দ্য কনসার্ট ফর বাংলাদেশ: মুক্তিযুদ্ধের এক অসামান্য দলিল

বুধবার , ১ আগস্ট, ২০১৮ at ৬:০৬ পূর্বাহ্ণ
6

দ্য কনসার্ট ফর বাংলাদেশ’ বাংলাদেশের মহান মুক্তিযুদ্ধে স্বাধীনতার পক্ষে, যুদ্ধের নির্মম শিকার অসহায় মানুষের সহায়তার লক্ষ্যে বিশ্ব জনমত গড়ে তোলার এক অসামান্য দলিল। ১৯৭১ সালের ১ আগস্ট আমেরিকার নিউইয়র্ক শহরের মেডিসন স্কয়ারে আয়োজিত হয়েছিল ‘দ্য কনসার্ট ফর বাংলাদেশ’ শিরোনামের অবিস্মরণীয় এই সংগীত সন্ধ্যার। প্রায় চল্লিশ হাজার দর্শকশ্রোতা সমবেত হয়েছিল সেই অনুষ্ঠানে। বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধের ভয়াবহ দিনগুলোতে মুক্ত স্বদেশের জন্য ত্যাগ আর সংগ্রামের এক ইতিহাস রচনা করেছিল এদেশের মানুষ। এসময় তাঁদের পাশে এসে ভালোবাসার হাত বাড়িয়ে দিয়েছিল বিশ্বের বহু খ্যাতনামা কবি, সাহিত্যিক, গায়ক, বিজ্ঞানী সহ সাংস্কৃতিক অঙ্গনের নানা ব্যক্তিত্ব। ‘দ্য কনসার্ট ফর বাংলাদেশ’ ছিল ভালোবাসার এমনই এক অমূল্য নিদর্শন। ভারতের খ্যাতিমান সেতারবাদক পণ্ডিত রবি শঙ্কর এবং জর্জ হ্যারিসন, বব ডিলান, এরিখ ক্ল্যাপটন, বিলি প্রিস্টন, লিয়ন রাসেল, রিঙ্গো স্টার প্রমুখ খ্যাতিমান কণ্ঠশিল্পী অংশ নিয়েছিলেন এই অনুষ্ঠানে। উত্তাল আবেগময় সেই অনুষ্ঠান শুরু হয়েছিল বাংলাদেশের লোকসংগীতের ভিত্তিতে ‘বাংলাদেশ ধুন’ নামে সেতারে রবি শঙ্করের এক নতুন সুর পরিবেশনের মধ্য দিয়ে। তাঁর সাথে সরোদ বাজিয়েছেন ওস্তাদ আলী আকবর খান এবং তবলায় ছিলেন ওস্তাদ আল্লা রাখা খান। ‘বাংলাদেশ ধুন’ দর্শকশ্রোতাদের আবেগে আপ্লুত করে তোলে। এরপর শিল্পীরা পরিবেশন করেন গান। মার্কিন প্রতিবাদী গানের রাজা বব ডিলানের ছ’টি গান দারুণ উদ্বেলিত দর্শকদের অনুভূতিতে নাড়া দেয়। এই অনুষ্ঠানেই জর্জ হ্যারিসন পরিবেশন করেছিলেন বাংলাদেশকে নিয়ে লেখা তাঁর ঐতিহাসিক গান ‘রিলিজ দ্য পিপ্‌ল অব বাংলাদেশ’। এই গানটির মধ্য দিয়ে উপস্থিত দর্শকশ্রোতাদের হৃদয় আবেগে অভিভূত করে অনুষ্ঠানটি শেষ হয়। অনুষ্ঠান থেকে পাওয়া প্রায় আড়াই লক্ষ মার্কিন ডলার বাংলাদেশের বিপন্ন শিশু ও শরণার্থীদের সাহায্যের জন্য ব্যয় করা হয়। ১৯৭১ সালেই প্রকাশিত হয় এই অনুষ্ঠানের গানের একটি সংকলন। পরবর্তী সময়ে অনুষ্ঠানটির সরাসরি ধারণকৃত অংশ নিয়ে একটি তথ্যচিত্র ডিভিডি আকারে প্রকাশিত হয়।

x