দেশে বিদেশে আলো ছড়াচ্ছেন বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা

সাক্ষাতকার গ্রহণে : সবুর শুভ

বৃহস্পতিবার , ১২ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ at ১০:৫১ পূর্বাহ্ণ
57


সৈয়দ তফাজ্জল হাসান হিরু। বরিশালে যুগ্ম জেলা ও দায়রা জজ হিসেবে কর্মরত। চকরিয়ার সন্তান। নগরীর বেসরকারি প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পাস করেছেন। আইন বিভাগের প্রথম ব্যাচের এ শিক্ষার্থী ২০০৭ সালে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বেরিয়ে যান এলএলবি ও এলএলএম সম্পন্ন করে। বিচারক হিসেবে ১২ বছরের কর্মজীবনে তাঁর হাত ছুঁয়ে নিষ্পত্তি হয়েছে হাজার হাজার মামলা। পেশাগত জীবনে কর্মদক্ষ ও কর্মনিষ্ঠ বিচারক হিসেবে ইতোমধ্যে পরিচিতি হয়েছেন চকরিয়ার এ সন্তান।
বর্তমানে বিচারক (যুগ্ম-জেলা ও দায়রা জজ) ল্যান্ড সার্ভে ট্রাইব্যুনাল, বরিশাল হিসেবে কাজ করছেন। এ ট্রাইব্যুনালে সাড়ে পাচঁ হাজার মামলা তারঁ সামনে। বিএস জরিপ সংক্রান্ত এ সব মামলা নিষ্পত্তিতে বিচারক হিসেবে দায়িত্ব পালন করে যাচেছন দক্ষতার সাথে। বিচারক সৈয়দ তফাজ্জল হাসান হিরু ১৯৯৯ সালে কঙবাজার সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় থেকে কৃতিত্বের সাথে এসএসসি পাস করেছেন। এইচএসসিতে চট্টগ্রাম সরকারি কলেজে ভর্তি হয়ে ২০০১ সালেও কৃতিত্ব দেখান পরীক্ষায়। এরপর ভর্তি হন প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগে।
চট্টগ্রামের এ কৃতী বিচারক ২০০৮ সালের ২২ মে বিচার অঙ্গনে যোগদান করেন। প্রথমে জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট হিসেবে সুনামগঞ্জে বিচারকাজ শুরু করেন। সেই থেকেই শুরু। পেছনে ফিরে তাকাননি। বিচার অঙ্গনে কাজ করে যাচেছন নিরন্তর।
সিনিয়র সহকারী জজ হিসেবে এরপর যোগদান করেন নোয়াখালী। বান্দরবানের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট হিসেবে দায়িত্ব পালনের পর যোগদেন ঢাকার সিনিয়র সহকারী জজের দায়িত্ব পালনে। এরপর পদোন্নতি পেয়ে গত বছরের ১২ জুন যোগদান করেন বরিশালে ল্যান্ড সার্ভে ট্রাইব্যুনালে।
এ বিষয়ে সৈয়দ তফাজ্জল হাসান হিরু জানান, বিচার অঙ্গনে কাজ করতে গিয়ে মানুষের দু:খ দুর্দশা লাঘবের চেষ্টায় আছি। প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয় আমাকে সেই সুযোগ করে দিয়েছে। চট্টগ্রামের সন্তান হিসেবে দেশ ও মানুষের জন্য খানিকটা কাজ করার সুযোগ পেয়ে নিজেকে গর্বিত মনে করি।
শিক্ষায় বহুদুর যাওয়ার অঙ্গীকার নিয়ে ২০০২ সালের জানুয়ারি মাসে প্রিমিয়ার ইউনিভার্সিটি শিক্ষা কার্যক্রম শুরু করে। চট্টলবীর খ্যাত রাজনৈতিক নেতা আলহাজ্ব এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরীর হাত ধরে এ বিশ্ববিদ্যালয়ের পথচলা। শুরুতে ২টি অনুষদের অধীনে বিভাগ ছিল ২টি। বর্তমানে প্রিমিয়ার ইউনিভার্সিটিতে ৬টি অনুষদের অধীনে ১০টি বিভাগ। এছাড়া প্রবর্তক মোড়ের দু’টি ভবন ছাড়াও দামপাড়ায়, হাজারি লেইনে, জিইসি’র মোড়ে আরও তিনটি সুবিশাল ও সুদৃশ্য ভবন রয়েছে। প্রিমিয়ার ইউনিভার্সিটিতে ১০ টি বিভাগের অন্যতম হচ্ছে আইন বিভাগ।
তথ্য অনুযায়ী, আইন বিভাগের কার্যক্রম শুরু হয় ২০০৩ সালের জুন মাসে । বর্তমানে এই বিভাগের চেয়ারম্যান তানজিনা আলম চৌধুরী। বিভাগটি প্রতিষ্ঠার পর থেকে মানসম্মত ও সর্বাধুনিক কারিকুলামের ভিত্তিতে অভিজ্ঞ শিক্ষকবৃন্দ এখানে শিক্ষার্থীদের শিক্ষা প্রদান করছেন। এক্ষেত্রে সহায়তার উদ্দেশ্যে প্রত্যেক শিক্ষকের, এছাড়া অফিসে অন্যান্য কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের ব্যবহারের জন্য ৩০টি কম্পিউটার রয়েছে। এছাড়াও বিভাগে রয়েছে ‘ডিবেট ক্লাব অব ল’ এবং ‘মুট কোর্ট ক্লাব’, যা শিক্ষার্থীদের বিতর্ক ও বিভিন্ন ধরনের আদালতের প্রক্রিয়ার সাথে পরিচিত করে।
বস্তুত যথাযথ আইন শিক্ষা, পাশাপাশি মানবিক শিক্ষা প্রদানের কারণে প্রিমিয়ার ইউনিভার্সিটির আইন বিভাগ বাংলাদেশের পাবলিক ও বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়সমূহের মধ্যে অগ্রগণ্য। এ আইন বিভাগ থেকে পাস করে ইতোমধ্যে দেশের বিচার অঙ্গনসহ সরকারি বেসরকারি পর্যায়ে কাজ করছেন অসংখ্য প্রাক্তন শিক্ষার্থী।

