তুরস্ককে এফ-৩৫ দেওয়া হবে না : ট্রাম্প

বৃহস্পতিবার , ১৮ জুলাই, ২০১৯ at ৫:১১ পূর্বাহ্ণ
32

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেছেন, তার দেশ তুরস্কের কাছে অত্যাধুনিক এফ-৩৫ জঙ্গিবিমান সরবরাহ করবে না। দেশটি রাশিয়ার কাছ থেকে এস-৪০০ ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা সংগ্রহ করায় ক্ষুব্ধ হয়ে এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। মঙ্গলবার হোয়াইট হাউসে মন্ত্রিসভার বৈঠকে নিজ দেশের এমন সিদ্ধান্তের কথা জানান ট্রাম্প।
এমন পরিস্থিতির জন্য নিজের পূর্বসূরি সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামাকে দায়ী করেন ট্রাম্প। তিনি বলেন, ওবামা প্রশাসন তুরস্ককে মার্কিন প্যাট্রিয়ট ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা সরবরাহে অস্বীকৃতি জানানোর ফলে দেশটি রাশিয়ার কাছ থেকে এস-৪০০ কিনতে বাধ্য হয়েছে। এর মধ্য দিয়ে তুরস্ককে রাশিয়ার দিকে ঠেলে দেওয়া হয়েছে।
ট্রাম্প বলেছেন, তুরস্কের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের সুসম্পর্ক রয়েছে। তবে দেশটি রাশিয়া থেকে এস-৪০০ ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা কিনতে বাধ্য হওয়ায় বর্তমান পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে। এর আগে তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়্যেব এরদোগান ঘোষণা করেন যে, রাশিয়া থেকে এস-৪০০ ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবস্থার প্রথম চালান আঙ্কারা পৌঁছেছে। আগামী বছরের এপ্রিল মাসের মধ্যে এ ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবস্থা মোতায়েনের কাজ সম্পন্ন হবে। সোমবার এক অনুষ্ঠানে তুর্কি প্রেসিডেন্ট বলেন, এ পর্যন্ত আটটি বিমানে করে এস-৪০০ ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থার বিভিন্ন অংশ তুরস্কে আনা হয়েছে। বাদবাকি অংশগুলোও খুব শিগগিরই আঙ্কারায় এসে পৌঁছাবে। যারা আমাদের দেশে আঘাত হানতে চায় তাদের মোকাবিলায় এস-৪০০ হবে সবচেয়ে শক্তিশালী প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা। রাশিয়ার সঙ্গে যৌথ বিনিয়োগে এটি তৈরি করা হচ্ছে। ২০১৯ সালের ১২ জুলাই যুক্তরাষ্ট্রের বিরোধিতা উপেক্ষা করে রাশিয়ার কাছ থেকে অত্যাধুনিক আকাশ প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা এস-৪০০-এর প্রথম চালান গ্রহণ করে তুরস্ক। রাজধানী আঙ্কারার একটি বিমান ঘাঁটিতে এ চালানটি পৌঁছায়। তবে একইসঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের এফ-৩৫ যুদ্ধবিমান এবং রাশিয়ার এস-৪০০ ক্ষেপণাস্ত্র কেনায় আঙ্কারার ওপর ক্ষুব্ধ যুক্তরাষ্ট্র। মঙ্গলবার এ ক্ষোভেরই বহিঃপ্রকাশ ঘটেছে ট্রাম্পের কণ্ঠে।

x