দুদককে কার্যকর ভূমিকা পালন করতে হবে

রবিবার , ৯ জুন, ২০১৯ at ১০:৩৭ পূর্বাহ্ণ
11

দুর্নীতি দমন কমিশনকে স্বাধীন, শক্তিশালী এবং সরকারের প্রভাব ও নিয়ন্ত্রণ মুক্ত করা উচিত বলে মনে করি। গত কয়েক বছরে দেশে যে দুর্নীতির মচ্ছব সংঘটিত হয়েছে এবং একই কারণে টিআইবি কর্তৃক বিশ্বের সবচেয়ে বেশি দুর্নীতি পরায়ণ দেশ হিসেবে আখ্যায়িত হয়েছে, সেই দুর্নাম ঘুচানোর জন্য এবং জন সাধারণের দেওয়া শুল্ক কর রাজস্ব ও বৈদেশিক ঋণ যাতে দুর্নীতিবাজদের পকেটে যেতে না পারে সেই লক্ষ্যে দুদককে শক্তিশালী এবং সক্রিয় করার সর্বোচ্চ প্রয়োজনীয়তা দেখা দিয়েছে। দুর্নীতির মূলোৎপাটন হোক, তা কিছু সংখ্যক দুর্নীতিবাজ ছাড়া দেশের প্রত্যেক নাগরিক মনে প্রাণে চাইছেন। এদেশে গত কয়েক বছরে শিক্ষা, বিদ্যুৎ, যোগাযোগ, স্বাস্থ্য ও অন্যান্য অত্যাবশ্যক খাতসহ প্রত্যেকটি সরকারি কর্মকান্ডে জনগণের করের টাকা ও বৈদেশিক ঋণের বিরাট অংশ দুর্নীতিবাজদের পকেটে চলে গেছে। ফলে নিম্নমানের কাজ সম্পন্ন হয়েছে, অথবা কাজ একেবারেই হয়নি। দুর্নীতিবাজরা এ কালো টাকা দিয়ে বাড়ি গাড়ি কিনেছে, বিলাসী জীবন যাপন করছে এবং নির্বাচনে অর্থ ও পেশিশক্তি প্রয়োগ করে জয়ী হওয়ার পরিকল্পনা করছে। পত্রিকায় প্রকাশিত সংবাদে জানা যায়, বড় দুর্নীতিবাজরা একের পর এক ছাড়া পেয়ে যাচ্ছে। তখন কষ্ট না পেয়ে উপায় থাকে না। সর্বজনস্বীকৃত দুর্নীতিবাজরা ছাড়া পেলে দেশের মানুষের মধ্যে দুদক সম্পর্কে বিরূপ ধারণা সৃষ্টি হবে। দুর্নীতি দমনের নামে প্রভাবশালী ও সরকারি কর্মকর্তাকে (প্রায় তিন হাজার) দুদক থেকে অব্যাহতিপত্র দেওয়া হয়েছে। তারা অবৈধ উপায়ে বিশাল সম্পদের মালিক হওয়া সত্ত্বেও কিভাবে দুদক থেকে অব্যাহতি পেলেন? বিভিন্ন সরকারি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের মতো আলোচিত ঘটনাগুলো দুদকের সততা ও সামর্থ্য যে দারুণভাবে প্রশ্নবিদ্ধ হয়েছে তা বলার অপেক্ষা রাখে না। এখন যে হারে দেশ থেকে বিদেশে অর্থ পাচার হচ্ছে, এ ব্যাপারে দুদকের নীরবতা সত্যি দুঃখজনক। ক্ষমতা ধর ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে ক্ষমতার অপব্যবহার ও দুর্নীতির অভিযোগে অভিযুক্ত করা এবং দেশের প্রচলিত আইনে তাদের শাস্তির ব্যবস্থা করার মধ্যেই দুদকের স্বার্থকতা। যে জন্য সৎ ও নিষ্ঠাবান তদন্ত কর্মকর্তারা তথ্য প্রমাণের ভিত্তিতে যথাযথ অনুসন্ধান ও তদন্ত করবেন এটা নাগরিকদের কাম্য। দেশ ও জাতির স্বার্থে দুদককে সৎ ও নিষ্ঠার সংগে দুর্নীতিবাজদের বিরুদ্ধে কঠোর ও কার্যকর ভূমিকা পালনের জন্য অনুরোধ করছি।
এম. এ. গফুর, বলুয়ার দীঘির দক্ষিণ-পশ্চিম পাড়, কোরবানীগঞ্জ, চট্টগ্রাম।

x