দুদকের গণশুনানির পর নড়েচড়ে বসেছে পিডিবি

আত্মহত্যায় প্ররোচনাকারী পিডিবির সেই কর্মচারী চাকরিচ্যুত, কারাভোগকারী ছৈয়দের ঘটনার তদন্ত জোরদার

সোহেল মারমা

সোমবার , ২ এপ্রিল, ২০১৮ at ২:৫১ পূর্বাহ্ণ
423

দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) এর গণশুনানির পর নড়েচড়ে বসেছে পিডিবি চট্টগ্রাম কর্তৃপক্ষ। সেই গণশুনানিতে গৃহীত সিদ্ধান্তগুলোর বাস্তবায়ন শুরু করেছেন প্রতিষ্ঠানটির উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা। ইতোমধ্যে গ্রাহককে আত্মহত্যায় প্ররোচনা করা পিডিবির সেই অস্থায়ী কর্মচারীকে চাকরিচ্যুত করা হয়েছে। হয়রানির প্রতিবাদ করতে এসে চকরিয়ায় বিদ্যুৎ কর্মকর্তাদের রোষানলে পড়ে কারাভোগ করা গ্রাহক ছৈয়দুল আলমের মামলাটির ব্যাপারেও তদন্ত জোরদার করা হয়েছে। এছাড়া প্রত্যেক বিতরণ কোম্পানিগুলো সপ্তাহে একবার গণশুনানি আয়োজন করাসহ আরও কিছু উদ্যোগ হাতে নিয়েছে।

পিডিবি বিতরণ দক্ষিণাঞ্চলের প্রধান প্রকৌশলী প্রবীর কুমার সেন এসব উদ্যোগ নেওয়ার ব্যাপারে গতকাল আজাদীকে নিশ্চিত করেছেন। প্রবীর কুমার বলেন, গণশুনানিতে গ্রাহকের অভিযোগের ভিত্তিতে ইতোমধ্যে নিউমুরিং বিক্রয় ও বিতরণ বিভাগে ওমর ফারুক নামে পিডিবির অস্থায়ী এক কর্মচারিকে চাকুরিচ্যুত করা হয়েছে। তবে অন্যান্য কর্মচারিদের অভিযোগের বিষয়ে সত্যতা পাওয়া যাইনি। ওদের বিষয়ে গ্রাহকরা অতিরঞ্জিত করে বলেছেন। গ্রাহকদেরও কিছু দোষ আছে বলে জানান পিডিবির এই কর্মকর্তা। এছাড়া অতিরিক্ত বিদ্যুৎ বিলের ব্যাপারে যাচাই বাছাই করে তা সমন্বয় করতে বিতরণ বিভাগগুলোকে বলা হয়েছে বলেও জানান তিনি।

পিডিবির ঊর্ধ্বতন এই কর্মকর্তা আরো বলেন, চকরিয়া উপজেলার গ্রাহক ছৈয়দ আলমের বিদ্যুৎ সংযোগের ব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার জন্য বলা হয়েছে। এছাড়া তার বিরুদ্ধে যে অভিযোগের ভিত্তিতে মামলাটি করা হয়েছিল, সেটার সত্যতা যাচাইয়ের জন্য তিন সদস্য বিশিষ্ট একটি কমিটি করে দেয়া হয়েছে। এই কমিটি আগামী দু’দিনের মধ্যে তাদের প্রতিবেদন জমা দিবে। সেই প্রতিবেদনের ভিত্তিতেই পরবর্তীতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে। গত ৩১ মার্চ কমিটির সদস্যরা চকরিয়া এলাকায় গিয়ে গ্রাহকের বিদ্যুৎ সংযোগের স্থানটি পরিদর্শন করেছেন এবং সেখানে প্রয়োজনীয় তদন্ত কাজ চালিয়েছেন। তবে এখন মামলার তদন্তের স্বার্থে কিছু বলা যাচ্ছে না বলে জানিয়েছেন বিতরণ দক্ষিণাঞ্চলের প্রধান এ কর্মকর্তা। এদিকে গ্রাহক সেবার মান নিশ্চিতে প্রতি সপ্তাহের শনিবার ৩টা থেকে ৫টা পর্যন্ত গণশুনানি করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছিল। নির্ধারিত সময়ে পিডিবির বিতরণ দক্ষিণাঞ্চলের অধীনে গত শনিবার বিভিন্ন বিতরণ বিভাগগুলোতে এ গণশুনানির আয়োজন করা হয়েছে। এসময় উল্লেখযোগ্য সংখ্যক গ্রাহক এ গণশুনানিতে অংশগ্রহণ করেন বলে জানা যায়।

