নবাগত পাইরেটসের কাছে হার চ্যাম্পিয়ন সিটি কর্পোরেশনের

মাঠে গড়াল প্রিমিয়ার ডিভিশন ক্রিকেট লিগ

ক্রীড়া প্রতিবেদক

সোমবার , ১১ মার্চ, ২০১৯ at ১০:৩৩ পূর্বাহ্ণ
33

অঘটন দিয়েই শুরু হলো এবারের প্রিমিয়ার ডিভিশন ক্রিকেট লিগ। প্রথম দিনেই চমক দেখাল প্রিমিয়ার লিগে নবাগত পাইরেটস অব চিটাগাং। গত বছর প্রথম বিভাগে চ্যাম্পিয়ন হয়ে প্রিমিয়ারে আসা পাইরেটস অব চিটাগাং লিগের উদ্বোধনী ম্যাচেই গত আসরের চ্যাম্পিয়ন সিটি কর্পোরেশন একাদশকে হারিয়ে চমক সৃষ্টি করেছে। এম এ আজিজ স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত লিগের প্রথম ম্যাচে পাইরেটস অব চিটাগাং ৩ উইকেটে হারিয়েছে চ্যাম্পিয়ন সিটি কর্পোরেশন একাদশকে। ব্যাটে বলে দারুণ লড়াই করেছে পাইরেটসের ক্রিকেটাররা। যার ফল জয় দিয়ে লিগ শুরু করা। চট্টগ্রাম জেলা ক্রীড়া সংস্থার ব্যবস্থাপনায় ইস্পাহানী গ্রুপ অব কোম্পানিজ এর আর্থিক পৃষ্ঠপোষকতায় সিজেকেএস-ইস্পাহানী প্রিমিয়ার ক্রিকেট লিগের প্রথম ম্যাচেই এক রকম চমকে দিয়েছে নবাগত পাইরেটস অব চিটাগাং।
গতকাল টসে জিতে ব্যাট করতে নামা সিটি কর্পোরেশন একাদশ শুরুটা ভাল করতে পারেনি। যদিও তারা নির্ধারিত ৫০ ওভারে শেষ পর্যন্ত ২৩৫ রান সংগ্রহ করে ৮ উইকেট হারিয়ে। উদ্বোধনী জুটিতে ৩৭ রান সংগ্রহ করেন দুই ওপেনার রানা এবং সাব্বির। ১৪ রান করে সাব্বির ফিরলে ভাঙ্গে এ জুটি। এরপর দ্রুতই ফিরেন আরেক ওপেনার রানা। ২৪ রান করে ফিরেন রানা। তবে তৃতীয় উইকেটে রবিন এবং মইনুল মিলে এগিয়ে নিয়ে যেতে থাকেন দলকে। এ জুটি ৮৬ রান সংগ্রহ করে বড় স্কোর গড়ার ইঙ্গিত দিচ্ছিলেন। কিন্তু ৪৫ রান করা মইনুল রান আউটের শিকার হলে ভাঙ্গে এজুটি। পরের ওভারেই বিদায় নেন রবিন। তার ব্যাট থেকেও আসে ৪৫ রান। এই দুই সেট ব্যাটসম্যান আউট হওয়ার পর দলের হাল ধরেন মেহেদী। বেশ ভাল ভাবেই দলকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছিলেন মেহেদী । কিন্তু ব্যক্তিগত হাফ সেঞ্চুরি থেকে এক রান দুরে থাকতে ফিরেন মেহেদী। ৩১ বলে ৪৯ রান তুলে বেলালের বলে আসিফের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফিরেন মেহেদী। ৫টি চার এবং ২টি ছক্কার সাহায্যে সাজানো ছিল তার ইনিংসটি। এরপর শহীদ ১৭, আরিফ ১৪ এবং মঞ্জু ২১ রান করলে দলের রান সংখ্যা দুশো পেরিয়ে যায়। পাইরেটস্‌ অব চিটাগং এর ওয়াহিদুল আলম ৪৪ রান দিয়ে ২টি উইকেট লাভ করেন। এছাড়া বেলাল হোসেন, অংশুমান ঘোষ, রেজাউল করিম রাজিব, আবদুল কাদের রাসেল এবং আশরাফুল সৈকত প্রত্যেকে ১টি করে উইকেট লাভ করেন।