ড. মাহফুজা ফারুক। দেশের বাড়ি কুমিল্লায় হলেও ছোট বেলা থেকেই বসবাস নগরীর খুলশীতে। এসএসসি এইচএসসি দু‘টোই ইস্পাহানি পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজ থেকে। পড়ালেখায় বরাবরই ভাল ফলাফলে অধিকারী ছিলেন ড. মাহফুজা। এটিএম গোলাম ফারুক ও সৈয়দা মেহেরুন্নেসার তিন সন্তানের (দুই মেয়ে এক ছেলে) মধ্যে বাকী দুইজনের একজন ডাক্তার ও অপরজন ইঞ্জিনিয়ার। ড. মাহফুজা প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার বিজ্ঞান ও প্রকৌশল বিভাগের দ্বিতীযয় ব্যাচের ছাত্রী ছিলেন। বর্তমানে কমর্রত আছেন যুক্তরাষ্ট্রের পেনসিলভেনিয়া স্টেট ইউনিভার্সিটিতে কম্পিউটার বিজ্ঞান ও প্রকৌশল সহকারী অধ্যাপক হিসেবে কাজ করার মধ্যদিয়ে চট্টগ্রাম তথা দেশের সক্ষমতার বার্তা পৌঁছে দিচেছন বিশ্বময়। এ কৃতী ব্যক্তিত্ব প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতক শেষ করার পর মর্যাদাপূর্ণ ইরাসমাস মুন্ডুস স্কলারশিপ নিয়ে প্রথমে স্পেন ও পরের বছর জার্মানি থেকে স্নাতকোত্তর সম্পন্ন করেন। এরপরে ফ্রান্সের French National Center for Scientific Research Gi Ecole polytechnic, peris থেকে ডক্টরেট ডিগ্রী লাভ করেন। পিএইচডি শেষ করার পর তিনি যুক্তরাষ্ট্রের একটি কোম্পানিতে ইঞ্জিনিয়ার হিসেবে কাজ করেন এবং বর্তমান কর্মস্থানে যোগ দেন। এ বিষয়ে আমেরিকায় তার সাথে কথা বলেেল তিনি জানান, ২০১৫ সালে আমি আমেরিকায় আসি। চট্টগ্রামের সন্তান হিসেবে গর্ববোধ করি। পড়াশুনার সম্পন্ন করে ২০১৪ সালের জানুয়ারি থেকে মে পর্যন্ত প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ে সহকারী অধ্যাপক হিসেবেও কাজ করি। ২০১৫ সালের আগস্ট মাসে বর্তমান কর্মস্থল পেনসিলভেনিয়া স্টেট ইউনিভার্সিটিতে যোগদান করি।
প্রিমিয়ার ইউনিভার্সিটি ২০০২ সালে যেসব বিভাগ নিয়ে যাত্রা শুরু করেছিল তার মধ্যে কম্পিউটার সায়েন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং (সিএসই) বিভাগ ছিল অন্যতম। বর্তমানে প্রকৌশল অনুষদের ডিন ও এই বিভাগের চেয়ারম্যান প্রফেসর ড. তৌফিক সাঈদ।
এই বিভাগে শিক্ষার্থীদের শিক্ষা প্রদানের জন্য অভিজ্ঞ শিক্ষকমণ্ডলি ছাড়াও রয়েছে প্রয়োজনীয় সকল সুবিধা। এখানে ২০০টি কম্পিউটার নিয়ে গঠিত ৫টি কম্পিউটার ল্যাব ব্যবহার করা হয়। পাশাপাশি রয়েছে ২টি সার্কিট ও ইলেকট্রনিঙ, ১টি কমিউনিকেশন এবং ১টি মাইক্রোপ্রসেসর ল্যাব। এছাড়াও প্রত্যেক শিক্ষক ও অফিসে অন্যান্য কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ব্যবহারের জন্য আরও ৪০টি কম্পিউটার রয়েছে। এই বিভাগ প্রতিষ্ঠার পর থেকে বিভিন্ন ধাপে রিভিউর মাধ্যমে একটি উন্নত কারিকুলাম শিক্ষা দানের ভিত্তি হিসেবে কাজ করছে।
বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি স্বনাম খ্যাত উপাচার্য সমাজ বিজ্ঞানী ড. অনুপম সেনের সুদক্ষ নেতৃত্বে এগিয়ে চলা এ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা যে দেশ বিদেশে নিজেদেরকে প্রতিষ্ঠা করার মধ্যদিয়ে চট্টগ্রাম তথা বাংলাদেশকে প্রমোট করছে এটা তারই প্রমাণ।

x