দশ বছর পর পাকিস্তানে খেলতে যাবে শ্রীলংকা

সোমবার , ১৯ আগস্ট, ২০১৯ at ৮:৪৩ পূর্বাহ্ণ
31

২০০৯ সালে লাহোরে শ্রীলংকান ক্রিকেটারদের ওপর নারকীয় হামলার পর থেকে পাকিস্তানে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট বন্ধ। তবে গত দুই-তিন বছরে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের (পিসিবি) চেষ্টার ফলে স্বল্প পরিসরে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ফিরেছে দেশটিতে। কয়েকটি টি-টোয়েন্টি এবং ওয়ানডে ম্যাচ অনুষ্ঠিত হয়েছে সেখানে। যদিও এখনও পর্যন্ত কোনো টেস্ট অনুষ্ঠিত হয়নি পাকিস্তানের মাটিতে। অর্থ্যাৎ প্রায় ১০ বছরেরও বেশি সময় ধরে টেস্টের বল গড়াচ্ছে না পাকিস্তানের কোনো স্টেডিয়ামে। তবে এবার পাকিস্তানের মাটিতে টেস্ট ম্যাচ অনুষ্ঠিত হওয়ার সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে এবং শ্রলিংকাই হতে পারে সেই ঐতিহাসিক টেস্টে পাকিস্তানের প্রতিপক্ষ।
যেভাবে পাকিস্তান এগুচ্ছে, তাতে চলতি বছরের শেষ দিকেই দেশটিতে অনুষ্ঠিত হতে পারে টেস্ট ম্যাচটি। ইতিমধ্যেই শ্রীলংকার একটি নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞ দল পাকিস্তানে এসে তাদের জন্য নেয়া নিরাপত্তা ব্যবস্থা পর্যবেক্ষণ করে গেছে। তাদের রিপোর্ট ইতিবাচক হওয়ার ফলেই পাকিস্তানের মাটিতে টেস্ট ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হওয়ার জোরালো সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে। শ্রীলংকার বিপক্ষে এই টেস্ট ম্যাচটিই হবে পাকিস্তানের বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের প্রথম ম্যাচ। যদিও সিরিজটি অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা নিরপেক্ষা ভেন্যুতে। কিন্তু পাকিস্তানই শ্রীলংকাকে প্রস্তাব দিয়েছে অন্তত সিরিজের একটি ম্যাচ হলেও তাদের মাটিতে গিয়ে খেলার জন্য। সেই প্রস্তাবের কারণেই মোন ডি সিলভার নেতৃত্বে নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞ দলটি সফর করে এসেছে পাকিস্তান থেকে।
ইএসপিএন ক্রিকইনফো লিখছে, গত শুক্রবারই সেই নিরাপত্তা রিপোর্ট পেশ করা হয় শ্রীলংকান ক্রিকেট বোর্ডে এবং ওইদিনই এ নিয়ে আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়। শ্রীলংকান ক্রিকেট বোর্ডের প্রধান নির্বাহী অ্যাশলে ডি সিলভা বলেন, নিরাপত্তা পর্যালোচনার যে ফিডব্যাক আমরা পেয়েছি তা যথেষ্ট ইতিবাচক। তবে সিদ্ধান্ত নেয়ার আগে আমরা পিসিবির সঙ্গে আরো আলাপ করবো কিছু বিকল্প নিয়েও। একই সঙ্গে সরকারী পর্যায়েও বিষয়টা নিয়ে আলোচনা হতে পারে। তবে সবচেয়ে বড় বিষয় হচ্ছে, পাকিস্তান সফরের ব্যাপারে খেলোয়াড়দের মতামত নেয়া। তারা কি সেখানে গিয়ে খেলতে চাইবে কি না সেটা একটা বড় প্রশ্ন। ২০১৭ সালের অক্টোবরে শ্রীলংকার একটি দল পাকিস্তানে গিয়ে এক ম্যাচের টি-টোয়েন্টি খেলে এসেছে। তবে, বেশ কয়েকজন নামকরা ক্রিকেটার সে সফরে পাকিস্তান যায়নি।
ওই সময়কার শ্রীলংকার টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক উপুল থারাঙ্গা, পেসার লাসিথ মালিঙ্গা, নিরোশান ডিকভেলা, সুরাঙ্গা লাকমাল এবং আকিলা ধনঞ্জয়া নিজেদের সরিয়ে নিয়েছিলেন পাকিস্তান সফর করা থেকে। শ্রীলংকার ওই দলটির জন্য তখন অধিনায়ক নির্বাচন করা হয়েছিল থিসারা পেরেরাকে। সঙ্গে গিয়েছিলেন শ্রীলংকান বোর্ড প্রেসিডেন্ট থিলাঙ্গা সুমাথিপালা এবং শ্রীলঙ্কার ক্রীড়ামন্ত্রী দয়াসিরি জয়াসেকারা। সফরটা শেষ পর্যন্ত সফলভাবেই শেষ করা গিয়েছিল। এবার শ্রীলংকা আশাবাদী তাদের ক্রিকেটাররা রাজী হবে পাকিস্তান সফরে যেতে। তবে শেষ পর্যন্ত পরিস্থিতি কি দাঁড়ায় এখনও সেটা বলা যাচ্ছে না।

x