থাইল্যান্ড-বাংলাদেশের বাণিজ্যিক ও সাংস্কৃতিক উন্নয়নে নবজাগরণ ঘটিয়েছেন তাসনিম

থাইল্যান্ডে বিদায়ী রাষ্ট্রদূত তাসনিমকে সংবর্ধনা

মৃদুল বড়ুয়া, ব্যাংকক (থাইল্যান্ড) থেকে

বৃহস্পতিবার , ৮ নভেম্বর, ২০১৮ at ৫:৫৮ অপরাহ্ণ
182

থাইল্যান্ডের রাজধানী ব্যাংককের বাংলাদেশ দূতাবাস থেকে চলতি মাসে বিদায়ী ও ইংল্যান্ডে হাইকমিশনার হিসেবে মনোনীত হওয়ায় রাষ্ট্রদূত সায়দা মুনা তাসনিমকে থাইল্যান্ডে অবস্থিত বাংলাদেশ বুড্ডিস্ট স্টুডেন্ট এসোসিয়েশন-এর পক্ষ থেকে সংবর্ধনা ও অভিনন্দন জানানো হয়েছে।

সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের উদ্বোধনী বক্তব্যে পিএইচডি গবেষক, ভদন্ত থিরাসাতু থের (লাভলু ভান্তে) থাইল্যান্ডে অবস্থানকালীন রাষ্ট্রদূত সায়দা মুনা তাসনিম-এর কৃতিত্ব ও সাফল্যগুলো তুলে ধরেন। তিনি বলেন, থাইল্যান্ড-বাংলাদেশ এ দুই দেশের অর্থনেতিক, বাণিজ্যিক ও সাংস্কৃতিক বিনিময় অবকাঠামোর উন্নয়ন ও পারস্পরিক সুসম্পর্কের নবজাগরণ ঘটিয়েছেন সায়দা মুনা তাসনিম যা অতীতের চাইতে অনেক বেশি উজ্জ্বলতর।

চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডের মেয়ে সায়দা মুনা তাসনিমকে একজন সফল রাষ্ট্রদূত হিসেবে বৃহত্তর চট্টগ্রামের পক্ষ থেকে অভিনন্দন জানানো হয়।

রাষ্ট্রদূত সায়দা মুনা তাসনিম বলেন, ‘সকল বাংলাদেশী বৌদ্ধ ভিক্ষু ও শ্রামণ বা ছাত্র-ছাত্রীদের উচিত থাইবাসীদের সাথে সুসম্পর্ক সৃষ্টি করে তাদের বাংলাদেশের বৌদ্ধ ঐতিহ্যগুলোর সাথে পরিচিত করা। প্রবাসী যারা বিদেশে অবস্থান করেন তারা প্রত্যেকে এক একেকজন বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত বা প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করতে পারেন।’

তিনি থাই বৌদ্ধ পর্যটকরা যেন বাংলাদেশে ভ্রমণ করে তার জন্য সকলকে একযোগে কাজ করার আহ্বান জানান।

তিনি অারও বলেন, ‘অামি ইংল্যান্ডে গিয়েও পশ্চিমা বৌদ্ধদেরকে উৎসাহিত করব বাংলাদেশের বৌদ্ধ তীর্থ স্থানগুলো দর্শন করার জন্য কারণ বৌদ্ধ তীর্থ স্থানগুলো অান্তর্জাতিক পর্যটন শিল্পের এক অপার সম্ভাবনার দ্বার উন্মোচন করতে পারে এবং পর্যটন খাতে বাংলাদেশ প্রচুর পরিমাণ বৈদেশিক মুদ্রা অর্জন করতে পারে।’

আগামীতে বাংলাদেশের এ ঐতিহাসিক বৌদ্ধ নিদর্শনগুলো নিয়ে ইংল্যান্ডে বাংলাদেশী বৌদ্ধ প্রবাসীদের সাথে একযোগে কাজ করার জন্যও অাশ্বাস দেন তিনি। দেশ ও শেকড়ের টানে সকলের প্রতি স্ব-স্ব অবস্থান থেকে কাজ করার তাগিদ দেন রাষ্ট্রদূত সায়দা মুনা তাসনিম ।

তাছাড়াও পিএইচডি ডিগ্রী অর্জনকারী ডক্টর ধাম্মারাক্ষিতা থের ও ডক্টর সুমনপ্রিয় থেরকে অভিনন্দন জানান তিনি এবং শ্রদ্ধেয় ভান্তেদের সাথে ধর্মীয় অালোচনার একপর্যায়ে রাষ্ট্রদূত সায়দা মুনা তাসনিম ইসলাম ধর্ম ও বৌদ্ধধর্মের মূলনীতিগুলোর সাথে সাদৃশ্য নিয়ে খুব সুন্দর অালোচনা করেন।

এ সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে অারও উপস্থিত ছিলেন কনসুলার (ডেপুটি সেক্রেটারি) লেবার ওয়েলফেয়ার উইংস এ কে এম মনিরুজ্জামান, ফার্স্ট সেক্রেটারি এন্ড হেড অভ ভিসা কনসুলার সেকশন ইসতিয়াক উদ্দিন অাহমেদ, পারসোনাল সেক্রেটারি অারিফ খান।

বাংলাদেশ স্টুডেন্ট এসোসিয়েশন-এর পক্ষ থেকে উপস্থিত ছিলেন সভাপতি পিএইচডি গবেষক, অনুবাদক জ্যোতি অার্য ভিক্ষু, জ্যোতি কল্যাণ ভিক্ষু, রাহুলানন্দ ভিক্ষু, পূর্ণ বড়ুয়া, কানন বড়ুয়া, শীলজ্যোতি শ্রামণ, তুষার বড়ুয়া, মৃদুল বড়ুয়া, অস্ট্রেলিয়া থেকে অাগত নিপু বড়ুয়া ও তার সহধর্মিনী এবং বাংলাদেশ দূতাবাসের নেতৃস্থানীয় কর্মকর্তাবৃন্দ।

x