নতুনদের পদচারণায় মুখর সিআইইউ

রবিবার , ১৩ জানুয়ারি, ২০১৯ at ৫:৫৫ অপরাহ্ণ
270

শীতের সকালে মিষ্টি রোদের আলো তখনও ছড়িয়ে যায়নি। ক্যাম্পাসের করিডোর দিয়ে ঢুকতেই চার-পাঁচজনের জটলা। কারও পিঠে ব্যাগ, কারও হাতে ডায়েরি। বেলা বাড়ার সঙ্গে-সঙ্গে বেড়ে যায় ভিড়। মুখর হয়ে ওঠে পুরো ক্যাম্পাস।
চিটাগং ইন্ডিপেন্ডেন্ট ইউনিভার্সিটি (সিআইইউ)-এর ২০১৯ সালের স্প্রিং সেমিস্টারের ক্লাস শুরুর প্রথম দিন আজ রবিবারের (১৩ জানুয়ারি) চিত্রটা ছিল ঠিক এমনই। তারুণ্যের পদচারণায় জমজমাট হয়ে ওঠে সবকটি অনুষদ ও বিভাগ।
ঘঁড়ির কাটা সকাল ৯টা বাজতেই নতুন ভর্তি হওয়া শিক্ষার্থীরা একজন-দু’জন করে আসতে থাকেন প্রিয় সিআইইউ ক্যাম্পাসে। শুরু হয় আলাপচারিতা।
ভেসে আসে ‘আমি ফয়সাল করিম। চিটাগং কলেজ থেকে এসেছি। ইচ্ছে আছে ভালো কিছু করার’ কিংবা ‘আব্বু-আম্মুর আশা ছিল ইংরেজি পড়বো। কিন্তু আমি বিবিএ ছাড়া চলতে পারি না’-এমন সব কথাবার্তা।
সিআইই ‘র উপাচার্য প্রফেসর ড. মাহফুজুল হক চৌধুরী নতুন ভর্তি হওয়া শিক্ষার্থীদের শুভেচ্ছা জানান। এ সময় তিনি তাদের সঙ্গে আলাপে মশগুল হয়ে পড়েন। ছাত্র-ছাত্রীরাও বিশ্ববিদ্যালয়ের অভিভাবককে কাছে পেয়ে তাদের স্বপ্নের কথা তুলে ধরেন।
উপাচার্য শিক্ষার্থীদের বেশি করে পাঠ্যবইয়ে ডুবে থাকার পরামর্শ দেন। বলেন, ‘যুগোপযুগী সিলেবাসে ছাত্র-ছাত্রীদের কর্মমুখী করে গড়ে তুলতে কাজ করে যাচ্ছি আমরা। শিক্ষার্থীদের যেকোনো সমস্যায় পাশে থাকবে এই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান।’
বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে প্রবেশ করেই ছাত্র-ছাত্রীরা দলবেধে নিজেদের স্কুল (অনুষদ) ও বিভাগগুলো খুঁজে নেন। লাজুকতা ভেঙে একধাপ সামনে এগিয়ে অনেকে সাহস নিয়ে সরাসরি চলে যান সিনিয়র শিক্ষকদের কক্ষে! কথা বলেন প্রাণখুলে। প্রশাসনিক কর্মকর্তাদের সঙ্গে ক্লাস রুটিন নিয়ে আলোচনা করেন কেউ কেউ।
সিআইইউ’র লাইব্রেরি ও অ্যামেরিকান কর্ণারেও ছিল নতুনদের ভিড়। কফির চুমুকে আড্ডা জমে ওঠে ক্যান্টিনেও। এ সময় তাদের গাইতে শোনা যায় ‘ওরে নীল দরিয়া অথবা এই মুখরিত জীবনের চলার বাঁকে’সহ দারুণসব গান।
সিআইইউ কর্তৃপক্ষ জানায়, বর্তমানে এখানে বিজনেস স্কুল, স্কুল অভ সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং, স্কুল অভ লিবারেল আর্টস অ্যান্ড সোশ্যাল সায়েন্স ও স্কুল অভ ল প্রোগ্রামের অধীনে রয়েছে একাধিক সব সাবজেক্ট। রয়েছে স্কলারশিপ ও পড়ালেখার পাশাপাশি ক্যাম্পাস জবের দারুণ সুযোগ।
কেমন লাগছে বিশ্ববিদ্যালয় জীবনের প্রথম দিন? প্রশ্ন করতেই ঠোঁটের কোণে হাসি দিয়ে সাইফুল আলম নামের একজন ছাত্র বলেন, ‘ভালো লাগছে। সবার সঙ্গে পরিচিত হয়েছি। ক্যাম্পাসের পরিবেশটা চমৎকার। দারুণ কাটবে সামনের দিনগুলো।’
নতুন বন্ধুদের সঙ্গে প্রথম দিনটি স্মরণীয় করে রাখতে মোবাইলে সেলফি তুলছিল আইরিন সুলতানা। তিনি বলেন, ‘মনের মতো কিছু বন্ধু পেয়েছি। ক্লাসের স্যারদেরও খুব পছন্দ হয়েছে। ভালো মানের শিক্ষা অর্জন করে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করে মেলে ধরতে চাই বিশ্বের বুকে।

x