ধরে রাখুন তারুণ্য

মেহজাবীন পায়েল

রবিবার , ২৭ জানুয়ারি, ২০১৯ at ৭:৩০ পূর্বাহ্ণ
88

শুধু সুন্দর মুখ আর টানটান ত্বকই তারুণ্যের চাবিকাঠি নয়। শরীরটাও থাকতে হবে টানটান আর সেজন্য চাই নিয়মিত কিছুক্ষণ শরীরচর্চা বা ব্যায়াম এবং মুক্ত বাতাস সেবন। শারীরিক এবং মানসিকভাবে ফিট থাকার জন্য বছরে অন্তত একবার ‘মেডিকেল চেকআপ’ করিয়ে নেওয়াও অত্যন্ত জরুরি।

সময়ের সাথে মানুষের বয়স বেড়েই চলে। জীবনের বাঁকে বাঁকে বয়সের ছাপ পড়তে থাকে চেহারায়, দেহে। কেউ চাইলেই আজীবন তারুণ্য ধরে রাখতে পারে না। তবু সবাই চায় তাকে দেখতে তরুণ লাগুক। বয়সের ছাপ লুকানোর জন্য নামী দামী ক্রিম, কসমেটিক্স ব্যবহার করে সাময়িকভাবে বয়সের ছাপ চেহারা থেকে দূর করা গেলেও দীর্ঘমেয়াদি ফল লাভ করা সম্ভব হয় না। কাজেই পোশাক, চুল, ত্বক ও দাড়ির স্টাইল সময়ের সাথে মিলিয়ে চলতে এবং নিজেকে তরুণ দেখাতে অনেক কিছুই করে থাকেন আপনি। সুন্দর ত্বক পেতে চাইলে শুধু অ্যান্টি-এজিং ক্রিম ব্যবহারই কি যথেষ্ট? স্বাভাবিকভাবেই উত্তরটি হবে, না। দীর্ঘদিন তারুণ্য ধরে রাখার জন্য প্রয়োজন অনেক কিছু। সুশৃঙ্খল জীবনযাত্রা, স্বাস্থ্যকর খাবার, হাঁটাচলা, ব্যায়াম, পজিটিভ চিন্তা করা, মনকে প্রফুল্ল রাখা আর এই সব কিছুর পাশাপাশি রূপচর্চা তো রয়েছেই।
আসুন জেনে নেই তারুণ্য ধরে রাখতে কী করবেন?
প্রকৃতির নিয়ম: প্রতিদিনই মানুষের একটু একটু করে বয়স বাড়ে, বিশেষ করে ২৫ বছর বয়সের পর থেকে ত্বকে তার প্রভাব পড়তে শুরু করে। তবে এটা কিন্তু কোনো দুঃসংবাদ নয়। পরিবর্তন এবং বিকাশ এটাই প্রকৃতির নিয়ম। শরীর, ত্বক, মন, অর্থাৎ পুরো মানুষটিই বদলায় ধীরে ধীরে।
শুধু জীন দায়ী নয়: মোটা মানুষ বা যাদের মোটা হওয়ার কারণে নানা অসুখ-বিসুখ রয়েছে, তাদের অনেককেই বলতে শোনা যায় যে জেনেটিক কারণেই নাকি তাদের এ অবস্থা৷ ব্যাপারটা পুরোপুরি ঠিক নয়, কারণ দেখা গেছে একই পরিবারে দুই ভাই বা দুই বোনের মধ্যে খাদ্যাভাস ও লাইফ স্টাইলের কারণে দু’জন দু’রকম হয়ে থাকে। কাজেই সচেতনতার কোনো বিকল্প নেই!
বেশি গুরুত্ব দেওয়া: বয়স বাড়া মানেই কোনো কিছু পরিত্যাগ করা নয়, বলেন ভিটেন-হ্যার্ডেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের ত্বক বিশেষজ্ঞ উলরিকে হাইনরিশ। বয়সের সাথে পরিবর্তন হওয়া স্বাভাবিক, তবে তাতে সৌন্দর্য হারাতে হবে এমন কোনো কথা নেই। বয়সের সাথে ত্বক পাতলা এবং শুস্ক হয়। তাই এমন ক্রিম বা কসমেটিক ব্যবহার করতে হবে যাতে ভিটামিন এ, সি এবং ই-থাকে।
অতিরিক্ত রোদ থেকে দূরে: চর্ম বিশেষজ্ঞদের মতে, সূর্যের অতিবেগুনি রশ্মি থেকে নিজেকে দূরে রাখা প্রয়োজন। এতে যে ত্বক সহজে বুড়িয়ে যায় তা নয়, এর ফলে ত্বকে ক্যানসারও হতে পারে৷ তাছাড়া আজকাল পরিবেশ দূষণও ত্বকে বিশেষভাবে প্রভাব ফেলে। তাই যতটা সম্ভব দূষণ থেকে নিজেকে দূরে রাখা এবং বাইরে থেকে ফিরে গোসল বা ভালো করে হাত-মুখ ধোয়া উচিত।
কসমেটিক: বর্তমানে সৌন্দর্য চর্চায় আবার আগের ট্রেন্ড ফিরে এসেছে, অর্থাৎ গাছগাছালির পাতা, রস, শেকড় ইত্যাদির তৈরি ভেষজ ক্রিম, পাউডার, তেল নানা কিছু এসে গেছে বাজারে। সৌন্দর্য পিপাসু অনেকেই আজকাল তাই সেদিকেই ঝুঁকছেন৷
খাওয়া-দাওয়া: সুস্থ আর সুন্দর থাকতে খাওয়া-দাওয়ার ভূমিকা অনেক। মানুষের শরীরে প্রোটিন, ভিটামিন, শর্করা, মিনারেল এগুলির দরকার। সব কিছুই খাওয়া উচিত, তবে একটা পরিমিতিবোধ থাকতে হবে।
শাক-সবজি: প্রচুর শাক-সবজি, ফল-মূল দৈনন্দিন খাবার তালিকায় থাকা প্রয়োজন। মুখ হচ্ছে শরীরের আয়না। অর্থাৎ শরীরের ভেতরটা ভালো থাকলে চোখে-মুখে তার প্রভাব তো পড়বেই।
নিয়মিত ব্যায়াম: শুধু সুন্দর মুখ আর টানটান ত্বকই তারুণ্যের চাবিকাঠি নয়। শরীরটাও থাকতে হবে টানটান আর সেজন্য চাই নিয়মিত কিছুক্ষণ শরীরচর্চা বা ব্যায়াম এবং মুক্ত বাতাস সেবন। শারীরিক এবং মানসিকভাবে ফিট থাকার জন্য বছরে অন্তত একবার ‘মেডিকেল চেকআপ’ করিয়ে নেওয়াও অত্যন্ত জরুরি।
সময়ের সাথে চলা: বয়স যতই হোক না কেন সময়ের সাথে কিছুটা তাল মিলিয়ে চলা বেশ প্রয়োজন। তবেই তো সমাজে সব বয়সিদের সাথে মিলেমিশে, একসঙ্গে চলা সম্ভব। নিজেকে তরুণ ভাবা এবং সব বিষয়ে আপডেট থাকা অবশ্যই এক্ষেত্রে একটা বড় ব্যাপার।
গ্রিন-টি: সৌন্দর্য চর্চা বা তারুণ্য ধরে রাখতে গ্রিন-টি বা সবুজ চায়ের জুড়ি নেই। এতে রয়েছে অ্যান্টি অক্সিডেন্ট। নিয়মিত গ্রিন-টি পান শরীরে ইতিবাচক প্রভাব ফেলে।

- Advertistment -