২৩৬ রানের লক্ষ্যে খেলতে নেমে পাইরেটস্‌ অব চিটাগং দারুণ শুরু করে। পাইরেটসের দুই ওপেনার দারুন দৃঢ়তার পরিচয় দেন। ৭৫ রান করে বিচ্ছিন্ন হন ওপেনিং জুটি। পিয়ার মো. সৌরভ ৩৫ রান করে আউট হলে ভাঙ্গে এ জুটি। তবে আরমান উল্লাহ এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছিলেন দলকে। যদিও উদ্বোধণী জুটি ভাঙ্গার পর সজিব এসে রানের খাতা খোলার আগেই ফিরেন। তবে এগিয়ে যাচ্ছিলেন আরমান। শেষ পর্যন্ত ৮০ রান করে থামেন তিনি । তার ৫৭ বলের ইনিংসটিতে ৮টি চার এবং ৪টি ছক্কার মার ছিল। আরমান উল্লাহ যতক্ষন উইকেটে ছিলেন ততক্ষণ মনে হচ্ছিল সহজেই জিতবে পাইরেটস। কিন্তু আরমান ফিরে আসার পর হঠাৎ করেই বিপর্যয়ে পড়ে পাইরেটস। তবে শেষ পর্যন্ত আবদুল কাদের রাসেলের দৃঢ়তায় ৪৩.৩ ওভারে ৩ উইকেট হাতে রেখে জয় নিশ্চিত করে পাইরটেস অব চিটাগাং। রাসের ৩১ রান করে অপরাজিত ছিলেন। এছাড়া আসিফ ৩১,রেজাউল করিম রাজিব ১২, আশরাফুল সৌকত ২৮ দলের জয়ে গুরুত্বপূর্ন ভুমিকা পালন করে। সিটি কর্পোরেশন একাদশের মনির ৪৭ রানে এবং আরাফাত ২৬ রানে ২টি করে উইকেট নেন। এছাড়া রনি, শহীদ এবং সাব্বির প্রত্যেকে তুলে নেন ১টি করে উইকেট।
এর আগে সকাল ৯টায় এম এ আজিজ স্টেডিয়ামে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে লিগের উদ্বোধন করেন সিটি মেয়র ও সিজেকেএস সাধারণ সম্পাদক আ জ ম নাছির উদ্দীন। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন স্পন্সর প্রতিষ্ঠান ইস্পাহানী গ্রুপ অব কোম্পানিজ এর চেয়ারম্যান মির্জা সালমান ইস্পাহানী। সিজেকেএস ক্রিকেট কমিটির ভাইস চেয়ারম্যান দিদারুল আলম চৌধুরীর সভাপতিত্বে এবং সিজেকেএস কাউন্সিলর ও ক্রিকেট কমিটির যুগ্ম সম্পাদক হাসান মুরাদ বিপ্লব এর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন সিজেকেএস নির্বাহী কমিটির সদস্য ও ক্রিকেট কমিটির সম্পাদক এ.কে.এম আবদুল হান্নান আকবর। অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ক্রিকেট কমিটির ভাইস চেয়ারম্যান আলহাজ্ব আলী আব্বাস, মিনহাজ উদ্দিন আহমেদ, সিজেকেএস যুগ্ম-সম্পাদক মো: আমিনুল ইসলাম, সিজেকেএস নির্বাহী সদস্য মোহাম্মদ ইউসুফ, সিজেকেএস কাউন্সিলর মো. ইসমাইল, রাশেদুর রহমান মিলন, ইস্পাহানী গ্রুপ অব কোম্পানীজের প্রতিনিধি আবদুল্লাহ্‌ আল মামুন প্রমুখ। আজও লিগে একটি খেলা অনুষ্ঠিত হবে। আজকের খেলায় অংশ নেবে এফএমসি স্পোর্টস এবং শতদল ক্লাব। এ খেলা অনুষ্ঠিত হবে এম এ আজিজ স্টেডিয়ামে।

x