দৃষ্টির তারুণ্যের আড্ডা

মঙ্গলবার , ১৭ এপ্রিল, ২০১৮ at ১২:১৫ অপরাহ্ণ
52

নগরীর থিয়েটার ইনস্টিটিউট লেকচার হল মিলনায়তনে গতকাল দৃষ্টি চট্টগ্রামের নিয়মিত আয়োজন ‘দৃষ্টি আড্ডা’র তৃতীয় প্রযোজনা অনুষ্ঠিত হয়। দৃষ্টি চট্টগ্রামের সদস্যদের আবৃত্তি ও সঙ্গীত পরিবেশনার মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠান শুরু হয়। অনুষ্ঠানে লেখক ও সাংবাদিক রাশেদ রউফ তাঁর শৈশবকৈশোর, লেখালেখির সূত্রপাত ও কর্মজীবনসহ বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা করেন।

রাশেদ রউফ বলেন, ‘চট্টগ্রামের অত্যন্ত সাধারণ পরিবারের সন্তান আমি, যে পরিচয় নিয়ে আমি গর্ববোধ করি।’ লেখালেখির সূত্রপাত সম্পর্কে তিনি বলেন, ‘স্কুল জীবন থেকেই আমার লেখালেখির সূত্রপাত। যেটির মাধ্যমে আজ আমার এত পরিচিতি। কেন জানি লেখালেখির মাঝেই আমি খুঁজে পেতাম আমার মানসিক শান্তির আধার।’ অনুষ্ঠানের উপস্থাপক ও দৃষ্টি চট্টগ্রামের সাংগঠনিক সম্পাদক কাজী আরফাতের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘আমি পড়ালেখা করেছি গণিত নিয়ে, পাস করার পর ভবিষ্যৎ নিয়ে চিন্তা করেছি। কিন্তু একটুর জন্যও লেখালেখির প্রতি টান কখনো কমেনি। যখন আমার কাছে একই সাথে অধ্যাপনা ও দৈনিক আজাদীতে সাংবাদিকতার আহ্বান এলো, আমি কোনো দ্বিধাবোধ না করেই সাংবাদিকতাকে পেশা হিসেবে বেছে নিলাম।’ দৃষ্টির সভাপতি মাসুদ বকুল বলেন, ‘দৃষ্টি আজ ২৬ বছর পেরিয়ে ২৭ বছরে পা দিয়েছে। দৃষ্টির পথচলা যাদেরকে নিয়ে শুরু হয়েছিল তাদেরকে আমাদের ভবিষ্যৎ প্রজন্মের সাথে পরিচয় করিয়ে দেয়ার অংশ হিসেবে এই আয়োজন।’ শিক্ষাবিদ অধ্যক্ষ অনোয়ারা আলম বলেন, ‘সাংগঠনিকতা, সৃজনশীলতা, সততার দিকে রাশেদ রউফের আপোষহীনতা সত্যিই অনুসরণীয়।’

অনুষ্ঠানের এক পর্যায়ে দৃষ্টির নির্বাহী সদস্য, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের জীবপ্রযুক্তি ও জীনপ্রকৌশল বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ড. আদনান মান্নান বলেন, ‘শিশুসাহিত্য একটি শিল্প। কারণ এতে শিশুর মনস্তত্ব, আবেগ ও কোমলতাকে বুঝতে হয়, যেটি রাশেদ রউফ বাস্তবিকভাবে ফুটিয়ে তুলেছেন।’ দৃষ্টি চট্টগ্রামের সিনিয়র সহসভাপতি সাইফ চৌধুরী সমাপনী বক্তব্যে বলেন, ‘আমাদের পথচলা আজ ২৭ বছর ধরে এবং এই পথচলায় আমরা পেয়েছি রাশেদ রউফকে।’ এই অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন দৃষ্টির সহসভাপতি শহীদুল ইসলাম হিরো, সাধারণ সম্পাদক সাবের শাহ, সহসম্পাদক রিদোয়ান আলম আদনান, মুন্না মজুমদার, সৌরভ নাথ, অনির্বাণ বড়ুয়া ও উপ সম্পাদক হাসান জাদিদ মাশরুখ। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।

x