তীব্র শীতে বান্দরবান সীমান্তে কাঁপছে রোহিঙ্গা শিশুরা

বান্দরবান প্রতিনিধি

শনিবার , ৬ জানুয়ারি, ২০১৮ at ৭:১৪ পূর্বাহ্ণ
57

মিয়ানমারের সামরিক বাহিনীর নির্যাতনে সাম্প্রতিক সময়ে বাংলাদেশের ভূখণ্ডে অনুপ্রবেশকারী ও বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার দোছড়ি ইউনিয়নের বাহেরমাঠ সীমান্ত এলাকায় শরণার্থী ক্যাম্পে অবস্থানরত ১৭৩ রোহিঙ্গা শিশু প্রচণ্ড শীতে কাঁপছে। বয়স্করা কোন মতে মোটা কাপড়ে শীতের ঝাঁপটা সামাল দিতে পারলেও শুন্য থেকে ৭ বছর বয়সী ওই ১৭৩টি শিশু শীতে দাপটে চরমভাবে কষ্ট পাচ্ছে। গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা থেকে এলাকায় মৃদু শৈত্যপ্রবাহ বৃদ্ধির ফলে শীতের তীব্রতাও বেড়ে গেছে। গতকাল শুক্রবার দুপুরে দোছড়ির ওই সীমান্ত এলাকা পরিদর্শনকালে এসব অবস্থা অবলোকন করেছেন এ প্রতিনিধিসহ ৫জন সাংবাদিক।

এলাকা পরিদর্শকালে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা বলছেন, নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার ৪টি সীমান্ত পয়েন্টের শরণার্থী ক্যাম্পে এখনও অবস্থান করছে প্রায় ১৬ হাজার রোহিঙ্গা। এসব রোহিঙ্গার ৩টি ক্যাম্পে নানা বয়সী শরণার্থীদের মাঝে প্রশাসনসহ বিভিন্ন সংস্থা ও সংগঠনের উদ্যোগে কিছু কিছু শীতবস্ত্র বিতরণ করা হলেও দোছড়ি ইউনিয়নের সীমান্তবর্তী বাহেরমাঠ এলাকার পাহাড়ের পাদদেশে স্থাপিত অস্থায়ী রোহিঙ্গা শরণার্থী ক্যাম্পে আশ্রিত ৭৮টি পরিবারের ১৭৩টি শিশুর ব্যবহারের জন্যে নেই কোন শীতবস্ত্র। বয়স্ক রোহিঙ্গা নারীপুরুষ মোটা কাপড়ের সহায়তা পেলেও বঞ্চিত ওইসব শিশু মোটা কাপড় বা শীতবস্ত্র প্রাপ্তি থেকে।

অপরদিকে সীমান্তের ঘুমধুম ও নাইক্ষ্যংছড়ি সদর ইউনিয়নের ৩টি স্থানে জিরোপয়েন্ট এবং অস্থায়ী শরণার্থী ক্যাম্পে বর্তমানে অবস্থানরত রোহিঙ্গা শিশুদের অনকেই শীতবস্ত্রের সংকটে ভুগছে বলে জানিয়েছেন স্থানীয় সমাজ নেতারা। তবে এ বিষয়ে বিজিবি এবং প্রশাসন কর্মকর্তারা বলছেন, রোহিঙ্গা শিশুরাও যাতে শীতবস্ত্র পায় সেই বিষয়ে কাজ চলছে।

x