দ্বিতীয় দিনেও বিচ্ছিন্ন বান্দরবানের সঙ্গে সড়ক যোগাযোগ

বান্দরবান প্রতিনিধি

বৃহস্পতিবার , ১১ জুলাই, ২০১৯ at ১০:৩৬ পূর্বাহ্ণ
130

অবিরাম ভারী বর্ষণ আর পাহাড়ি ঢলে প্রধান সড়ক প্লাবিত হওয়ায় বান্দরবানের সঙ্গে সারাদেশের সড়ক যোগাযোগ দ্বিতীয় দিনের মত বিচ্ছিন্ন রয়েছে। গতকাল বুধবারও চট্টগ্রাম, কক্সবাজার এবং ঢাকাগামী কোনো যাত্রীবাহী বাস শহর ছেড়ে যায়নি। তবে সড়ক যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন থাকায় নৌকা এবং রিক্সা-ভ্যানে করে ভেঙে ভেঙে চলাচলে বাধ্য হচ্ছে যাত্রীরা। এতে তাদের গুনতে হচ্ছে কয়েকগুণ বেশি ভাড়া। জেলা পরিবহন মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক শুভ্র দাশ ঝুন্টু বলেন, বান্দরবান-চট্টগ্রাম-কেরানীহাট প্রধান সড়ক থেকে বন্যার পানি এখনো নামেনি। দু’দিন ধরে এই সড়কে যানবাহন চলাচল বন্ধ রয়েছে। তবে পানির ওপর ঝুঁকি নিয়ে কিছু যানবাহন চলাচলের খবর পেয়েছি।
গত শনিবার থেকে বান্দরবানের সাতটি উপজেলায় ভারী বর্ষণ অব্যাহত রয়েছে। এ কারণে বাড়ছে পাহাড় ধসের শঙ্কা। গতকাল সকালে সদরের লেম্বুছড়ি এলাকায় পাহাড় ধসে ঘরবাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। তবে কোনো প্রাণহানির ঘটনা ঘটেনি। পাহাড় ধসের ঝুঁকিতে বসবাসকারীদের নিরাপদ আশ্রয়ে সরে যেতে প্রশাসনের পক্ষ থেকে নিয়মিত মাইকিং করা হচ্ছে। এদিকে বৃষ্টিপাতের পরিমাণ কিছুটা কমে যাওয়ায় সাঙ্গু নদীর পানি কিছুটা কমেছে। পাশাপাশি সদরের ইসলামপুর, শেরেবাংলা নগর, আর্মিপাড়াসহ আশপাশের প্লাবিত নিম্নাঞ্চল থেকে পানি নামতে শুরু করেছে। তবে এখনো নদী তীরবর্তী কয়েক শ ঘর-বাড়ি পানিতে তলিয়ে আছে।
জেলা প্রশাসক মো. দাউদুল ইসলাম বলেন, দুর্যোগ মোকাবেলায় জেলায় খোলা ১২৬টি আশ্রয় কেন্দ্রে প্রায় সাতশ দুর্গত মানুষ অবস্থান করছে। আশ্রয় কেন্দ্রে ত্রাণ তৎপরতাও অব্যাহত রয়েছে। প্রশাসনের দুর্যোগ মোকাবেলায় সব ধরনের প্রস্তুতি রয়েছে বলে জানান তিনি।

x