দু পক্ষকে নিয়ে বৈঠক করে পরিস্থিতি স্বাভাবিক করলেন মেয়র

পরিচ্ছন্ন কর্মকর্তাকে মারধরের অভিযোগে সিবিএ’র বিক্ষোভ

আজাদী প্রতিবেদন

শুক্রবার , ১৫ মার্চ, ২০১৯ at ১০:১০ পূর্বাহ্ণ
795

কাউন্সিলর কর্তৃক চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের পরিচ্ছন্ন কর্মকর্তাকে মারধরের ঘটনায় সৃষ্ট পরিস্থিতি মেয়রের হসত্মড়্গেপে নিয়ন্ত্রণে এসেছে। গতকাল দুপুরে দু’পক্ষকে নিয়ে বৈঠকের মধ্য দিয়ে বিষয়টির সমাধান করেন মেয়র আ.জ.ম নাছির উদ্দীন।
এর আগে সকালে নগর ভবনে অভিযুক্ত কাউন্সিলরের বিচার দাবিতে বিক্ষোভ সমাবেশ করে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন শ্রমিক কর্মচারী লীগ (সিবিএ)। বিক্ষোভ চলাকালে মেয়র সেখানে উপস্থিত হয়ে বিষয়টি সমাধানের আশ্বাস দেন।
সংশিস্নষ্টরা বলেছেন, গত বুধবার সন্ধ্যা পৌনে ৬টায় পরিচ্ছন্ন কর্মকর্তা মো.মোরশেদুল আলমকে মারধরের অভিযোগ উঠে ৩৪ নম্বর পাথরঘাটা ওয়ার্ড কাউন্সিলর ইসমাইল হোসেন বালির বিরুদ্ধে। এ বিষয়ে তিনি মেয়রের কাছে লিখিত অভিযোগও দেন। লিখিত অভিযোগে পরিচ্ছন্ন কর্মকর্তা মো. মোরশেদুল আলম দাবি করেছেন, সন্ধ্যা পৌনে ৬টার দিকে তিনি প্রধান পরিচ্ছন্ন কর্মকর্তার কড়্গে বসে কথা বলছিলেন। এসময় ইসমাইল হোসেন বালি সেখানে ঢুকে তাকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ শুরু করেন। প্রতিবাদ না করে স্থান ত্যাগ করার সময় কাউন্সিলর তার পেছনে এসে তার গায়ে হাত তোলেন এবং লাথি মারেন বলেও লিখিত অভিযোগে দাবি করা হয়। একপর্যায়ে কাউন্সিলর তাকে প্রাণনাশের হুমকি দেন বলেও দাবি করেন পরিচ্ছন্ন কর্মকর্তা মোরশেদুল আলম।
এদিকে এ ঘটনার প্রতিবাদে গতকাল সকাল থেকে নগর ভবনের সামনে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন শ্রমিক কর্মচারী লীগ (সিবিএ) এর ব্যানারে অবস্থান নেয় কর্পোরেশনের কর্মচারিরা। তারা সেখানে বিক্ষোভ করেন। এক পর্যায়ে সিটি মেয়র সেখানে উপস্থিত হয়ে বিষয়টি সমাধানের আশ্বাস দিলে কর্মসূচি স্থগিত করেন শ্রমিকরা। পরে দুপুরে মেয়র পরিচ্ছন্ন কর্মকর্তা মোরশেদ ও কাউন্সিলর বালিসহ কর্পোরেশনের অন্যান্য কাউন্সিলরদের নিয়ে বৈঠক করেন।
বৈঠকে মেয়র বলন, কাউন্সিলর ইসমাইল ও পরিচ্ছন্ন কর্মকর্তা মোরশেদুল আলমের মধ্যে ভুল বুঝাবুঝির খবর শুনে আমি তা নিরসনের উদ্যোগ নিয়েছি। এ ধরনের ঘটনা অনাকাঙিক্ষত। আমি মনে করি- কর্পোরেশনে কর্মরত সকল কর্মকর্তা-কর্মচারি, মেয়র-কাউন্সিলর সহ আমরা একটি পরিবার। আমাদের মধ্যে ভ্রাতৃত্ব ও সৌহার্দপূর্ণ সম্পর্ক বজায় থাকলে কর্পোরেশনের কাজকর্ম গতিশীল থাকবে। তাই কাউন্সিলর ও কর্মকর্তা-কর্মচারিদের নিজ দায়িত্ব পালনে সর্বদা সচেষ্ট থাকতে হবে। তাহলেই নাগরিক সেবা সুনিশ্চিত করা সহজ হবে। তাই কোন কারণে নিজেদের মাঝে ভুল বুঝাবুঝি হলে আমাকে জানাবেন। প্রয়োজনে আলাপ-আলোচনা করে এর অবসান করবো। পরে মেয়র দু’জনকে করমর্দনের মাধ্যমে সৃষ্ট সমস্যার অবসান ঘটান।
বৈঠকে প্যানেল মেয়র কাউন্সিলর চৌধুরী হাসান মাহমুদ হাসনী, কাউন্সিলর শৈবাল দাশ সুমন, এইচ এম সোহেল, হাসান মুরাদ বিপস্নব, মোহাম্মদ আজম, কফিল উদ্দীন খান, মো. জয়নাল আবেদীন, জুবায়ের আহমদ, সাইয়েদ গোলাম হায়দার মিন্টু, মুহাম্মদ সলিমুলস্নাহ, মো.গিয়াস উদ্দীন, সংরড়্গিত ওয়ার্ড কাউন্সিলর আফরোজা কালাম, আবিদা আজাদ, আনজুমান আরা, ফারজানা পারভীন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।
এতে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন শ্রমিক কর্মচারী লীগ (সিবিএ) সভাপতি ফরিদ আহমদ, সিনিয়র সহ সভাপতি জাহিদুল আলম চৌধুরী, মো. ইয়াছিন, সহ সাধারণ সম্পাদক রতন দত্ত উপস্থিত ছিলন।
এবিষয়ে পরিচ্ছন্ন কর্মকর্তা মোরশেদুল আলম দৈনিক আজাদীকে বলেন, ‘সিবিএ বিক্ষোভ করার সময় মেয়র মহোদয় এসে সমাধানের আশ্বাস দেন। পরে সবাইকে নিয়ে বৈঠক করেন। মেয়র মহোদয় বলেছেন, আমরা সবাই একটি পরিবারের মত। সবাই মিলে-মিশে কাজ করে নাগরিক সেবা নিশ্চিত করতে হবে। মেয়র মহোদয়ের আনত্মরিকতায় সবকিছু সমাধান হয়েছে। কাউন্সিলর ইসমাইল বালি ঘটনার জন্য দু:খ প্রকাশ করেছেন বলেও জানান এ পরিচ্ছন্ন কর্মকর্তা।
এবিষয়ে কাউন্সিলর ইসমাইল বালি দৈনিক আজাদীকে বলেন, মেয়র মহোদয় আমাদের অভিভাবক। মেয়র মহোদয়ের হসত্মড়্গেপে সব ভুল বুঝাবুঝির অবসান হয়েছে। আসলে আমরা সবাই একটি পরিবার। সবাইকে মিলে-মিশে কাজ করতে বলেছেন মেয়র মহোদয়।

x