ধানমণ্ডির ৩২ নম্বর বাঙালীকে কাঁদাল অঝোর ধারায়

আজাদী ডেস্ক

শুক্রবার , ১০ আগস্ট, ২০১৮ at ৩:৩২ পূর্বাহ্ণ
140

বাঙালি জাতির বেদনাবিধুর শোকের মাস আগস্টের আজ দশম দিন। গভীর হয়েই বসেছে শোক। ৪৩ বছর পর আজও কাঁদাচ্ছে মানুষকে। যে বাঙালির জন্য এত ত্যাগ, এত তিতিক্ষা, বার বার ফিরে আসা মৃত্যুর দুয়ার থেকেসেই সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতাকে গুটিকয় লোভাতুর নরপিশাচ এমন নির্মমভাবে হত্যা করবেএমন ভাবনা অবিশ্বাস্য ছিল বাঙালির কাছেও।

আর তাই বার বার মনে করে মুখ, উজ্জ্বল চোখের দ্যুতি, আজও শ্রদ্ধায়, নৈবেদ্যে, প্রতিদিনপ্রতিক্ষণে ফিরে আসেন জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। বঙ্গবন্ধুকে যেদিন হত্যা করল নরপিশাচ ঘাতকরা, ঝলমলে আগস্টের উজ্জ্বল আকাশে, সেদিন ডানা মেলল মন খারাপের মেঘ। ছেঁড়া মেঘ কান্না হয়ে ঝরল মানুষের চোখ বেয়ে। আগস্ট এলেই সে মেঘ এখনও উড়ে এসে বসে বাঙালীর ঘরে ঘরে। পোড়ে অনুশোচনা ও অনুতাপের আগুনে।

ধানমণ্ডির ৩২ নম্বর সড়কের যে বাড়িটি একদিন স্বাধীনতার প্রশ্নে একই পথে নিয়ে এসেছিল বাঙালীকে, সেই বাড়িটিই বাঙালীকে কাঁদাল একদিন অঝোর ধারায়। বাড়িটির ব্যালকোনিতে দাঁড়ানো দৃঢ়চেতা যে নেতার অঙ্গুলি হেলনে বুকের ভেতর জ্বলত মুক্তির দ্রোহ, ঘাতক নরপিশাচদের কারণে সেই পিতাই একদিন মুখথুবড়ে পড়লেন বাঙালীর অনিবার্য সেই বাড়ির মেঝেতেই। সিঁড়ি গড়িয়ে বইল রক্তের ধারা। ঘাতকের বুলেট বিদ্ধ করল কালজয়ী মানুষ বঙ্গবন্ধুকেসপরিবারে। বিদ্ধ হলো গোটা বাঙালী, স্বাধীন বাংলাদেশ। রচিত হলো পৃথিবীর এ যাবতকালের সবচেয়ে ঘৃণ্য ও জঘন্যতম ইতিহাস।

x