ধোনির আউটে কান্নায় ভেঙে পড়েছিলেন রোহিত

হার্ট অ্যাটাকে মারা গেল এক ভারতীয় সমর্থক

স্পোর্টস ডেস্ক

শুক্রবার , ১২ জুলাই, ২০১৯ at ৮:১৭ পূর্বাহ্ণ
47

একজন ইতিহাসের অন্যতম সেরা অধিনায়ক। যার নেতৃত্বে সম্ভাব্য প্রায় সব শিরোপাই জিতেছে ভারত। অনেক ম্যাচেই শেষ দিকে এসে দলকে জিতিয়ে ড্রেসিংরুমে ফিরেছেন তিনি। আর অন্যজন এবারের বিশ্বকাপের সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক। পুরো আসর জুড়েই ছিলেন অবিশ্বাস্য রকমের ধারাবাহিক। মহেন্দ্র সিং ধোনি এবং রোহিত শর্মা দুজনেই কাঁদছেন। কারণটা অভিন্ন। অসংখ্য ম্যাচে শেষ প্রান্তে এসে জয় এনে দেওয়া ধোনি এবার আর এনে দিতে পারেননি জয়। বিশ্বকাপের ফাইনালেও তাই তুলতে পারেননি ভারতকে। ফাইনালে যাওয়ার লড়াইয়ে প্রথম সেমিফাইনালে নিউজিল্যান্ডের মুখোমুখি হয় ভারত। যেখানে প্রথমে ব্যাট করে তাদের সামনে ২৪০ রানের লক্ষ্য দাঁড় করায় কিউইরা। নিউজিল্যান্ডের দেওয়া লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে মাত্র ৫ রানে ভারত হারিয়ে ফেলে ৩ উইকেট।
স্কোর বোর্ডে ৯২ রান তুলতেই নেই আরো ৩ উইকেট। অর্থ্যাৎ ৯২ রানে শেষ হয়ে যায় ৬টি উইকেট। যদিও মাঝখানে ১১৬ রানের অবিশ্বাস্য জুটি গড়েন মহেন্দ্র সিং ধোনি ও রবীন্দ্র জাদেজা। কিন্তু শেষ পর্যন্ত আর দলকে ফাইনালে তুলতে পারেননি ধোনি। নিউজিল্যান্ডের কাছে ১৮ রানে হেরে এবারের আসর থেকে বিদায় নেয় ভারত। ইনিংস শেষ হওয়ার ৯ বল আগে ৭২ বলে ৫০ রান করে মার্টিন গাপটিলের থ্রোতে ধোনি ফিরে গেলেই কার্যত শেষ হয়ে যায় ভারতের বিশ্বকাপ স্বপ্ন। ওই আউটের পর ধোনির কান্নার পাশাপাশি ড্রেসিংরুমে রোহিতের কান্নার ভিডিও ইতোমধ্যেই ভাইরাল হয়েছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে।
এদিকে ফাইনাল খেলার স্বপ্ন নিয়ে ইংল্যান্ডে গেলেও বিশ্বকাপের সেমিফাইনাল থেকে বিদায় নিতে হয়েছে দুবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়ন ভারতকে। গত বুধবার জমজমাট এক ম্যাচে নিউজিল্যান্ডের কাছে ১৮ রানে হেরে আসর থেকে বাদ পড়ে তারা। টান টান উত্তেজনাপূর্ণ ওই ম্যাচে লড়াই করেও দলকে বাঁচাতে পারেননি ভারতীয় ব্যাটসম্যান মহেন্দ্র সিং ধোনি এবং রবীন্দ্র জাদেজা। ভারতের এমন হারের পর কাঁদতে কাঁদতে গ্যালারি ছেড়েছেন দেশটির সমর্থকরা। একই চরিত্র দেখা গেছে ভারতের মাটিতেও। টান টান উত্তেজনাপূর্ণ ম্যাচে বাড়তি চাপ নিতে না পেরে হার্ট অ্যাটাকে মারা যান এক ভারতীয় সমর্থক। শোকাহত এ ঘটনাটি ঘটে ইনিংসের ৪৯তম ওভারে ধোনি রানআউট হওয়ার পর। মৃত সেই ব্যক্তির নাম শ্রীকান্ত মাইতি।
নিজস্ব মালিকানায় কলকাতায় একটি ব্যবসা করতেন ৩৩ বছর বয়সী এই যুবক। নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ধোনি আউট হওয়ার পরপরই মাটিতে লুটিয়ে পড়েন তিনি। শেষ পর্যন্ত হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পথে রাস্তায় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন মাইতি। মাইতির অকাল মৃত্যু সম্পর্কে তার পাশের দোকানের মালিক শচিন ঘোষ বলেন, বিকট একটা শব্দ শোনার পর আমরা দৌড়ে যাই তার দোকানের কাছে। গিয়ে দেখি সে অচেতন হয়ে মাটিতে লুটিয়ে পড়ে আছে। এরপর আমরা তাকে খানাকুল হাসপাতালে নিয়ে যাই। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ তাকে দেখার সঙ্গে সঙ্গেই মৃত ঘোষণা করেন।

x