পিডিবির প্রধান প্রকৌশলী বলেন, গত শনিবার বিতরণ বিভাগগুলো গণশুনানি আয়োজন করেছে। যতদিন পারা যায় ততদিন এই গণশুনানি কার্যক্রম চালিয়ে যাওয়া হবে বলে জানিয়েছেন তিনি। তবে পিডিবির বিরুদ্ধে গ্রাহকদের ট্রান্সফরমার পাওয়ার দীর্ঘসূত্রতার যে অভিযোগ তোলা হয়েছে তা মোটেও সঠিক নয়, বললেন প্রধান প্রকৌশলী।

পিডিবিতে এখন ট্রান্সফরমার স্থাপনে দীর্ঘসূত্রতার কোনো ঝামেলা নেই জানিয়ে তিনি বলেন, কোথাও কোনো ট্রান্সফরমার নষ্ট বা খারাপ হলে দ্রুত এবং অল্প সময়ে সেসব ট্রান্সফরমার ঠিক করে দেয়া হচ্ছে। গ্রাহকদের ট্রান্সফরমার নিয়ে ভোগান্তি আগে থাকলেও বর্তমানে তা নেই। কোনো জায়গায় ট্রান্সফরমার নষ্ট বা খারাপ থাকলে পিডিবিকে দ্রুত জানাতে বললেন এই কর্মকর্তা। এছাড়া গণশুনানিতে কোনো গ্রাহক ট্রান্সফরমার নিয়ে ভোগান্তির অভিযোগ তুলেন নি বলেও জানান তিনি।

প্রবীর কুমার সেন বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আজ বিদ্যুৎ খাতে দেশ স্বয়ংসম্পূর্ণতা অর্জন করেছে। তবে কেন এখনো নগরীতে লোডশেডিং হচ্ছে এমন প্রশ্নের জবাবে পিডিবির এই কর্মকর্তা বলেন, আগে যেখানে ১৫১৬ ঘণ্টা লোডশেডিং এর মধ্যে থাকতে হত। এখন কি সেটা দেখা যাচ্ছে? তিনি বলেন, বর্তমানে লোডশেডিং নেই বললেই চলে। যেটা হচ্ছে সেটা কোনো লোডশেডিং নয়। তিনি আরো বলেন, পিডিবি কয়েক লাখ গ্রাহককে বিদ্যুৎ সেবা দিয়ে আসছে। এখানকার বিদ্যুতের চাহিদা বর্তমানে ১২ থেকে ১৪’শ মেগাওয়াট পর্যন্ত হয়ে থাকে। এই বিপুল পরিমাণ বিদ্যুতের লোড কিন্তু আমরা গ্রাহকদের দিয়ে যাচ্ছি। এতে করে সামান্য কিছু অভিযোগ তো থাকবে। তবে গ্রাহকেরা যাতে নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সেবা পায় সেটা নিশ্চিত করতে সব ধরনের প্রচেষ্টা চালিয়ে যাওয়া হচ্ছে বলে জানান পিডিবি এই কর্মকর্তা।

উল্লেখ্য, গত ২৮ মার্চ আগ্রাবাদে বিদ্যুৎ ভবনে একটি গণশুনানি আয়োজন করে দুদক। সেই শুনানিতে উপস্থিত ছিলেন দুদক কমিশনার ড. নাসির উদ্দিন আহমদ। দুদকের উপস্থিতিতে পিডিবি কর্মকর্তাদের সামনে এসময় ৩৮ জন বিদ্যুৎ গ্রাহক তাদের অভিযোগ উত্থাপন করেন। এর মধ্যে হয়রানির প্রতিবাদ করতে গিয়ে পিডিবি কর্মকর্তাদের সাথে দ্বন্দ্বে জড়িয়ে একজন গ্রাহককে কারাভোগ করতে হচ্ছে বলেও শুনানিতে অভিযোগ উঠে। এছাড়া বিদ্যুৎ বিলের গরমিলের সমাধান চাইতে যাওয়ায় এক গ্রাহককে পিডিবির কর্মচারি ওমর ফারুক সমাধান না দিয়ে বিদ্যুৎ ভবনের চারতলা থেকে লাফ দিয়ে আত্মহত্যা করতে বলেছেন বলেও অভিযোগ উঠে। পরে দুদক কমিশনার ঐ মিটার রিডারের বিরুদ্ধে তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা নিতে বলেন বিদ্যুৎ কর্মকর্তাদের। পরে তিনি প্রতি শনিবার বিকেল ৩টা থেকে ৫টা পর্যন্ত পিডিবির ১২টি বিক্রয় ও বিতরণ বিভাগে গণশুনানি আয়োজন, পিডিবির গ্রাহকদের সেবার মান বাড়াতে একটি হটলাইন নম্বর চালু এবং আসন্ন রমজানে নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহ করতে উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের পরামর্শ দেন।

x