিটি এখানে পালিয়ে এসেছে। এটি এখন শারীরিকভাবে খুবই দুর্বল হয়ে পড়ছে ক্রমান্বয়ে। আজ ৬/৭ দিন ধরে এখানে না খেয়ে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে। তারা জানান,এর আগেও সীমান্তের ফুলতলীসহ কয়েকটি পয়েন্টে এ ধরনের আহত হাতি শিকারীর গুলিতে আহত হয়ে মারা গিয়েছিল। যেসব হাতির দাঁত শিকারীরা নিয়ে গিয়েছিল নিজের মতো করে। এ বিষয়ে সীমান্তের এ পয়েন্টে বসবাসরত ইউপি মেম্বার মোহাম্মদ হাসান জানান, তিনি বিষয়টি জেনেছেন। আহত হাতিটি হয়তো গুলি খেয়ে এখানে আশ্রয় নিয়েছে। এর আগেও ধরনের বেশ কটি হাতি আহত হয়ে মারা গিয়েছিল সীমান্তর নানা পয়েন্টে। এটিও তার একটি।

বিজিবি ১১ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক অধিনায়ক লে. কর্নেল আসাদুজ্জামান জানান, তিনি এই মাত্র বিষয়টি শুনেছেন। কী করা যায় রেঞ্জ অফিসারকে নিয়ে আলোচনাা করে ব্যবস্থা করার চেষ্টা করবেন তিনি। সম্ভব হলে বন বিভাগকে সাথে নিয়ে এ হাতিটিকে বাঁচিয়ে তোলার চেষ্টা করবেন তিনি।

এ বিষয়ে নাইক্ষ্যংছড়ির রেঞ্জ কর্মকর্তা নুরুল আলম হাফেজি জানান, আমি বিষয়টি জানি না। বিষয়টি এই মাত্র শুনলাম এবং ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

x